ঢাকা, সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬, ২৪ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

সরকার খালেদা জিয়াকে তাঁকে তিলে তিলে হত্যার ষড়যন্ত্র করছে- রিজভী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৯ মার্চ, ২০১৯, ১:০৮ পিএম | আপডেট : ১:০৯ পিএম, ৯ মার্চ, ২০১৯

সরকার বেগম খালেদা জিয়াকে তাঁকে তিলে তিলে হত্যার ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, দেশ এক ব্যতিক্রমী দু:শাসনের মধ্যে নিপতিত। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ধ্বজাধারীরা মুক্তিযুদ্ধের বীর সেক্টর কমান্ডারের সহধর্মীনি বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারের আলোবাতাসহীন অন্ধকার প্রকোষ্ঠে বন্দী করে রেখেছে। গুরুতর অসুস্থ হলেও তাঁকে দিনরাত কাটাতে হয় কীট-পতঙ্গে ভরা ধুলাধুসরিত অন্ধকার প্রকোষ্ঠে। দেশের ভিতরে বিশেষায়িত হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসার অধিকার থেকেও বঞ্চিত করা হয়েছে তাঁকে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সকল মানবাধিকার থেকে বঞ্চিত, নিপীড়িত ও নির্যাতিত, বিনা চিকিৎসায় পড়ে থাকা এক অসহায় নারী। আর মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীতাকারী হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে জাতীয় সংসদে অনুগত বিরোধী দলীয় নেতা বানানো হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের সময় রাজাকার রিক্রুটমেন্টের দায়িত্বে নিয়োজিত ডিসি-কে করা হয়েছে নানাভাবে পুরস্কৃত। তাকে কখনও মন্ত্রী বা কখনও এমপি বানানো হয়েছে।

শনিবার (৯ মার্চ) দুপুর ১২ টায় নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।
রিজভী বলেন, রণাঙ্গনের বীর মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমানের স্ত্রীকে প্রতিহিংসাবশত: সাজা দেয়ার জন্যই মিথ্যা মামলা বানিয়ে এখন কারাগারে মানসিক ও শারীরিকভাবে নির্যাতন করা হচ্ছে। মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীতা করেও শুধুমাত্র ক্ষমতাশালী ব্যক্তিদের আত্মীয় হওয়ার কারণে দীর্ঘদিন মন্ত্রী ও এখনও এমপি করা হয়েছে একাধিক জনকে। অথচ বীর সেক্টর কমান্ডারের সহধর্মীনি বেগম খালেদা জিয়াকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার অধিকারটুকুও কেড়ে নেয়া হয়েছে। তাঁকে কারাগারে যাপন করতে হচ্ছে দূর্বিষহ জীবন। ক্ষমতাসীনদের জন্য আধুনিক চিকিৎসার সকল আয়োজনই মূহুর্তের মধ্যে সম্পন্ন হয়। আর মনে হয়-এভাবে তাঁকে তিলে তিলে হত্যারই ষড়যন্ত্র করছে সরকার। আসলে যে শাসনে মানবতার ভিত্তি নেই সেই শাসনই অপশাসন এবং এই ধরণের শাসনে জনপ্রিয় নেতা-নেত্রীদেরকে আটকে রাখা হয় মনুষ্যবিহীন ভীতিপ্রদ গুমোটপূর্ণ কারাগারে, দেশে দেশে সেটির বহু দৃষ্টান্ত রয়েছে। আওয়ামী রাজনীতিতে মনন বিবেচনা নেই, ন্যায়বিচারবোধ নেই, নির্মাণ ও সৃষ্টি নেই, আছে শুধু অবিরল সন্ত্রাস. দখল, জাল-জালিয়াতি ও রক্তপাত, আর উঞ্ছবৃত্তির আধিপত্য।
এসময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আব্দুস সালাম, প্রফেসর ড. সুকমল বড়ুয়া, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, তাইফুল ইসলাম টিপু, বেলাল আহমেদ প্রমূখ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন