ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০১৯, ০৩ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৪ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে নির্যাতন করা হচ্ছে- ড. মোশাররফ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৯:২১ পিএম | আপডেট : ১২:১০ এএম, ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে কার্যত: নির্যাতন করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তিনি বলেন, একজন নারী প্রধানমন্ত্রী যখন দেশের ক্ষমতায়, সেই সময় এই নির্যাতন হচ্ছে। একজন নারী প্রধানমন্ত্রী আরেকজন সাবেক নারী প্রধানমন্ত্রীকে নির্যাতন করছেন। রোববার (১৭ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘নারী ও শিশু নির্যাতন: প্রতিরোধ ও প্রতিকার’ শীর্ষক এক আলোচনায় তিনি এসব কথা বলেন।

খন্দকার মোশাররফ বলেন, বাংলাদেশে যে নারীর ক্ষমতায়ন হয়েছে, দেশের প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী হয়ে সেটা নিজে প্রমাণ করেছেন খালেদা জিয়া। অথচ তাকেই এখন কারাগারে থাকতে হচ্ছে। এক বছর পার হয়ে গেল, এখন পর্যন্ত নানা অজুহাতে তাকে কারারুদ্ধ রাখা হয়েছে জামিন না দিয়ে। এটাকে কী বলা যায়? এটা নির্যাতন। এটাই বাংলাদেশে প্রথম যে, একজন নারী আরেক নারীর ওপরে নির্যাতন করছে।

তিনি বলেন, কেবল খালেদা জিয়া নয়, বর্তমান সরকারের আমলে বিএনপির ‘শত শত নেতা-কর্মী’ এভাবে কারাগারে নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। গত ১২ বছরের চিত্র যদি তুলনা করি সর্বক্ষেত্রে কেবল ‘অবক্ষয়’ দেখা যাবে, আর এর কারণ হল গণতন্ত্রহীনতা। এর থেকে পরিত্রাণ পেতে হলে সমাজে একটি গণতান্ত্রিক পরিবেশ থাকতে হবে, মানুষের অধিকার থাকতে হবে, কথা বলার অধিকার থাকতে হবে। আমরা যে শাসনমালে এসে উপস্থিত হয়েছি, গণতান্ত্রিক সরকার তো দূরের কথা, কোনো সংজ্ঞাতেই এটা পড়েন না।

সকলকে সরকারের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে ড. মোশাররফ হোসেন বলেন, গণতন্ত্রের মাতা হচ্ছে বেগম খালেদা জিয়া- মাদার অব ডেমোক্রেসি। তাকে বন্দি রেখে গণতন্ত্রকে মুক্ত করা সম্ভব হয়। অতত্রব আমাদের সকলকে, এদেশে সকল জাতীয়তাবাদী শক্তিকে সোচ্চার হতে হবে, বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে। আর সেই লক্ষ্যে বিএনপি ও সহ সহযোগী সংগঠনে পুনর্গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। যেখানে যেখানে যা কিছু আমাদের দুর্বলতা আছে, সেগুলোকে সংশোধন করে, সেগুলো দ্রুত কাটিয়ে উঠে আগামী দিনে আমরা গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করব, দেশনেত্রীকে মুক্ত করব, স্বৈরাচারের হাত থেকে দেশকে মুক্ত করব।

দলের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক নুরী আরা সাফার সভাপতিত্বে ও মহিলা দলের সাংগঠনিক সম্পাদক হেলেন জেরিন খানের পরিচালনায় অন্যদের মধ্যে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য প্রফেসর শাহিদা রফিক, কেন্দ্রীয় নেত্রী নেওয়াজ হালিমা আরলী, শাহিনা খান, মহিলা দলের সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস ও সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ আলোচনায় অংশ নেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Mohammed Shah Alam Khan ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১০:৪৮ পিএম says : 0
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ডঃ খন্দকার মোশাররফ হোসেন আক্ষেপ করে বলার জন্যে বলেছেন খালেদা জিয়াকে নির্যাতন করা হচ্ছে। আসলে খালেদা বিবি তার কৃত কর্মের জন্যে সাজা খাটছেন এটাই হচ্ছে সত্য কথা। এখন একজন বৃদ্ধ মহিলা যিনি রাজনীতিতে প্রবেশের আগমুহূর্তেও ছিলেন গৃহিণী। সেই দিকে বিবেচনা করা যেত যদি তিনি রাজনীতিতে না এসে এই বয়সের সাজা খাটছে তাহলেই দয়ার বিষয়টা এসে যেত এবং মহামান্য রাষ্ট্রপতি বিবেচনা করলে করতেও পারতেন। কিন্তু এখন বিষয়টা সম্পূর্ণ ভাবে ভিন্ন, তিনি একটি দলের সক্রিয় প্রধাণ ছিলেন এমনকি প্রধাণমন্ত্রী হিসাবেও কাজ করেছেন আবার জেলে যাবার আগমুহূর্তেও সক্রিয় ভাবে দলের প্রধাণ হিসাবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। কাজেই ওনাকে কোন দিক থেকেই মানবিক ভাবে বিচার করার কোন উপায় নেই। তারপরও খালেদা জিয়া যদি জেলে থাকতে অপারগ হয়ে পড়েন তাহলে নিয়ম অনুযায়ি ওনাকে রাষ্ট্রপতির নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করতে হবে। আল্লাহ্‌ আমাকে সহ সবাইকে দেশের আইন জেনে, আইনকে শ্রদ্ধার সাথে মান্য করে চলার ক্ষমতা দান করুন। আমিন
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন