ঢাকা, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ০৬ ভাদ্র ১৪২৬, ১৯ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

স্বাস্থ্যসেবায় অন্যদের মতো ফিজিওথেরাপিস্টদের সমান গুরুত্ব দিতে হবে : সায়মা ওয়াজেদ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ফিজিওথেরাপিসহ অন্যান্য পুনর্বাসনভিত্তিক পেশাজীবিদের জন্য একটি নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠান গঠনের বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেছেন অটিজম ও নিউরোডেলেপম্যান্ট ডিজঅর্ডার জাতীয় উপদেষ্টা কমিটির চেয়ারম্যান সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুল।
তিনি বলেন, স্বাস্থ্যসেবায় অন্যদের মতো ফিজিওথেরাপিস্টদেরও সমান গুরুত্ব দিতে হবে। বাংলাদেশ ফিজিওথেরাপি অ্যাসোসিয়েশন (বিপিএ) আয়োজিত দুই দিনব্যাপী রিহ্যাবিলেটেশন প্রফেশনালদের জন্য প্রথম আন্তজার্তিক সম্মেলনের উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে রিহ্যাবিলিটেশন প্রফেশনের রেগুলিটরি বডি নিয়ে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন সায়মা ওয়াজেদ। গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টায় কৃষিবিদ ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠান হয়। সম্মেলনের প্রতিপাদ্য ছিল “এসডিজি বাস্তবায়নের জন্য সমন্বিত পুনর্বাসন সেবা নিশ্চিতকরন”।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি সহযোগী অধ্যাপক ডা. নাসিরুল ইসলাম। প্রধান অতিথি ছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিপিএ’র এ্যাডভাইজর ও সেন্টার ফর দ্য রিহ্যাবিলিটেশন অফ দ্য প্যারালাইজ্্ড (সিআরপি)-এর প্রতিষ্ঠাতা ভেলরি এ টেইলর।
সায়মা ওয়াজেদ বলেন, দেশে স্বাস্থ্যসেবার ইতিহাস দেখলে দেখা যায় প্রথম থেকেই ফিজিওথেরাপিসহ অন্যান্য পুনর্বাসনভিত্তিক পেশাজীবিরা অবহেলিত। তাদের সম্পর্কে সাধারণ মানুষের সঠিক ধারণা এবং নিয়ন্ত্রণের অভাব ছিল।
তিনি বলেন, আমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বলব একটি রেগুলেটরি বডি গঠন করে কিভাবে এই সেবা আরো যুগোপযোগী করা যায় সে বিষয়ে দ্রæত পদক্ষেপ নেয়া উচিত। এর মাধ্যমে নির্ধারণ করতে হবে এই পেশায় কারা কাজ করবেন এবং তাদের যোগ্যতার মাপকাঠি কী হবে।
সায়মা বলেন, আমাদের সবাইকে পুনর্বাসনসেবা সম্পর্কে বুঝতে হবে। মানুষের শারীরিক বিষয়গুলো, কথা বলা, হাতের ক্ষুদ্র কাজ এবং মানসিক স্বাস্থ্য সম্পর্কে জানতে হবে। আমাদের সহযোগিতার মাধ্যমে প্রতিবন্ধীদের জীবনের দৈনন্দিন কাজকে গতিশীল করতে হবে। তাদের নিজেদের কাজ, কর্মক্ষেত্রের কাজে সহযোগিতার পাশাপাশি তাদের মানসিক অনুভুতির উন্নয়নে কাজ করতে হবে।
সাধারণ মানুষের উদ্দেশে সায়মা ওয়াজেদ বলেন, এই সমাজের দায়িত্ব শুধু সরকার বা নির্দিষ্ট কোনো প্রতিষ্ঠানের নয়। এই দায়িত্ব আমাদের সবার। আমি এই পেশার সঙ্গে যারা যুক্ত, তাদের উদ্দেশে বলব, আপনারা জ্ঞান অর্জনের দিকে মনোযোগী হবেন। নতুন নতুন গবেষণায় নিজেদের যুক্ত করে এই খাতকে আরো সমৃদ্ধ করবেন। স্বাস্থ্য খাতে পড়াশোনা কখনো শেষ হয় না। ধারাবাহিকভাবে নানা বিষয় সামনে আসে। আপনাদের যেই নামেই ডাকুক না কেনো আপনারা স্বাস্থ্যপেশাজীবী।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Md Giash Uddin Dulal ২৩ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১২:২৯ পিএম says : 0
আপনি কইছেন কালকেই হয়ে যাবে
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন