ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬, ১৭ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

সারা বাংলার খবর

ছিনতাই ঠেকাতে বসছে দেড় হাজার সিসি ক্যামেরা

সিলেট ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

সাম্প্রতিক সময়ে সিলেট নগরী ও শহরতলিতে ঘটেছে বেশ কয়েকটি ছিনতাইয়ের ঘটনা। ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনাও ঘটেছে। সম্প্রতি নগরে এক নারী পুলিশ সদস্যও ছিনতাইয়ের শিকার হয়েছিলেন। পরে সিসি ক্যামেরার সহায়তায় ছিনতাইকারীকে আটক করতে সমর্থ হয় পুলিশ। প্রায় দেড় বছর আগে নগরীর হাউজিং এস্টেট রাস্তার মুখে ছিনতাইয়ের দৃশ্য ধরা পড়েছিলো সিসি ক্যামেরাতে।

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ও ছিনতাইরোধে সিসি ক্যামেরা বড় ভূমিকা রাখবে বলে মনে করেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্বে নিয়োজিতরা। জনপ্রতিনিধিরাও চান নগরের প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে স্থাপন করা হোক সিসি ক্যামেরা। এরই ধারাবাহিকতায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে আব্দুল মোমেনের মুখ থেকেও নতুন করে আসলো সিসি ক্যামেরা স্থাপনের বার্তা। তিনি জানিয়েছেন ছিনতাইরোধে পুরো নগরজুড়ে স্থাপন করা হবে সিসি ক্যামেরা।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন এমপি জানিয়েছেন, সিলেট হবে দেশের প্রথম ডিজিটাল নগর। সিলেট ডিজিটাল নগরী করতে তিন ধাপে কাজ করা হবে। এতে আধুনিকায়নের সাথে সাথে নগরবাসীর সুযোগ সুবিধা বাড়বে। নগরবাসী ফ্রী ওয়াইফাই সেবা পাবে। সিলেটে ছিনতাই বন্ধ করতে দেড় হাজার সিসি ক্যামেরা লাগানো হবে। সিসি ক্যামেরা লাগালে নগরীতে ছিনতাই ঠেকানো সম্ভব হবে। ছিনতাইকারীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা যাবে। এছাড়া অন্যান্য অপরাধও নিয়ন্ত্রণ করা যাবে। সিলেট নগরের মিরাবাজারে একটি বিদ্যালয়ের পুরস্কার বিতরণ ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এমন তথ্যই জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ. কে আব্দুল মোমেন এ কথা বলেন।

শনিবার মিরাবাজারস্থ মডেল হাইস্কুলের অনুষ্ঠানে তিনি আরও বলেন, একটা দেশের মূল সম্পদ মানবসম্পদ ও পানিসম্পদ। এই সম্পদগুলোর সুষ্ঠু ব্যবহার না করলে দেশের ক্ষতি হবে। পানির অব্যবস্থাপনায় যেমন দেশে বন্যা জ্বলোচ্ছাস দেখা দেয় তেমনি মানব সম্পদকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে গড়ে না তুললে দেশ বিরাট ক্ষতির সম্মুখীন হবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দেশে ৩ লাখ ৫৬ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্মার্টবোর্ড স্থাপন করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। আমরা চাই স্মার্টবোর্ডের মাধ্যমে আমাদের শিক্ষার্থীরা নির্দিষ্ট বিদ্যালয়ের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে না। বিশ্বমানের শিক্ষার প্রসার ঘটবে দেশে। তিনি স্কুলের প্রস্তাবিত ৬ তলা ভবনকে ১০ তলা ভবন করতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি বলেন, সিলেটের শিক্ষার প্রসার ঘটাতে ১২২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে অনুদান দেবে সরকার। সিলেট আর শিক্ষাক্ষেত্রে পিছিয়ে থাকবে না।

অনুষ্ঠানের শুরুতে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোছা. পিয়ারা বেগম পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ. কে আব্দুল মোমেনকে বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা জানান। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সাবেক উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. মুদাচ্ছের আলী, রুপালী ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যন ড. আহমদ আল কবির, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সফিকুর রহমান চৌধুরী, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন