ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

শিবচরে ইজিবাইক চালককে আটকে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগ

শিবচর (মাদারীপুর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১০ এপ্রিল, ২০১৮, ১২:০০ এএম

মাদারীপুরের শিবচরে নেশার জন্য দাবীকৃত টাকা না দেওয়ায় এক ইজিবাইক চালককে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে আটকে রেখে তার বাড়িতে ঢুকে দুই বখাটে তার স্ত্রীকে রাতভর গনধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনার পর থেকে স্থানীয়ভাবে শালিশের নামে পাঁচ দিন অতিবাহিত হওয়ার পরও ধর্ষকদের বিচার না হওয়ায় পরিবারটি থানায় মামলা দিলে গনধোলাই আক্রান্ত ঘটনার মূলহোতা ধর্ষক মিজানকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।
পুলিশ ও ভিকটিক পরিবার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মাদবরচর ইউনিয়নে মিজান, রাশেদ, কামাল, মনিরসহ ওরা চার জন এলাকার চিহিৃত মাদকসেবী ও ব্যবসায়ী। ওরা এলাকায় বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত। গত ৩ মাচ রাত আনুমানিক ১১ টায় ছলু বেপারীর কান্দি গ্রামের এক দরিদ্র ইজি বাইক চালক কর্মস্থল থেকে বাড়ী ফেরার পথে স্থানীয় ইউসুফ হাওলাদারের বাড়ীর কাছে পৌছলে এলাকার চিহিৃত মাদকসেবী বখাটে মিজান, রাশেদ, মনির ও কামালসহ চার যুবক তার গতিরোধ করে। ইজিবাইক চালকের কাছে ওই চার মাদকসেবী নেশার জন্য বিশ হাজার টাকা দাবি করে। তাদের দাবিকৃত টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে মাদকসেবী চার যুবক ইজিবাইক চালককে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে মূলহোতা মিজানের বাড়িতে নিয়ে মারধর করে রশি দিয়ে বেঁধে রাখে। রাত আনুমানিক ১ টার দিক মিজান ও রাশেদ ওই ইজিবাইক চালকের বাড়িতে ঢুকে তার স্ত্রীকে ডাকে। দুই সন্তানের জননী তার স্ত্রী দরজা খুললে মিজান ও রাশেদ ঘরের ভিতরে প্রবেশ করে তার দুই শিশু ছেলের গলায় ছুরি ধরে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে রাতভর গৃহবধূকে (২৪) পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এ ঘটনা জানার পর এলাকাবাসী এক হয়ে ধর্ষক মিজানকে গনধোলাই দেয়। এসময় স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ প্রভাবশালীরা অসহায় পরিবারটিকে বিচারের আশ^াস দিয়ে মিজানকে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। তবে ঘটনার পাঁচদিন অতিবাহিত হলেও স্থানীয়রা ধর্ষকদের কোন বিচার না করায় গত রোববার রাতে ধর্ষিতা গৃহবধূ বাদী হয়ে মিজান, রাশেদ, কামাল ও মনিরকে আসামী করে শিবচর থানায় মামলা দায়ের করে। রাতেই পুলিশ অভিযান চালিয়ে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চিকিৎসাধীন অবস্থায় মিজানকে গ্রেফতার করে।
ধর্ষিতা গৃহবধূ বলেন, আমার স্বামীকে কেবা কারা আটকে রেখেছে বলে ওরা আমাকে দিয়ে দরজা খুলে ঘরের ভিতরে ঢুকে আমার দুই বছরের শিশুর গলায় ছুরি ধরে আমাকে রাতভর পালাক্রমে ধর্ষণ করেছে। আমি ওদের ফাঁসি চাই। ইজি বাইক চালক বলেন, ওরা এলাকার চিহিৃত মাদকসেবী। নেশার টাকার জন্য ওরা আমাকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে রাতভর আটকে রেখে আমার ঘরে ঢুকে আমার স্ত্রীকে ধর্ষণ করেছে। স্থানীয় মাদবরদের বিচারের আশ^াসে থানায় মামলা দিতে দেরি হয়েছে। ধর্ষক মিজান বলেন, ওই গৃহবধূর স্বামীকে আটকে রেখে তার বাড়িতে আমি ও রাশেদ গিয়েছিলাম। তবে গৃহবধূকে আমি না রাশেদ ধর্ষণ করেছে।
শিবচর থানার অফিসার ইনচার্জ জাকির হোসেন বলেন, এ ব্যাপারে মামলা হয়েছে। মূলহোতাকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গ্রেফতার করা হয়েছে। ভুক্তভোগি নারীকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য মাদারীপুর পাঠানো হয়েছে। বাকি আসামীদের ধরতে অভিযান চলছে।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন