ঢাকা, শুক্রবার , ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

পশ্চিম তীরে বসতি স্থাপন নিয়ে মুন-নেতানিয়াহু বাদানুবাদ

প্রকাশের সময় : ২৮ জানুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : নতুন করে বসতি স্থাপনের ইসরাইলি সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেন জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করে নেতানিয়াহু বলেন, বসতি স্থাপনকে জাতিসংঘ প্রধান সমালোচনা করার অর্থই হলো সন্ত্রাসবাদকে উৎসাহিত করা। গত মঙ্গলবার নিউইয়র্কে নিরাপত্তা পরিষদের মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক আলোচনায় মুন নতুন করে অধিকৃত পশ্চিম তীরে আরো ১৫০টি ইহুদি বসতি স্থাপনের পরিকল্পনার সমালোচনা করেন। বান কি মুন বলেন, এ ধরনের উস্কানিমূলক সিদ্ধান্ত দখলকারীর সংখ্যা বৃদ্ধি করবে, এ অঞ্চলে উত্তেজনা আরো বৃদ্ধি পাবে এবং শান্তি রোডম্যাপের অগ্রযাত্রা ব্যাহত করবে। তিনি বলেন, বসতি স্থাপন চালিয়ে যাওয়া ফিলিস্তিনি জনগণ ও বিশ্ব সম্প্রদায়কে প্রকাশ্যে অবমাননার শামিল। এই সিদ্ধান্ত ইসরাইলের প্রতিশ্রুত দুই দেশ সমাধানকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। মুন আরো বলেন, ইসরাইলের সিদ্ধান্তে ফিলিস্তিনিদের মধ্যে হতাশা বাড়বে এবং দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ করাই মানুষের স্বাভাবিক বৈশিষ্ট্য। গত মঙ্গলবার রাতে এক বিবৃতিতে নেতানিয়াহু ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বলেন, জাতিসংঘ মহাসচিবের মন্তব্য সন্ত্রাসবাদকে উৎসাহিত করছে এবং আরো বলেন, জাতিসংঘ অনেক আগেই তার নিরপেক্ষতা ও নৈতিকতা হারিয়েছে। সন্ত্রাসবাদী রাষ্ট্র ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রীর দাবি, সন্ত্রাসবাদ কখনো ন্যায় হতে পারে না। ফিলিস্তিনি প্রতিরোধকারীদের সন্ত্রাসী দাবি করে নেতানিয়াহু বলেন, তারা কোনো দেশ গঠন করতে চায় না বরং তারা একটি দেশকে ধ্বংস করতে চায় এবং তারা এটি গর্বের সাথে ঘোষণা করে। ইহুদি দেশটির প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, তারা (ফিলিস্তিনি) ইহুদিদেরকে যেখানে পাওয়া যায় সেখানেই হত্যা করতে চায়। তারা শান্তির জন্য বা মানবাধিকারের জন্য হত্যা করতে চায় না। নতুন করে ইসরাইলি বসতি স্থাপনের প্রতিবাদে গত বছরের ১ অক্টোবর থেকে কয়েকমাস ব্যাপী সংঘর্ষে ইসরাইলি বাহিনীর হামলায় পথচারী, নারী ও শিশুসহ কমপক্ষে ১৬৫ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। অন্যদিকে, ফিলিস্তিনিদের হামলায় ২৫ ইসরাইলি মারা গেছে।
অপর এক খবরে বলা হয়, জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুনের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসে উসকানি দেয়ার অভিযোগ এনেছেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফিলিস্তিনিদের অধিকার রক্ষার লড়াই নিয়েই বানের এক বক্তব্যের প্রেক্ষিতে গত মঙ্গলবার নেতানিয়াহুর এই প্রতিক্রিয়া। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে দেয়া এক ভাষণে বান কি মুন ফিলিস্তিনিদের লড়াই প্রসঙ্গে বলেন, আগ্রাসনের বিরুদ্ধে প্রতিক্রিয়া দেখানো মানব চরিত্রেরই অংশ। অবশ্য সম্প্রতি ইসরাইলিদের ওপর ছুরি হাতে ফিলিস্তিনিদের হামলার নিন্দা জানান জাতিসংঘ মহাসচিব। তিনি বলেন, কিছু ফিলিস্তিনি, বিশেষ করে তরুণরা চরম দুর্দশা আর গভীর বিচ্ছিন্নতাবোধ থেকে এ ধরনের হামলায় উদ্বুদ্ধ হচ্ছে। অর্ধ শতক ধরে চলে আসা জবরদখল এবং থমকে থাকা শান্তি প্রক্রিয়া জগদ্দল পাথরের মতো চেপে বসেছে, যাতে ফিলিস্তিনিদের হতাশা বাড়ছে। এর প্রতিক্রিয়ায় এক বিবৃতিতে নেতানিয়াহু বলেন, জাতিসংঘ মহাসচিবের বক্তব্যে সন্ত্রাসবাদে উৎসাহ দেয়া হয়েছে। সন্ত্রাস কোনোভাবেই বৈধতা পেতে পারে না। আল-আকসা মসজিদে প্রবেশে বাধাকে কেন্দ্র করে সাম্প্রতিক মাসগুলোতে ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে সংঘাত-সহিংসতা নতুন মাত্রা পৌঁছে। এই সহিংসতায় গত অক্টোবর থেকে ১৫৫ জনের বেশি ফিলিস্তিনি, ২৮ জন ইসরাইলি এবং যুক্তরাষ্ট্র ও ইরিত্রিয়ার একজন করে নাগরিক নিহত হয়েছেন।
জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি-মুন এতোদিন বক্তব্য দেয়ার ক্ষেত্রে যথেষ্ট সতর্কতা অবলম্বন করে এসেছেন। তবে দায়িত্বের মেয়াদ ফুরিয়ে আসায় গত সোমবার নিরাপত্তা পরিষদে তিনি আরও সরল ভাষায় নিজের মনোভাব প্রকাশের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বলেই মনে হয়েছে। আল-জাজিরা, বিবিসি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন