ঢাকা, বুধবার, ১২ মে ২০২১, ২৯ বৈশাখ ১৪২৮, ২৯ রমজান ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

মেলায় প্রাণের জোয়ার গতকাল ছিল গ্রন্থাগার দিবস

| প্রকাশের সময় : ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

এহসান আব্দুল্লাহ : ধীরে ধীরে ভীড় বাড়ছে বইমেলায়। বিকেল থেকে শুরু হওয়া বইপ্রেমীদের মৃদু ঢেউ সন্ধ্যার পরেই রুপ নিয়েছে হালকা জোয়ারে। স্টলগুলোতে ভীড় ছিল চোখে পড়ার মতো।
গতকালের বইমেলায় তরুণদের ভীড়ই লক্ষ্য করা গেছে বেশি। যার মধ্যে বেশিরভাগই স্কুল-কলেজ পড়–য়া শিক্ষার্থী। অনেকেই ক্লাস শেষ করার পর ইউনিফর্মেই চলে এসেছেন মেলায়। এইসব তরুণদের সাথে কথা বলে জানা যায় তারা বেশিরভাগই মেলায় এসেছেন নতুন প্রকাশিত হওয়া বইয়ের খোজে। নতুন বইয়ের ধারণা টা তাদের কাছে কিরকম জানতে চাইলে তারা বলেন, সেক্ষেত্রে নতুন লেখকের বই এবং জনপ্রিয় লেখকের নতুন বই দুইটাকেই তারা আগ্রহ নিয়ে দেখছেন। তরুণদের মাঝে নতুন কি ধরণের বইয়ের প্রতি আগ্রহ বেশি তা জানতে চাইলে বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ রাইফেলস পাবলিক স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থী আরিফ আনোয়ার বলেন, আমরা মূলত উপন্যাস বা নুতন গল্পের বইয়ের খোজ করছি। এর মাঝে উপন্যাসের বইতেই আগ্রহ বেশি।
এছাড়াও গতকাল নতুন লেখকদের বইয়ের কাটতিও ভালো লক্ষ্য করা গেছে বলে জানান বিক্রেতারা। নুতন লেখকদের বইয়ের কাটতির ক্ষেত্রে জানতে চাইলে বিক্রেতারা বলেন, বর্তমানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যারা বইয়ের প্রচারণা করছেন তাদের বই মূলত বেশি চলছে। এছাড়াও ফেসবুকের বিভিন্ন গ্রæপে বুক রিভিউ দেখেও ক্রেতারা বই কিনছেন বলে জানান তারা।
এরমাঝে গতকাল প্রথমবারের মতো পালিত হলো জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস। ২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবর মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রতিবছর ৫ ফেব্রুয়ারি জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস উদযাপনের সিদ্ধান্ত হয়। পরে তা পরিপত্র আকারে জারি হয়। ১৯৫৪ সালের ৫ ফেব্রæয়ারি ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় পাঠাগারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। ১৯৭৮ সালে ৬ জানুয়ারি জাতীয় গণগ্রন্থাগার ভবনের উদ্বোধন করা হয়, ১৯৮৩ সালে তা অধিদপ্তরের স্বীকৃতি পায়।
প্রথমবারের মতো পালিত হওয়া গ্রন্থাগার দিবস নিয়ে গ্রন্থমেলায় আসা তরুণ-তরুণীদের ভাবনা জানতে চাইলে বেসরকারী বিশ^বিদ্যালয় সাউথ ইস্ট এর শিক্ষার্থী মেহজাবিন খান অধরা বলেন, আমাদের দেশে পর্যাপ্ত গণগ্রন্থাগারের অভাব রয়েছে। এছাড়াও বিশ^সাহিত্য কেন্দ্রের মতো করে গণগ্রন্থাগার অধিদপ্তর ও যদি ভ্রাম্যমাণ গন্থাগারের সুবিধা চালু করে তাহলে সেটা প্রন্তিক পাঠকদের কাছে আরো জনপ্রিয় হতে পারে।
মেলায় গতকাল নতুন বই এসেছে ১১৬টি।
গতকাল বিকেল ৪:০০টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ‘আ জ ম তকীয়ূল্লাহ : জীবন ও কর্ম’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আলী ইমাম। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন রতন সিদ্দিকী ও শান্তা মারিয়া। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ভাষাসংগ্রামী আহমদ রফিক। আলোচকবৃন্দ বলেন, ভাষাসংগ্রামী প্রগতিশীল রাজনীতিক এজেএম তকীয়ূল্লাহ বাংলাদেশের ইতিহাসে একটি অনন্য নাম। মহান রাষ্ট্রভাষা আন্দোলনে তাঁর বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা জাতি চিরকাল শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণে রাখবে। তকীয়ূল্লাহ গৃহীত ১৯৪৮ কালপর্বের ভাষা আন্দোলনের আলোকচিত্রগুচ্ছ প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে রাষ্ট্রভাষা আন্দোলনে চেতনাকে প্রসারিত করতে ভূমিকা রেখে চলেছে। তারা বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশ যে বাংলা বর্ষপঞ্জি অনুসরণ কররে তার সংস্কারেও এজেএম তকীয়ূল্লাহ পালন করেছেন অগ্রণী ভূমিকা।
আজ বিকেল ৪:০০টা গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে ‘অশ্বিনীকুমার দত্ত : জীবন ও কর্ম’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন বদিউর রহমান। আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন আসাদ চৌধুরী, সৈয়দ বদরুল আহ্সান, ড. জালাল আহমেদ এবং মো. মনিরুজ্জামান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. হারুন-অর-রশিদ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন