ঢাকা, সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৮ আশ্বিন ১৪২৬, ২৩ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

খেলাধুলা

হংকংকেও উড়িয়ে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২ এপ্রিল, ২০১৮, ১২:০০ এএম

আমন্ত্রণমূলক অনূর্ধ্ব-১৫ ফুটবল টুর্নামেন্টের আয়োজন করেছিল হংকং। চার দলের দলের সেই টুর্নামেন্টে আমন্ত্রিত দল ছিল বাংলাদেশও। যেখানে প্রতিপক্ষদের নিয়ে শ্রেফ ‘খেলা করে’ শিরোপা ছিনিয়ে এনেছে বাংলাদেশের কিশোরীরা। ঘরের মাঠে অপরাজিত সাফ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর এবার দেশের জন্য আরেক সুখস্মৃতি বয়ে আনলো তহুরা, শামছুন্নাহারা, আনুচিংরা।
প্রথম ম্যাচে মালায়েশিয়াকে ১০-১ গোলে উড়িয়ে দিয়ে শুরু। পরের ম্যাচে ইরানের জালে দেয় আট (৮-১) গোল। গতকাল শেষ ম্যাচে স্বাগতিক হংকংকেও ৬-০ গোলে ভাসিয়ে শিরোপা ছিনিয়ে নেয় বাংলাদেশ। ইরানের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করা তহুরা কালও করেছেন হ্যাটট্রিক। একটি করে গোল করেন সাজেদা, শামছুন্নাহার ও আনুচিং মোগিনি। প্রথম ম্যাচেও জোড়া গোল করেছিলেন তহুরা।
টুর্নামেন্টে অংশ নেয়া চার দলের মধ্যে বিশ্ব নারী ফুটবল র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল সবার নীচে। ২২ ধাপ এগিয়ে মালায়েশিয়া, ইরান এগিয়ে ৪৪ ধাপ। ৩১ ধাপ এগিয়ে হংকং। কিন্তু র‌্যাঙ্কিংকে তোয়াক্কা করতে বয়েই গেছে মারিয়া মান্দার দলের। সব বাধা ডিঙিয়ে দেশের গৌরব বয়ে আনাই যেন তাদের একমাত্র লক্ষ্য।
এমন সাফল্য এখন লাল সবুজের কিশোরীদের কাছে অনেকটাই স্বাভাবীক হয়ে গেছে। এর আগে এএফসি আঞ্চলিক টুর্নামেন্টে দুবার শিরোপা জিতেছে তারা। প্রথমে ২০১৫ সালে নেপাল থেকে, পরের বছর তাজিকিস্তান থেকেও এসেছিল একই সুসংবাদ। গেল ডিসেম্বরে সাফ শিরোপা জয়ের পর এবার এলো আরো বড় আন্তর্জাতিক পরিমন্ডল থেকে কোন শিরোপা। অধিনায়ক মারিয়া মান্দার কন্ঠেও তাই অনেকটা পেশাদারিত্ব মেশানো উচ্ছ¡াস, ‘প্রথমবার মত হংকংয়ের মত আন্তর্জাতিক এক মাঠ থেকে আন্তর্জাতিক কোন শিরোপা জিততে পেরে আমরা খুশি। দর্শক-ভক্তরা যারা আমাদের জন্য শুভকামনা জানিয়েছিলেন তাদের সবাইকে ধন্যবাদ।’ ৮ গোল করে আসরের সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার পাওয়া তাহুরাও উচ্ছাসিত। জয়ের জন্য সবাই সর্বোচ্চটা দিয়ে চেষ্টা করেছে বলে জানান তিনি। শামছুন্নাহারও উচ্ছাসিত আসরের সবচেয়ে মূল্যবান খেলোয়াড় নির্বাচিত হওয়ায়।
এই দলকে নিয়ে গর্বিত কোচ গোলাম রব্বানি ছোটন, ‘আমাদের দলের সার্বিক পারফর্ম্যান্সে আমি খুশি। আমরা ভবিষ্যতে এই ধারা ধরে রাখার চেষ্টা করব। দীর্ঘ দিনের কঠোর পরিশ্রম, ভালো ফিটনেস ও অভিজ্ঞতা থাকার কারণে এমন অসাধারণ খেলা উপহার দিতে পেরেছে আমাদের মেয়েরা।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন