ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

মহানগর

সিম নিবন্ধনের অগ্রগতি নিয়ে তারানা হালিমের অসন্তোষ ফেব্রুয়ারী থেকে হ্যান্ডসেট নিবন্ধন

প্রকাশের সময় : ২৭ জানুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : সিম-রিমের বায়োমেট্রিক (আঙুলের ছাপ) পদ্ধতিতে নিবন্ধনে মোবাইল অপারেটররা সহযোগিতা করছে না বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। তিনি বলেছেন, আমার কাছে ৪০০ এর মতো গ্রাহকের অভিযোগ এসেছে। যারা নিবন্ধন করতে গিয়ে ফিরে এসেছেন। এজন্য আগামীকাল মোবাইল অপারেটরের সিইও’দের (প্রধান নির্বাহী) নিয়ে আলোচনায়ও বসছেন তিনি। গতকাল (মঙ্গলবার) সচিবালয়ে টেলিকম রিপোর্টার্স নেটওয়ার্ক অব বাংলাদেশের (টিআরএনবি) নববির্বাচিত কমিটি ও এর সদস্যদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ ও শুভেচ্ছা বিনিময় উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। সিম-রিম নিবন্ধন নিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমি চাই প্রতিটি গ্রাহক সন্তুষ্ট থাকবে। একজন গ্রাহকও যেনো অসন্তুষ্ট না হয়। কিন্তু অপারেটররা নিবন্ধন প্রক্রিয়ায় শতভাগ সহযোগিতা করছে না। অনেক গ্রাহক নিবন্ধন করতে গিয়ে ফিরে আসছে। তাদের বলা হচ্ছে পরে আসার জন্য। ৪০০ এর বেশি গ্রাহকের অভিযোগ তার কাছে এসেছে জানিয়ে তিনি বলেন, আমার কাছে ৪০০ এর বেশি গ্রাহক অভিযোগ করেছে। এজন্য বৃহস্পতিবার সকল অপারেটরের সিইওদের ডেকেছি। তাদের সাথে এ বিষয়ে আলোচনা হবে। বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন কাজের অগ্রগতির বিষয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে তারানা হালিম বলেন, নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই এই কাজ শেষ করতে হবে। এটি এখন আমাদের বড় চ্যালেঞ্জ। কারণ এটি করতে পারলে অবৈধ ভিওআইপি, অনৈতিক ও সন্ত্রাসী কাজে সিমের ব্যবহার হ্রাস পাবে।
সিম-রিম নিবন্ধনের পর মোবাইল হ্যান্ডসেট নিবন্ধনের কাজও শুরু হবে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, আগামী ফেব্রæয়ারি থেকে গ্রাহকের কাছে থাকা মোবাইল হ্যান্ডসেট নিবন্ধনের প্রক্রিয়া শুরু হবে। মোবাইল হ্যান্ডসেটের ইন্টারন্যাশনাল মোবাইল ইক্যুইপমেন্ট আইডেনটিটি (আইএমইআই) নম্বরের জন্য একটি ডেটাবেইজ করা হচ্ছে। বাংলাদেশ মোবাইল ফোন ইম্পোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনও (বিএমপিআইএ) তাদের নিজস্ব ডেটাবেইজ করছে। আগামী ৬ ফেব্রæয়ারি তাদের সফটওয়্যার চালু হবে। বেসরকারি উদ্যোগে চালু হলেও এ ডেটাবেইজ বিটিআরসি সংরক্ষণ করবে। বৈধপথে আসা হ্যান্ডসেটগুলোর আইএমইআই নম্বর সেখানে থাকবে। এ পদ্ধতি চালু হওয়ার পর এক সময় অবৈধ হ্যান্ডসেটগুলো বন্ধ করে দেয়া হবে বলে তারানা হালিম জানান। সিম নিবন্ধনে বায়োমেট্রিক পদ্ধতি নিবন্ধনের কাজ শেষ হলে সবার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যাবে। কোনো অবৈধ বা নকল আইএমইআই এর হ্যান্ডসেট যেন চালু না থাকে সে বিষয়েও উদ্যোগ নেবে বিটিআরসি। অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব ফয়জুর রহমান চৌধুরী, টিআরএনবি সভাপতি রাশেদ মেহেদি, সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমদসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন