মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৪ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

ইসলামী প্রশ্নোত্তর

প্রশ্ন : আশারায়ে মুবাশশরাহ অর্থাৎ বেহেশতের সুসংবাদপ্রাপ্ত ব্যক্তির কে কখন কি কারণে এ সুসংবাদ পেলেন? জানালে খুশি হব।

মোহাম্মদ জুবায়ের
ই-মেইল থেকে

প্রকাশের সময় : ২০ আগস্ট, ২০১৮, ১২:১৮ এএম

উত্তর : আমাদের বুঝতে হবে যে, প্রিয় নবীজি সা. এর সাহাবীগণের সকলেই জান্নাতের সুসংবাদপ্রাপ্ত। পবিত্র কোরআনে এ বিষয়ে সুসংবাদ রয়েছে। এদের মধ্যে হযরত আবু বকর রা., হযরত ওমর রা., হযরত ওসমান রা., হযরত আলী রা., হযরত সা’দ ইবনে আবী ওয়াক্কাস রা., হযরত আবদুর রহমান ইবনে আউফ রা., প্রমুখ ১০ জন সাহাবী সম্পর্কে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন উপলক্ষ্যে এ মর্মে সুসংবাদ দিয়েছিলেন যে, এরা জান্নাতী। সে সব উপলক্ষ্যের বিবরণ দীর্ঘ আলোচনা সাপেক্ষ। শুধু এতটুকু বলা যায় যে, এদের সম্পর্কে প্রি নবীজি সা. যেহেতু সরাসরি নাম উচ্চারণ করে একথা বলেছেন যে, অমুক জান্নাতী, আর এরূপ সাহাবীর সংখ্যা যেহেতু ১০ জন, এজন্য এদেরকে একসাথে আশারায়ে মুবাশশারাহ বা জান্নাতের সুসংবাদপ্রাপ্ত ১০ জন বলে অভিহিত করা হয়।

সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতাওয়া বিশ্বকোষ।
উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (2)
MD MOHI UDDIN ২৪ আগস্ট, ২০১৮, ৮:৪৮ পিএম says : 0
Total Reply(0)
মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান। ২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:৩২ পিএম says : 0
প্রশ্নঃ আমার সবচেয়ে প্রিয় একমাত্র সন্তান মারা গেছে অল্প কিছুদিন আগে যার কারনে আমি মানসিক এবং শারীরিকভাবে ভেঙে পড়েছি, নিয়মিত কি আমল করলে আমার সন্তান ভাল থাকবে,পরকালে আমি আবার তার সাথে মিলিত হতে পারবো এবং স্বপ্নে সন্তানকে দেখার কোন বিশেষ আমল আছে কি না ? ২য়তঃ প্রতিদিন যে, কোন সময় একবার তার কবর জিয়ারতের মধ্যে কোন বিশেষ ফজিলত আছে কি না ? জানালে উপকৃত হব।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন