ঢাকা, মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০১৯, ০১ শ্রাবণ ১৪২৬, ১২ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

খেলাধুলা

আশরাফুলের দিনে নায়ক শাহরিয়ার

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩০ মার্চ, ২০১৮, ১২:০০ এএম

দুই দলের লড়াইয়েল ভিতরের লড়াইটা যেন তাদে দু’জনের। প্রাথমিক পর্বে ৫ উইকেটে জিতেছিল কলাবাগান। সেই ম্যাচে ৯৯ রানে আউট হয়েছিলেন অগ্রণী ব্যাংকের ওপেনার শাহরিয়ার নাফীস। অপরাজিত ১০২ রানে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছেড়েছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। আবার সেঞ্চুরি করলেন এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান। তবে এবার হেরে গেছে তার দল। শাহরিয়ারের সেঞ্চুরিতে প্রাথমিক পর্বে হারের প্রতিশোধ নিল অগ্রণী ব্যাংক। ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের রেলিগেশন লিগের প্রথম ম্যাচে ৬ উইকেটে জিতেছে অগ্রণী ব্যাংক। ২৪৭ রানের লক্ষ্য ২৫ বল হাতে রেখে পেরিয়ে গেছে তারা।
গতকাল বিকেএসপির চার নম্বর মাঠে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি কলাবাগানের। চতুর্দশ ওভারে ৩৬ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলে দলটি। ১৬৩ রানের জুটিতে দলকে এগিয়ে নেন আশরাফুল ও তাইবুর রহমান। ১০ চারে ১১৭ বলে ৮২ রান করা তাইবুরকে ফিরিয়ে ২৯.১ ওভার স্থায়ী জুটি ভাঙেন সৌম্য সরকার। শেষের দিকে ১৩ বলে অপরাজিত ২৭ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন রিয়াজুল হুদা। লিগে চতুর্থ সেঞ্চুরি পাওয়া আশরাফুল অপরাজিত থাকেন ১০৩ রানে। তার ১৩৭ বলের ইনিংসটি গড়া ৮ চার ও দুই ছক্কায়। লিগে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরি তারই। তিন সেঞ্চুরি করে আশরাফুলের পেছনে জাতীয় ক্রিকেট দলের লিটন দাস। টানা দুই সেঞ্চুরির আগে অগ্রণীর বিপক্ষেই তিনি একটি সেঞ্চুরি করেছিলেন। প্রথম সেঞ্চুরিটি ছিল প্রাইম দোলেশ্বরের বিপক্ষে। ৪৬ রানে ২ উইকেট নিয়ে অগ্রণী ব্যাংকের সেরা বোলার সৌম্য।
রান তাড়ায় শাহরিয়ারের সঙ্গে ৪৫ রানের জুটি গড়ে ফিরে যান সৌম্য। বাঁহাতি এই ওপেনার ১৯ বলে দুটি করে ছক্কা-চারে করেন ২৪। দ্বিতীয় উইকেটে সালমান হোসেনের সঙ্গে শাহরিয়ারের ১৭২ রানের দারুণ জুটি জয়ের পথে নিয়ে যায় অগ্রণী ব্যাংককে। লিগে নিজের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি ছুঁয়ে ফিরেন শাহরিয়ার। ১৪২ বলে খেলা তার ১০৯ রানের ইনিংসে ১৩টি চারের পাশে দুটি ছক্কা। দ্রুত রান তোলা সালমানকে বিদায় করেন নাহিদ হাসান। ৯৩ বলে খেলা সালমানের ৮৩ রানের ইনিংস গড়া ১১ চারে। শাহরিয়ারের পর ধীমান ঘোষের উইকেটও তুলে নেন আশরাফুল। জাহিদ জাভেদকে নিয়ে বাকিটা সহজেই সারেন শামসুল ইসলাম।
এই জয়ে ১১ ম্যাচে অগ্রণী ব্যাংকের পয়েন্ট হল ১০। এবারের আসরে দশম হারের স্বাদ পাওয়া তলানির দল কলাবাগানের পয়েন্ট ৪। তিন দলের রেলিগেশন লিগের আরেক দল ব্রাদার্স ইউনিয়নের পয়েন্ট ৮। রেলিগেশন লিগের সেরা দল টিকে থাকবে প্রিমিয়ার লিগে। বাকি দুই দল নেমে যাবে প্রথম বিভাগে।
কলাবাগান : ৫০ ওভারে ২৪৬/৫ (আশরাফুল ১০৩*, তাইবুর ৮২, রিয়াজুল ২৭*; শফিউল ১/৪৪, আল আমিন ১/৪৭, রাজ্জাক ১/২৪, সৌম্য ২/৪৬)। অগ্রণী ব্যাংক : ৪৫.৫ ওভারে ২৫০/৪ (শাহরিয়ার ১০৯, সৌম্য ২৪, সালমান ৮৩*; নাহিদ ২/৫২, আশরাফুল ২/৩৮)। ফল : অগ্রণী ব্যাংক ৬ উইকেটে জয়ী। ম্যাচ সেরা : শাহরিয়ার নাফীস (অগ্রণী ব্যাংক)।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন