ঢাকা, সোমবার ২৭ মে ২০১৯, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২১ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

গণআদালতের প্রধান বিচারপতি ড. কামাল হোসেন

ভোট ডাকাতির শুনানি ২৪ ফেব্রুয়ারি

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

একাদশ নির্বাচনে ভোট ডাকাতির চিত্র তুলে ধরতে আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি গণআদালতে শুনানীর করবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। গণআদালতের প্রধান বিচারপতি থাকবেন ড. কামাল হোসেন। গতকাল মতিঝিলে ড. কামাল হোসেনের চেম্বারে অনুষ্ঠিত ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকের পর জেএসডির সভাপতি আসম আবদুর রব এই সিদ্ধান্তের কথা সাংবাদিকদের জানান।
তিনি বলেন, আগামী ২৪ তারিখে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের উদ্যোগে গণশুনানি। এই শুনানিতে একটা আদালত থাকবে, বিচারমঞ্চ থাকবে। আমাদের স্যার ড. কামাল হোসেন বিচারক হিসেবে থাকবেন। এই গণশুনানীর মাধ্যমে ভোট ডাকাতির চিত্র বিশ্ববাসী ও দেশের জনগনের কাছে পরিস্কার করে তুলে ধরা হবে। সরকারের অপকর্ম উলঙ্গ করে দেওয়া হবে।
আ স ম রব বলেন, সকাল ১০ টা থেকে ৬ ঘন্টার এই শুনানী হবে। গণশুনানির স্থান এখনো ঠিক হয়নি। তবে রমনা ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তন, কাকরাইলের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিউট মিলনায়তন, গুলিস্তানের মহানগর নাট্যমঞ্চ অথবা জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনাযতনকে স্থান হিসেবে বিবেচনা করছে ঐ্ক্যফ্রন্ট।
আ স ম আবদুর রব বলেন, গণশুনানিতে ক্ষমতাসীন জোট ছাড়া ভোটে অংশগ্রহনকারী সকল দলকে চিঠি দিয়ে আমন্ত্রণ জানানো হবে। যারা ভোটের সময় আহত হয়েছেন, যারা নিহত হয়েছেন তাদের স্বজনদের, যারা অপদস্ত হয়েছেন, যারা কারাবন্দি হয়েছিলেন তাদেরকে এই শুনানিতে আসতে বলা হবে।
তিনি বলেন, আমার কাছে আশ্চর্য লাগে যে, এভাবে ভোট ডাকাতির পরে কাষ্ট হাসি হেসে বলতেছে, জনগন স্বস্ফুর্তভাবে অধিক সংখ্যক ভোট আমাদেরকে দিয়েছে। এই ধরনের হাসি গোয়েবলস বেঁচে থাকলে বলতো, আল্লাহর ওয়াস্তে মাফ করে দেন।
আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি স্টিয়ারিং কমিটি ও সমন্বয় কমিটির একটি যৌথ সভা হবে বিকাল ৪টায় পুরানা পল্টনের জামান টাওয়ারে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কার্যালয়ে। সে বৈঠকে সার্বিক বিষয় চূড়ান্ত হবে।
ঐক্যফ্রন্টের আহবায়ক ড. কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে কৈঠকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আবদুল মঈন খান, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি এডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মোহসীন মন্টু, প্রেসিডয়াম সদস্য জগলুল হায়দার আফ্রিক, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম দেলোয়ার, বিকল্পধারার সভাপতি অধ্যাপক নুরুল আমিন ব্যাপারি উপস্থিত ছিলেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (16)
Mohammed Kowaj Ali khan ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৩:৪৭ এএম says : 0
বিচারটা যেন সূস্ট হয়। অপরাধীরা যেন ছাড়া না পায়। বাংলাদেশের মাটিতে এই চুরদের নাম গন্ধ মিটিয়ে দাও । ওরা জইন চুরা মইন চুরদের ছেয়ে ও জঘন্য চুর।
Total Reply(0)
Mohi Uddin ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:১৬ এএম says : 0
দেশের প্রধান বিচারপতি বিবেকবান না হয়ে বন্দুকের নলের দাসত্ব মেনে নেওয়ায়! আজ দেশে গনআদালত বসাতে হচ্চে!!
Total Reply(0)
রোজকার ডায়রি ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:১৬ এএম says : 0
ডাকাতের বিচার ডাকাতের করবে না।
Total Reply(0)
Aziz Ulhaque ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:১৮ এএম says : 0
বাংলাদেশে কোন আদালতে বিএনপির পক্ষে আসবেনা ।
Total Reply(0)
Humayun Howlader ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:১৮ এএম says : 0
বাংলাদেশে বিচার নাই
Total Reply(0)
Ripon Chowdhury ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:১৮ এএম says : 0
না বিচারের নামে তামাশা হবে ?
Total Reply(0)
Monjur Hossain ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:১৯ এএম says : 0
বিএনপির লিডাররা কেমন মানুষ বুঝতে পারিনা, এরা ঘরে বসে রিমোট ধারায় পাইলটের দায়িত্ব পালন করতে ছায়, আর হিজড়া কাছ থেকে বাচ্চা আসা করে, বিএনপির সকল লিডাররা ঘরে বসে এসি রুমে বসে থাকেন আপনাদের জন্য সাধারণ পাবলিক মাইর খেয়ে ক্ষমতায় বসাইবে হাঃ হাঃ হাঃ কি মজা গরু পালন করবে আবুল্লায় দুধভাত খাবে কাবিল্লায়
Total Reply(0)
Abu Sayed Abu ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:১৯ এএম says : 0
নির্বাচন করে এক বৈধতা দিলেন আর এখন মামলা দিয়ে আবার পূন্য বৈধ হতে চলেছে
Total Reply(0)
NI Manik ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:২০ এএম says : 0
জানি মামা হয় খারিজ না হয় বিভিন্ন অজুহাতে চার বছর এগার মাস পর রায়।
Total Reply(0)
Uzzal Hossain ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:২১ এএম says : 0
গুড সবাই কে মামলা করতে হবে।
Total Reply(0)
Md Jahid ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:২১ এএম says : 0
কি লাভ বিচারক কি সরকারের চাপের জন্য সঠিক বিচার করতে পারবে।
Total Reply(0)
শফিকুল ইসলাম ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:২১ এএম says : 0
আশা করব সকল প্রার্থী যথার্ত ডকুমেন্ট নিয়ে মামলা করবে,মামলায় হারলেও প্রবলেম নেই দরকার প্রমান করা,,,আদালত কি করে তাও বের হবে।।।
Total Reply(0)
Md Jahid ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:২১ এএম says : 0
সব চাইতে বড় ডকুমেন্ট প্রতিটি ইউনিয়নে লোকদের জিজ্ঞেস করলে তারা ভোট দিতে পেরেছে কি না।
Total Reply(0)
Kazi Feroz Uddin ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:২২ এএম says : 0
এ মামলা নিস্ফত্তি হওয়ার আগে সংসদের মেয়াদ শেষ হবে। তারপরও ইতিহাসে এর তাৎপর্য পুন্য হয়ে থাকবে।
Total Reply(0)
Nannu chowhan ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৮:৫৫ এএম says : 0
Eai shorkar onnai jolum korte korte emon obostai uthese je onnai koreo taha shothik bole mathe moydane chalaia deteo eaktu lojja bodh korena.Onader mittha onnai abdarer eaishob kotha jongon kono gorutto ba pattai deina,karon jongon valo vabei dekhse o oploddi korese nirbachone koto joghonno jaliati korese...
Total Reply(0)
Islam ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:২৮ পিএম says : 0
যিনি অভিযোগকারী তিনিই আবার প্রধান বিচারপতি ?
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন