সোমবার, ১৫ আগস্ট ২০২২, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৬ মুহাররম ১৪৪৪

জাতীয় সংবাদ

রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিলের চক্রান্ত বন্ধ না হলে দেশব্যাপী কঠোর আন্দোলন

প্রকাশের সময় : ২৫ মার্চ, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম রাষ্ট্রের একটি নীতির বিষয় এটা সংবিধানে লিপিবদ্ধ এবং এটা অন্য কারো হস্তক্ষেপের আওতার বাইরে। মীমাংসিত এ বিষয়টি নিয়ে গুটিকয়েক নাস্তিক ও হিন্দু নেতা কর্তৃক বাতিলের দাবিতে করা স্থগিত রিট পুনঃ সচল করার ৯৫ ভাগ মুসলমানের এদেশে কাম্য নয়। সরকারকে ৯৫ ভাগ জনসংখ্যার পক্ষ হয়ে এ রিট খারিজের ব্যবস্থা করে জনগণের পক্ষ না নিলে তা সরকারের জন্য শুভ হবে না। রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম নিয়ে চক্রান্তের প্রতিবাদে গতকালের বিভিন্ন কর্মসূচিতে নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন। তারা বলেন, রাষ্ট্রধর্ম নিয়ে চক্রান্ত বন্ধ না হলে দেশব্যাপী কঠোর আন্দোলন শুরু করা হবে। ইসলামী আন্দোলন ঃ ২৭ মার্চ দেশব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি ঐদিন রাজধানীর প্রেসক্লাবের সামনে বেলা ১২টায় জমায়েত
ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনূছ আহমাদ বলেছেন, সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিলের চক্রান্ত বন্ধ না হলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। আগামী ২৭ মার্চ রিট শুনানির দিন দেশব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হবে। ঐদিন রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বেলা ১২টায় জমায়েত ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হবে। তিনি বলেন, রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম একটি মীমাংসিত বিষয় এবং এদেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমানের প্রাণের সাথে মিশে আছে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম। কাজেই রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম নিয়ে যেকোনো ষড়যন্ত্র ইসলামী জনতা দেশবাসী জীবন দিয়ে রুখবে। তিনি বলেন, রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম এদেশে কারো কোনো ক্ষতি করেনি। রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম সংবিধান থেকে বাতিল করার লক্ষ্যে রিটের নামে সা¤প্রদায়িক উস্কানিদাতা শক্তি ‘হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ কর্তৃক হাজার বছরের ঐতিহ্য সাম্প্রদায়িকতা ও সকল ধর্মের সহঅবস্থান ও সম্প্রীতি ধ্বংসের গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ বলেই মনে হচ্ছে।
গতকাল (বহস্পতিবার) বিকেলে রাজধানীর পুরানা পল্টনস্থ হাউজ বিল্ডিং চত্বরে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিলের ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদ, শরীয়তের অলঙ্গনীয় বিধান পর্দা বন্ধের ধৃষ্টতা বন্ধের দাবিতে ইসলামী আন্দোলন ঢাকা মহানগরীর আয়োজিত বিশাল বিক্ষোভ পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। ঢাকা মহানগরী সভাপতি অধ্যাপক এটিএম হেমায়েত উদ্দীন-এর সভাপতিত্বে এবং সেক্রেটারি মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূমের পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সহকারী মহাসচিব মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুল আলম, মাওলানা আতাউর রহমান আরেফী, আলহাজ আলতাফ হোসেন, অধ্যাপক ফজলুল হক মৃধা, শ্রমিক নেতা হারুনুর রশিদ প্রমুখ।
সভাপতির বক্তব্যে অধ্যাপক মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দিন বলেন, রাষ্ট্রধর্ম ইসলামবিরোধ রিট অবিলম্বে প্রত্যাহারের ব্যবস্থা নিতে হবে। তিনি বলেন, পর্দার বিরুদ্ধে অবস্থানকারীদেরও কোনো ছাড় দেওয়া হবে না।
সমাবেশ শেষে একটি বিশাল মিছিল পুরানা পল্টন, দৈনিক বাংলা, বায়তুল মোকাররম উত্তর গেইট হয়ে পল্টন মোড় পৌঁছলে পুলিশ মিছিলে গতিরোধ করে। এ সময় পরিস্থিতি উত্তেজিত হয়ে উঠে। পুনরায় মিছিলটি হাউজ বিল্ডিং এসে মুনাজাতের মাধ্যমে শেষ করা হয়।
আজ বাদ জুমা সমাবেশ মিছিল
রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম সংবিধান থেকে বাদ দেয়ার চক্রান্তের প্রতিবাদে হেফাজতে ইসলাম ঢাকাসহ বিভিন্ন ইসলামী সংগঠন আজ বাদ জুমা বায়তুল মোকাররম মসজিদের উত্তর গেইটে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিলের কর্মসূচি দিয়েছে। এছাড়াও আজ চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ মিছিল হবে।
রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়ার চক্রান্তের প্রতিবাদে আজ শুক্রবার বাদ জুমা রাজধানীসহ সারাদেশে বিক্ষোভ সমাবেশ সফল করার আহŸান জানিয়েছেন বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ।
বিবৃতি দিয়েছেন ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টির সভাপতি এড. মাওলানা আব্দুল রকিব, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান নেজামে পার্টির নির্বাহী সভাপতি সৈয়দ আব্দুল মালেক হালিম, ভাইস চেয়ারম্যান মাও. আব্দুল হালিম বোখারী, মাও. সরওয়ার কামাল আজিজী প্রমুখ।
ইসলামী ছাত্র সমাজের সভাপতি মু. ইলিয়াছ আতহারী আরমান হোসাইন, মহাসচিব মো. রফিকুল ইসলাম, কওমী মাদ্রাসার ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি এমদাদ হোসেন সাকী, মহাসচিব রাশেদ আল আমিন, রাসেল হোসেন, এমদাদ উল্লাহ, জাহিদুল ইসলাম, সাদ্দাম হোসেন মাহমুদ প্রমুখ।
চট্টগ্রামে ইসলামিক ফ্রন্টের সমাবেশ-বিক্ষোভ মিছিল
চট্টগ্রাম ব্যুরো ঃ
ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব এম সোলায়মান ফরিদ বলেছেন, সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া হলে জনরোষ থেকে সরকার কোনভাবেই রেহাই পাবেনা। এটি সংবিধানে সন্নিবেশিত একটি মীমাংসিত বিষয়। সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলামকে বাদ দেয়ার ধুম্রজাল সৃষ্টি করে এদেশে সুদীর্ঘ দিনের প্রতিষ্ঠিত সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার কোনপ্রকার অশুভ চক্রান্ত ও ষড়যন্ত্র এদেশের ধর্মপ্রাণ জনগণ মেনে নেবেনা। গতকাল (বৃহস্পতিবার) চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ ও ইসলামী ছাত্রসেনা চট্টগ্রাম মহানগরের যৌথ উদ্যোগে সংবিধান থেকে “রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম” বাদ দেয়ার ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
প্রধান বক্তার বক্তব্যে অধ্যক্ষ আল্লামা কাজী আনোয়ারুল ইসলাম খান বলেন, এদেশের ৯২ শতাংশ মুসলমান তাদের ধর্ম, ঈমান ও আকিদা বিরোধী যেকোন অশুভ ষড়যন্ত্র রক্তমূল্যে নস্যাৎ করে দেবে। সভাপতির বক্তব্যে মুজিবুল হক শুক্কুর রাষ্ট্রধর্ম ইসলামের বিরুদ্ধে যেকোন ষড়যন্ত্রের দাঁতভাঙ্গা জবাব দেয়ার কঠোর হুশিয়ারি উচ্চারণ করে আজ শুক্রবার বাদ জুমা চট্টগ্রামের বিভিন্ন মসজিদ থেকে বিক্ষোভ সমাবেশ এবং একই দাবিতে ২৮ মার্চ চট্টগ্রামের সকল উপজেলা সদরে বিক্ষোভ সমাবেশের ঘোষণা দেন। পরবর্তীতে সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে উপরোক্ত দাবিতে কঠিন কর্মসূচী পালন করা হবে বলে ঘোষণা দেন।
ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের চট্টগ্রাম মহানগর সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক এ এম মঈনউদ্দিন চৌধুরী হালিমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম নগর ইসলামিক ফ্রন্টের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ এম ইব্রাহীম আখতারী, কে এম নুরুল ইসলাম হুলাইনী, চট্টগ্রাম নগর ইসলামিক ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক এস এম আবদুল করিম তারেক, দক্ষিণ জেলার সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক স ম শহিদুল হক ফারুকী, এম ওয়াহেদ মুরাদ, ডাঃ হাসমত আলী তাহেরী প্রমুখ।
আহলে হাদীছ আন্দোলনের উদ্বেগ
রাজশাহী ব্যুরো
‘আহলে হাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’-এর আমীর প্রফেসর ড. মুহাম্মাদ আসাদুল্লাহ আল-গালিব বলেছেন, সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিলের পরিণতি ভাল হবেনা। দেশের মানুষ তা মেনেও নেবেনা। ২৮ বছর আগের পুরনো একটি রিট মামলাকে সচল করে বাংলাদেশের সংবিধানে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম থাকবে কি থাকবে না, এ বিষয়ে হাইকোর্টে শুনানির ওপর গভীর উদ্বেগও প্রকাশ করেন । এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম মুসলিম দেশের সংবিধান অবশ্যই ‘ইসলাম’ হওয়া উচিত ছিল। কিন্তু তা না করে ‘রাষ্ট্রধর্ম’ হিসাবে যতটুকু সম্মান ইসলামকে দেওয়া হয়েছে, সেটুকুও মুছে ফেলার জন্য ইসলাম বিদ্বেষী মহল যে অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে, তা থেকে বিরত থাকার জন্য আমরা দায়িত্বশীল কর্তৃপক্ষের প্রতি আবেদন জানাচ্ছি। সাথে সাথে সরকারকে এ বিষয়ে যথাযোগ্য ভূমিকা পালন করার জোর দাবী জানাচ্ছি।
খুলনায় হেফাজতের পরামর্শ সভা
খুলনা ব্যুরো ঃ
বাংলাদেশের সংবিধান থেকে রাষ্ট্র ধর্ম ইসলামকে মুছে ফেলা হলে সর্বস্তরের তাওহীদি জনতাকে সাথে নিয়ে প্রতিহত করা হবে। ষড়যন্ত্রকারীদের শুভবুদ্ধিও উদয় ঘটবে, হিফাজতে ইসলাম কোন দেশ দখলের আন্দোলন করে না। তবে ইসলামের বিরুদ্ধে কেউ আঘাত করলে তার দাঁত ভাঙ্গা জবাব দিতে বদ্ধ পরিকর। গতকাল বৃহস্পতিবার হিফাজতে ইসলাম খুলনা জেলা সভাপতি মাওলানা মুশতাক আহমাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জরুরি পরামর্শ সভায় বক্তারা উপরোক্ত কথা বলেন।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (2)
আতিক ২৫ মার্চ, ২০১৬, ২:৪২ পিএম says : 0
ইসলাম আছে, থাকবে। এটাই ফাইনাল
Total Reply(0)
Rasel ২৫ মার্চ, ২০১৬, ২:৪২ পিএম says : 0
বাংলাদেশের সংবিধান থেকে রাষ্ট্র ধর্ম ইসলামকে মুছে ফেলা হলে সর্বস্তরের তাওহীদি জনতাকে সাথে নিয়ে প্রতিহত করা হবে।
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন