ঢাকা, সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৮ আশ্বিন ১৪২৬, ২৩ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

মীরসরাইয়ে খাল দখল করে মাটি বিক্রির ধূম

মীরসরাই সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১২ জানুয়ারি, ২০১৯, ৩:০০ পিএম

মীরসরাই উপজেলার অর্থনৈতিক জোন এলাকায় প্রসিদ্ধ বিভিন্ন খাল দখল করে মাটি বিক্রির ধূম অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসব খাল এতোটাই ঝুকিপূর্ণভাবে কাটা হচ্ছে যা কৃষি জমি ও পতিত হচ্ছে ঝুঁকির মুখে। আবার খালগুলোর তদারকি কর্তৃপক্ষ ও তাদের খাল কেউ কেটে ফেলছে তা অবহিত নয়। তবে শীঘ্রই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে জানান পাউবো কর্তৃপক্ষ।
একাধিক অভিযোগের ভিত্তিতে গতকাল শনিবার সরেজমিনে দেখা গেছে মীরসরাই উপজেলার ইছাখালী ইউনিয়নের গুইট্টার খাল এর দুপাশে রয়েছে তিন ফসলি ব্যাপক কৃষি জমি। কয়েকটি ড্রেজার উক্ত সরকারি মজা খাল থেকে মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে। ড্রেজারের দায়িত্বে থাকা জনৈক বাবু ( ২৮) এর কাছে এই মাটি কে কাটছে জানতে চাইলে সালেক নামক স্থানীয় একটি সিন্ডিকেট মাটি কেটে পার্শ্ববর্তী ইকোনোমিক জোন এর জয় কনষ্ট্রাকশন এর কাছে বিক্রয় করা হচ্ছে। এই বিষয়ে উক্ত অভিযুক্ত সালেক ( ৩২) এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন এইসব জায়গার মাটি তো আমরা আরেকজন থেকে থেকে কিনেছি। তবে জায়গা সরকারি কিনা তা চূড়ান্তভাবে বলতে পারছেন না বলেন। মীরসরাইয়ের সহকারী কমিশনার ভূমি কায়সার খসরু এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন এই খাল গুলো পাউবোর অধীনে। উনারা আইনী উদ্যোগ নিয়ে আমরা সহযোগিতা করবো। পাউবোর চট্টগ্রামের নির্বাহী প্রকৌশলী জুলফিকার তারেক এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন বিষয়টি আমি অবহিত ছিলাম। তিনি বলেন স্থানীয় প্রশাসনের সাথে কথা বলে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
একদিকে সরকারি জমি থেকে এভাবে অনুমতি বিহীন ভাবে মাটি কেটে একদিকে যেমন সরকার রাজস্ব হারাচ্ছে, অপরদিকে অপরিকল্পিত ভাবে মাটি কেটে গভীর খাদ সৃষ্টির কারণে পার্শ্ববর্তী কৃষি জমিগুলো খাদে পতিত হবার হুমকির মুখে। কিন্তু প্রভাবশালী এইসব সিন্ডিকেট এর বিরুদ্ধে ভয়ে মুখ খুলতে পারছে না কেউ। শুধু সরকারি জায়গা থেকে জোরপূর্বক মাটি উত্তোলনই নয়। পার্শ্ববর্তী ডাউরখালী খালে সম্প্রতি পাউবো কর্তৃক খাল কাটার মাটি ও চুরি করে অর্থনৈতিক জোন এলাকায় বিক্রি করেছে প্রভাবশালী সিন্ডিকেট। অর্থনৈতিক জোন এলাকায় সম্প্রতি কর্মচাঞ্চল্য বৃদ্ধি হবার পর সেখানে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান স্থাপনা নির্মাণের তৎপর হয়। আর এই সময়ে স্ব স্ব স্থাপনার জন্য মাটির প্রয়োজনীয়তা নিরসনে শুরু হয় কিছু প্রভাবশালী মহলের জবরদখল তৎপরতা। সচেতন মহল মনে করেন অর্থনৈতিক জোন এর পরিবেশগত নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ও এইসব খাল সুরক্ষা জরুরী। পাশাপাশি কৃষকদের তিন ফসলি জমি ও রক্ষা করতে হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন