বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৩ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

নির্বাচনি সহিংসতায় ৫ জেলায় চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ আহত ৪৬

প্রকাশের সময় : ২৮ মার্চ, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দেশের বিভিন্ন স্থানে সহিংসতা অব্যাহত রয়েছে। যশোর, চাঁদপুর, কুষ্টিয়া, গোপালগঞ্জ ও নীলফামারীতে এক চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ কমপক্ষে ৪৬ জন আহত হয়েছেন। এর মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর।
যশোরে বোমা হামলায় ১০আহত
যশোর ব্যুরো : যশোরে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের প্রচারকালে বোমা হামলায় অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। শনিবার রাতে যশোর সদর উপজেলার শেখহাটি বাবলাতলা ও লেবুতলা বাজারে এ বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। আহতদের যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
যশোর সদর উপজেলার নওয়াপাড়া ইউনিয়নের আ’লীগ মনোনীত প্রার্থী ও জেলা সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলনের স্ত্রী নাসরিন সুলতানা জানান, শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে নির্বাচনী প্রচারণা শেষে তিনি নেতাকর্মীদের নিয়ে শেখহাটি বাবলাতলা এলাকায় পৌঁছেন। এরপর তিনি ওই এলাকার নির্বাচনী অফিসের সামনে অবস্থান নিয়ে মাইক্রোবাসের মধ্যে এশার নামাজ আদায় করছিলেন। এ সময় অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা তার মাইক্রোবাস লক্ষ্য করে একটি হাতবোমা নিক্ষেপ করে পালিয়ে যায়। বোমাটি বিস্ফোরিত হলে নৌকা প্রতীকের ৫ কর্মী আহত হন। তারা হলেনÑ হাসানুজ্জামান টুটুল, মানিক, সোহাগ, হালিম ও মাহমুদুল হাসান। আহতরা যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন।
অপরদিকে, ইউপি নির্বাচনের প্রচারণাকে ঘিরে শনিবার রাত ৯টার দিকে সদর উপজেলার লেবুতলা বাজারে বোমা হামলায় ৫ জন আহত হয়েছেন। এ হামলার ঘটনায় পরস্পরকে দায়ী করে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগ ও বিএনপি প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরা।
চাঁদপুরে আ’লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১৫
চাঁদপুর জেলা সংবাদদাতা : চাঁদপুরের কচুয়ায় নির্বাচনী বর্ধিত সভায় আ’লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানসহ অন্তত ১৫ জন আহত হন। রোববার বেলা ১টার দিকে উপজেলার রহিমানগর বাজারে এ ঘটনা ঘটে। কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: ইব্রাহিম খলিল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
সংঘর্ষে আহত কয়েকজন হলো- ১১নং গোহাট (দক্ষিণ) ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো: আমির হোসেন, ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা টিটু ও ফখরুল ইসলাম। তাৎক্ষণিকভাবে আহত অন্যদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।
দৌলতপুরে স্বতন্ত্র প্রার্থীর ১০ কর্মী আহত
দৌলতপুর উপজেলা সংবাদদাতা : কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে নৌকা প্রার্থীর সশস্ত্র ক্যাডাদের হামলায় স্বতন্ত্র প্রার্থীর অন্তত ১০ জন কর্মী ও সমর্থক আহত হয়েছে। এ সময় হামলাকারীরা বাড়িঘর, চায়ের দোকান ও মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে এলাকার সাধারণ ভোটারদের মধ্যে ভীতি ও আতঙ্ক সৃষ্টি করে ভোটকেন্দ্রে না যাওয়ার হুমকি দিয়েছে। গতকাল (রোববার) বেলা ১টার দিকে উপজেলার আড়িয়া ইউনিয়নের লালনগর গ্রামে হামলার এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ওই ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী তারিক আল মামুনের সাধারণ কর্মী ও সমর্থকরা লালনগর বাজারে অবস্থানকালে প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগ সমর্থিত নৌকার প্রার্থী সাইদ আনছারী বিপ্লবের বহিরাগত ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী আনিস, অমূল্য, রাজিব, রাজন, জাহাঙ্গীর, হীরা, কামাল, তুহিন ও জিন্নাহসহ ১৫-২০ জন মোটরসাইকেলে এসে সশস্ত্র অবস্থায় তাদের ওপর হামলা করে।
নির্বাচনী প্রচারণায় কোটালীপাড়ায় চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ আহত ১০
কোটালীপাড়া উপজেলা সংবাদদাতা : গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় ইউপি নির্বাচনের প্রচারণায় আ’লীগ মনোনীত সমর্থকদের হামলায় প্রতিপক্ষের চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ১০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ অপর একজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রথমে গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতাল ও পরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গত শনিবার রাতে উপজেলার কুশলা ইউনিয়নের চৌর খুলি গ্রামের জাকাত মেম্বারের বাড়ির সামনের সড়কে এ ঘটনা ঘটে ।
নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন চেয়ারম্যান প্রার্থী
গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় অবশেষে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী। রোববার উপজেলার রাধাগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী ভীম চন্দ্র বাগচী নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা সাংবাদিকদের জানান। কারণ জানতে চাইলে তিনি অভিযোগ করেন আ’লীগ মনোনীত প্রার্থী অমৃত লাল হালদারের লোকজন আমার ৩৬টি ব্যানার অগ্নিসংযোগ করে পুড়িয়ে ফেলে প্রায় ৫ হাজার পোস্টার ছিঁড়ে ফেলে এবং আমার কাছে ৯টি কেন্দ্রে বিপুল ভোটে নৌকার প্রার্থী পরাজিত হওয়ার আশঙ্কায় দল থেকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি-ধমকি দেয়ায় নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালাম।
নীলফামারীতে অগ্নি সংযোগ ও দলীয় কার্য্যালয় ভাংচুর
নীলফামারী জেলা সংবাদদাতাঃ নীলফামারী সদর উপজেলার চওড়া বড়গাছা ইউনিয়নে শনিবার রাত সাড়ে ১১টায় আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মোশাররফ হোসেনের কর্মীরা আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী জুলফিকার আলী ভূট্রোর সমর্থিত কর্মী বুদারু বর্মনের উপর হামলা চালিয়েছে। এ সময় তারা বুদারু বর্মনের বাড়ীতে অগ্নিসংযোগ ও চৌরঙ্গী বাজারে অবস্থিত নির্বাচনী প্রচারণা অফিসও ভাংচুর করেছে বলে অভিযোগ পাওয়াগেছে।
আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মোঃ জুলফিকার আলী ভূট্রো জানান, ওই দিন রাতে চৌরঙ্গী বাজার এলাকায় নির্বাচনী প্রচারণা শেষে বুদারু বর্মন বাড়ী ফিরছিলেন। এ সময় চেয়ারম্যান প্রার্থী মোশাররফ হোসেনের কর্মীরা তার উপর হামলা চালায়। তারা বুদারুর ডান পায়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে। এরপর তার বাড়ীতে অগ্নিসংযোগ করে ও অফিস ভাংচুর করে। ঘটনার পর ওই এলাকার চৌকিদার মজিদুল ইসলাম বুদারু বর্মনকে উদ্ধার করে হাসপাাতালে ভর্তি করে দেয়।এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন