বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৪ কার্তিক ১৪২৮, ১২ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

বিনোদন প্রতিদিন

অভিনয়ে আলী রাজের তিন দশক

প্রকাশের সময় : ২৫ মার্চ, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : টিভি নাটকের মাধ্যমে অভিনয়ে আলী রাজের অভিষেক ঘটে। বিটিভিতে সেলিম আল দীনের লেখা নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চুর নির্দেশনায় ‘ভাঙ্গনের শব্দ শুনি’ নাটকে তিনি প্রথম অভিনয় করেন। সে সময় আলীরাজ ডব্লিউ আনোয়ার নামে পরিচিত ছিলেন। ১৯৮৪ সালে তার জীবনের সবচেয়ে বড় সুযোগ আসে। নায়করাজ রাজ্জাকের নির্দেশনায় ‘সৎ ভাই’ চলচ্চিত্রে কাজ করার সুযোগ পান তিনি। চলচ্চিত্রটি ওই বছরই মুক্তির পর সিনেমাতে আলী রাজ নিয়মিত হন। ডব্লিউ আনোয়ার থেকে নায়করাজের দেয়া নাম ‘আলী রাজ’ হিসেবেই পরিচিতি পান। এরপর তিনি মমতাজ আলীর ‘নিয়ত’, আজহারুল ইসলাম খানের ‘সহযাত্রী’সহ ১১০টি চলচ্চিত্রে নায়ক হিসেবে অভিনয় করেন। চরিত্রাভিনেত্রা হিসেবেও তিনি অনেক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। আলী রাজ বলেন, ‘নায়করাজ রাজ্জাকের কারণেই আমি আজকের আলী রাজ। তাই এই মানুষটির প্রতি সব সময়ই আমার শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা ছিল, আছে এবং থাকবে। প্রয়াত চাষী ভাইয়ের নির্দেশনায় পদ্মা, মেঘনা, যমুনা চলচ্চিত্রে অভিনয় আমার জীবনের অনেক বড় অর্জন। তবে চাষী ভাইয়ের ‘কাঠগড়া’ চলচ্চিত্রটি যদি নব্বইয়ের দশকে শেষ হয়ে মুক্তি পেত সেটাও আমার জন্য উল্লেখ করার মতো একটি চলচ্চিত্র হতে পারতো। যাই হোক, তারপরও আমি আমার অবস্থান এবং অর্জন নিয়ে সন্তুষ্ট। দর্শকের ভালোবাসার মাঝেই বেঁচে থাকতে চাই।’ আলী রাজ বরবারই কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন সিনোমাটোগ্রাফার আনোয়ার হোসেন বুলুর প্রতি। কারণ তাকে শুরু থেকে আজ পর্যন্ত দারুণভাবে সহযোগিতা করছেন তিনি। আলী রাজ বর্তমানে শামীমুল ইসলাম শামীমের ‘আমার প্রেম আমার প্রিয়া’, সজল আহমেদ’র ‘তুই আমার’, শফিক হাসানের ‘ধুমকেতু’, শাহেদুর রহমানের ‘রিয়েল ম্যান’, আনোয়ারের ‘মেয়ে কার’ চলচ্চিত্রের শুটিং নিয়ে ব্যস্ত। পাশাপাশি জাহিদ হাসানের নির্দেশনায় ‘রাজু ৪২০’ ধারাবাহিকেও অভিনয় করছেন তিনি। তার স্ত্রী ঝিনুক ও দুই সন্তান সরল ও শর্মী।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন