ঢাকা শুক্রবার, ০২ অক্টোবর ২০২০, ১৭ আশ্বিন ১৪২৭, ১৪ সফর ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

মেয়র আনিসুল হকের ইন্তেকাল

ইনকিলাব ডেস্ক: | প্রকাশের সময় : ১ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)-এর মেয়র আনিসুল হক ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিঊন। গতকাল বাংলাদেশ সময় রাত ১০টা ২৩ মিনিটে লন্ডনের ইউস্টনের ইউনিভার্সিটি কলেজ হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) তার মৃত্যু হয়। তার বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর। মৃত্যুকালে তার পাশে ছিলেন স্ত্রী রুবানা হক ও সন্তানরা। আজ (শুক্রবার) বাদ জুমা লন্ডনের রিজেন্ট পার্ক মসজিদে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা গেছে। আগামীকাল (শনিবার) সকাল ১১টা ২০ মিনিটে বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে তার লাশ হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছানোর কথা রয়েছে। ওইদিনই বাদ আসর আর্মি স্টেডিয়ামে জানাজা শেষে তাকে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হবে। তার পারিবারিক বন্ধু ও নাগরিক টেলিভিশনের প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা ডা. আবদূর নূর তুষার এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। মেয়রের ব্যক্তিগত সহকারী মিজানুর রহমানও বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, স্থানীয় সময় বিকাল ৪ টা ২৩ মিনিটে (বাংলাদেশ সময় রাত ১০টা ২৩ মিনিট) তার মৃত্যু হয়।
ডিএনসিসির মেয়র আনিসুল হকের ইন্তেকালে শোক প্রকাশ করেছেন প্রেসিডেন্ট মোঃ আব্দুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, আইনমন্ত্রী আনিসুল হকসহ অনেকে।
এর আগে, গত মঙ্গলবার অসুস্থ অবস্থায় হঠাৎ শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়েছিল। দীর্ঘদিন তিনি লন্ডনে চিকিৎসাধীন ছিলেন।
প্রসঙ্গত, মেয়র আনিসুল হক সেরিব্রাল ভাসকুলাইটিসে (মস্তিষ্কের রক্তনালির এক ধরনের প্রদাহ) আক্রান্ত হয়েছিলেন। এ রোগের চিকিৎসায় ব্যবহৃত মেডিসিনের প্রভাবে তার শরীরের স্বাভাবিক রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এ কারণেই তিনি ইনফেকশনে আক্রান্ত হয়েছিলেন।
যুক্তরাজ্যে স্বামীর পাশে থাকা রুবানা হক গতকাল বিকেলে গণমাধ্যমকে বলেছিলেন, ‘তার ফুসফুসে সংক্রমণ হয়েছে। তার অবস্থা ভালো নয়। তার জন্য জন্য দোয়া করুন’। এর আগে বুধবার তিনি জানিয়েছিলেন, আনিসুল হকের চিকিৎসা পদ্ধতি নিয়ে বসবেন চিকিৎসকরা। স্বামীর শারীরিক অবস্থার উন্নতির বিষয়ে তিনি ছিলেন আশাবাদী। সাড়ে তিন মাস ধরে অসুস্থ আনিসুল হকের অবস্থার মাঝে উন্নতি ঘটলেও গত মঙ্গলবার ফের আইসিইউতে নেওয়া হয় তাকে।
নাতির জন্ম উপলক্ষে গত ২৯ জুলাই সপরিবারে লন্ডনে যান আনিসুল হক ও রুবানা। সেখানে অসুস্থ হয়ে পড়েন আনিসুল হক। তার মস্তিস্কের রক্তনালীতে প্রদাহজনিত সেরিব্রাল ভাসকুলাইটিস শনাক্ত করেন চিকিৎসকরা। আগস্টের মাঝামাঝিতে লন্ডনের একটি হাসপাতালে ভর্তির পর নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে রাখা হয়েছিল তাকে। অবস্থার উন্নতি ঘটার পর গত ৩১ অক্টোবর তাকে আইসিইউ থেকে রিহ্যাবিলিটেশনে স্থানান্তর করা হয়েছিল। তার এক মাসের মধ্যে ফের আইসিইউতে নিতে আনিসুল হককে।
মোহাম্মদী গ্রুপের চেয়ারম্যান আনিসুলের তৈরি পোশাক ছাড়া বিদ্যুৎ, তথ্যপ্রযুক্তি, আবাসন, কৃষিভিত্তিক শিল্প কারখানা রয়েছে। ডিজিযাদু ব্রডব্যান্ড লিমিটেড এবং নাগরিক টেলিভিশনের মালিকানাও আছে তার ব্যবসায়িক গ্রুপের।
আনিসুল হকের জন্ম ১৯৫২ সালের ২৭ অক্টোবর নানা বাড়ি ফেনী জেলার সোনাগাজীর আমিরাবাদ ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামে। তার বাবার বাড়ি নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার কবিরহাটে। তার বাবা শরীফুল হক ছিলেন আনসারের কর্মকর্তা।
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতকোত্তর করেন আনিসুল হক। নব্বুইয়ের দশকে বাংলাদেশ টেলিভিশনের ‘আনন্দমেলা’ ও ‘অন্তরালে’ অনুষ্ঠানে উপস্থাপনার মাধ্যমে বিপুল জনপ্রিয়তা পান আনিসুল হক। এরপর তৈরি পোশাক খাতের ব্যবসায় মনোনিবেশ করেন। শিখরস্পর্শী ব্যবসায়ী হিসেবে সুনাম অর্জনের পর এ খাতের ব্যবসায়ীদের সংগঠন বিজিএমইএ’র সভাপতি নির্বাচিত হন তিনি। সেনা নিয়ন্ত্রিত তত্ত¡াবধায়ক সরকারের আমলে তিনি ব্যবসায়ীদের সংগঠন এফবিসিসিআই’র সভাপতির দায়িত্বও পালন করেন। ২০১৫ সালে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র নির্বাচিত হন তিনি।
মেয়র হিসেবে রাজধানীর তেজগাঁওয়ের সাত রাস্তার মোড় থেকে ট্রাক স্ট্যান্ড উচ্ছেদ করে রাস্তা নির্মাণ, গাবতলীতে ট্রাক স্ট্যান্ড সরিয়ে রাস্তা সংস্কার, হলি আর্টিজানের ঘটনার পর কূটনৈতিক অঞ্চল হিসেবে গুলশান-বারিধারার নিরাপত্তা জোরদার, গুলশান-বনানী এলাকা থেকে পুরনো বাস সরিয়ে ‘ঢাকা চাকা’ নামের নতুন এসি বাস সার্ভিস চালু, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনভুক্ত বিভিন্ন এলাকায় প্রচুর উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ, ‘সবুজ ঢাকা’ নামের বিশেষ সবুজায়ন কর্মসূচি গ্রহণ করে নাগরিকমহলে বিশেষ প্রশংসিত হন তিনি। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন সমস্যায় দিনে-রাতে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়েও নাগরিকবাসীর আস্থাভাজন হয়েছেন তিনি।
আনিসুল হকের স্ত্রী রুবানা হক মোহাম্মদী গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। তাদের মেয়ে মেয়ে তানিশা ফারিয়ামান হকও এই গ্রুপের পরিচালক। আনিসুল হকের ছেলে নাভিদুল হক এবং রুবানা হকের মেয়ে ওয়ামিক উমাইরাও গ্রুপটির পরিচালক। মোহাম্মদী গ্রুপের মালিকাধীন দেশ এনার্জি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্বে আছেন নাভিদুল। ওয়ামিক উমাইরা স্নাতক শেষ করে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থায় কাজ করছেন। তানিশা ফারিয়ামান যুক্তরাষ্ট্রের বস্টনের সিমন্স কলেজ থেকে স্নাতক করেছেন। আনিসুল হকের অন্য ভাইদের মধ্যে ইকবাল হক চিকিৎসক, থাকেন যুক্তরাষ্ট্রে। হেলাল হক নামে তার আরেক ভাই যুক্তরাষ্ট্র নৌবাহিনীর ক্যাপ্টেন।
ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র হওয়ার পর বেশ কিছু উদ্যোগ নিয়ে আলোচনায় ছিলেন আনিসুল হক। অতি স্বল্প সময়ে অনেক কিছু করার পরও মেয়র আনিসুলের কাছে তার এলাকার নাগরিকদের প্রত্যাশা ছিল আরো বেশি। সেগুলো অপূর্ণ রেখেই চলে গেলেন না ফেরার দেশে।
প্রেসিডেন্টের শোক
প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হকের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। গতরাতে এক শোক বার্তায় প্রেসিডেন্ট বলেন, মেয়র আনিসুল হক একজন সফল ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তা ছিলেন। তিনি মরহুমের রূহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
প্রধানমন্ত্রীর শোক
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হকের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। গতরাতে এক শোকবার্তায় প্রধানমন্ত্রী ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন এলাকার উন্নয়নে আনিসুল হকের অবদানের কথা গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন। তিনি বলেন, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের জনগণের কল্যাণে মেয়র আনিসুল হক অনেক পদক্ষেপ নেন। অসাধারণ কাজের জন্য তিনি চিরকাল স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। শেখ হাসিনা মরহুমের রূহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোক-সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (10)
Helal Ahmed ১ ডিসেম্বর, ২০১৭, ৯:৫২ এএম says : 0
ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিঊন
Total Reply(0)
Lokman Hossain ১ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১০:১৬ এএম says : 0
কেন যেন আপনাকে মন থেকেই ভাল লাগতো এবং খুব ভালবাসতাম, সেই ভালবাসার মানুষটি চলে গেলেন না ফেরার দেশে,দোয়া করি সুখী ও সুন্দর হউক আপনার পরপারের অনন্ত জীবন।
Total Reply(0)
Faruk Ahm Faruk ১ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১০:১৮ এএম says : 0
ভালো মানুষকে দল মত নির্বিশেষ সবাই ভালোবাসে। মৃত্যুর মধ্য দিয়ে আপনি তা প্রমাণ করে গেলেন। শ্রদ্ধেয় মেয়র আনিসুল হক, আল্লাহতালা আপনাকে জান্নাত দান করুন। আমীন।
Total Reply(0)
RaZu ১ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১০:১৯ এএম says : 0
এক মহান কর্মবীর এর অকাল প্রয়ান। এই প্রিয় মানুষটিকে না ফেরার দেশে ভাল রাখুন মহান আল্লাহতা'লা, আমিন।
Total Reply(0)
Md Monir Hossian ১ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১০:২০ এএম says : 0
তার রুহের মাগফেরাত কামনা করি।
Total Reply(0)
Parvez Ahamed ১ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১০:২১ এএম says : 0
পরম করুনাময়ের কাছে প্রাথর্না যেখানেই থাকুন ভাল থাকুন, শান্তিতে থাকুন। অনেক অনেক মিস করছি স্যার।
Total Reply(0)
Md Muniruzzaman ১ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১০:২২ এএম says : 0
আল্লাহ উনাকে জান্নাতুল ফেরদাউস দান করুন। আমিন
Total Reply(0)
Abdul Mannan ১ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১০:২৬ এএম says : 0
আনিসুল হক ভাইয়ের মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত। মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করছি। আল্লাহ ওনাকে জান্নাত নসিব করুন।
Total Reply(0)
Haque Rezaul ১ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১০:২৭ এএম says : 0
খুব খুব ভাল লাগত এই মানুষটাকে। ঢাকা উত্তরের জনগন বুঝবে এখন যে অানিসুল হক আসলে কি ছিলেন।
Total Reply(0)
Golam Mustafa ১ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১০:২৮ এএম says : 0
He was an inspirational person. God may rest his soul in peace.
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন