ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২ ফাল্গুন ১৪২৬, ৩০ জামাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

খেলাধুলা

তাসকিন-সৌম্যদের পাশে মাশরাফি

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ এপ্রিল, ২০১৮, ১২:০০ এএম

নিজের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে অনেক চড়াই-উৎরাই দেখেছেন। মাঠের পারফরম্যান্সের সঙ্গে নিজের ইনজুরির লড়াইটাও চালিয়ে গেছেন সমানতালে। মাশরাফি বিন মুর্তজা তাই জানেন চুক্তি হারানোর বেদনা। যে কষ্টের মধ্য দিয়ে সময় কাটছে আগামী মৌসুমে বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ পড়া ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, তাসকিন আহমেদ ও মোসাদ্দেক হোসেন, কামরুল ইসলাম রাব্বীদের। দুঃসময়ে এই ক্রিকেটারদের পাশে দাঁড়িয়েছেন বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক। তাদের সব রকম সমর্থন দেওয়ার কথা জানিয়েছেন মাশরাফি। তারা যেন আবারও ছন্দ ফিরে পান, সব সহায়তাই দলের সিনিয়র খেলোয়াড়েরা করবেন বলেও আশা প্রকাশ করেন সফল এই দলনেতা।
গত বুধবার পরিচালনা পর্ষদের সভায় নতুন কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকা ক্রিকেটারদের নাম ঘোষণা করা হয়। আগের বছর ১৬ জন মূল চুক্তিতে থাকলেও এবার সেটা কমিয়ে দশজনে আনা হয়েছে। পরে রুকি শ্রেণিতে নেওয়া হবে উদীয়মান তিনজন। পারফরম্যান্সের অবনতিতে নতুন চুক্তি থেকে বাদ পড়েন তাসকিন, সৌম্য, মোসাদ্দেক, সাব্বির, ইমরুল ও রাব্বী। তার একদিন গতকাল দুপুরে রাজধানীর এক হোটেলে আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইপিডিসির সঙ্গে নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের এক চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে একসঙ্গে ছয় ক্রিকেটারের বাদ পড়া নিয়ে মাশরাফির কাছে তার প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হয়েছিল। বিসিবির চুক্তিতে থাকা নিয়ে মাশরাফি প্রথমে নিজের ভাবনার কথাটাই বললেন, ‘প্রথমত, যত দিন ধরে খেলছি, বেতনের ভেতর আছি কি নেই, এসব নিয়ে ভাবিনি। আমার কাছে এটা কখনোই পরিষ্কার নয়। আমার সব সময়ই প্যাশন ছিল ক্রিকেট খেলা। ওই প্যাশন নিয়ে ক্রিকেট খেলছি।’
নানান বাধ্যবাধকতার কারণে বেতন কাঠামো নিয়ে ওইভাবে মন্তব্য করতে না চাইলেও মাশরাফি মনে করিয়ে দিলেন মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে উঠা আশা তরুণদের ক্রিকেটই একমাত্র রুটিরুজি, ‘দেশের বেশির ভাগ খেলোয়াড় এসেছে মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে। বেতন বা খেলার বিরাট প্রভাব থাকে তাদের পরিবারের ওপর। এটা অস্বীকার করার সুযোগ নেই। তবে সিদ্ধান্তটা বোর্ডের। কজনকে বেতন দেব না দেব এটা তাদের সিদ্ধান্ত।’ একই সময়ে তাকে ততটুকু আবেগ দিয়েও খেলতে হবে সেটিও মনে করিয়ে দিলেন ম্যাশ, ‘আমার বিশ্বাস, সবাই সেভাবে খেলছে। পারফরম্যান্স সব সময়ই একই গ্রাফে চলে না। কারও কখনো ভালো যায়, কারও কখনো খারাপ। বেতনের বিষয়টা নির্ভর করে পারফরম্যান্সের ওপর, এটাও সত্য।’
ইমরুল আর রাব্বীর বাদ পড়া অনেকটা অনুমিত হলেও বাকিদের বাদ পড়া এসেছে ধাক্কা হয়ে। মাশরাফি প্রতিভাবান তরুণ ক্রিকেটারদের খারাপ সময়ে পাশে থাকার পরিষ্কার বার্তা দেন, ‘তারা বাংলাদেশের সত্যিকারের ভবিষ্যৎ, তাদের সমর্থন করা আমাদের প্রত্যেকের এখন দায়িত্ব।আমার জায়গা থেকে আমি পিছু পা হব না। যতপ্রকার সমর্থন দেওয়ার তাদের আমি দেব।’
নিজেদের সময়ের কথা তুলনাতেও সাব্বির-সৌম্যদের পক্ষে ব্যাট করলেন ১৬ বছর ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা মাশরাফি, ‘আমার বিশ্বাস ধারাবাহিকতা বাড়িয়ে যদি ফর্মে ফিরে আসে দীর্ঘদিন বাংলাদেশকে সার্ভিস দিতে পারবে। এক সময় সাকিব-তামিম-আমরা এমনই ছিলাম। বলতে পারেন, প্রতিদ্ব›িদ্বতা এই লেভেলের না থাকায় আমরা টিকে গেছি। তাদের কাছে প্রত্যাশাটা অনেক। সে জায়গা থেকে তারা খারাপ করলে সোশ্যাল মিডিয়াও এত সোচ্চার একটা প্রভাব চলে আসে।’
বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ পড়া মানে জাতীয় দলের দরজা বন্ধ হয়ে যাওয়া নয়। চুক্তির বাইরে থেকেও খেলা যায় আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। সৌম্য, তাসকিন, সাব্বিরদের সামনে সে সুযোগ থাকছে। এই সুযোগ কাজে লাগাতে হলে তাদের সামনে একটা পথই খোলা, ধারাবাহিক ভালো খেলা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন