ঢাকা, শুক্রবার ২১ জুন ২০১৯, ৭ আষাঢ় ১৪২৬, ১৭ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ কমিশনার - রাবি শিক্ষক রেজাউল হত্যায় জেএমবি জড়িত

প্রকাশের সময় : ১৮ মে, ২০১৬, ১২:০০ এএম

রাবি রিপোর্টার : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক প্রফেসর ড. এ এফ এম রেজাউল করিম সিদ্দিকী হত্যায় সরাসরি ৪ জন জেএমবি সদস্য অংশ নেয় বলে দাবি করেন রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো: শামসুদ্দিন। গতকাল বেলা ১২টার দিকে আরএমপির সদর দপ্তরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ এ তথ্য জানান।
সংবাদ সম্মেলনে আরএমপি পুলিশ কমিশনার জানান, গত ২৩ এপ্রিল সকাল পৌনে ৮টার দিকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক প্রফেসর ড. এ এফ এম রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে নগরীর শালবাগান এলাকার তার নিজ বাড়ির পাশের গলিতে নৃশংসভাবে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। পরে বোয়ালিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলা নং- ৩১। পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেলের সরাসরি নির্দেশনায় গোপন তথ্য ও প্রযুক্তির ব্যবহার করে এলআইসি, পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স ও বগুড়া জেলা পুলিশের সহায়তায় আরএমপি পুলিশের চৌকস দল ১৬ মে রাত সাড়ে ১২টার দিকে গাইবান্ধা জেলা হতে আসামি মাসকাওয়াত হাসান সাকিব ওরফে মাসুদ ওরফে আব্দুল্লাহকে (২৩) গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত মাসকাওয়াতের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে হত্যার কাজে ব্যবহৃত মোটরসাইকেল, ১টি চাপাতি ও ১টি ছোরা বোয়ালিয়া থানা এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়।
তবে আবদুল্লাহ দাবি করেছেন, উদ্ধার হওয়া চাপাতি ও ছোরা এ হত্যাকা-ে ব্যবহৃত হয়নি। অন্য চাপাতি ব্যবহার হয়েছে। বর্তমানে হত্যাকা-ে ব্যবহৃত চাপাতি উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।
প্রত্যক্ষদর্শীদের বর্ণনার সাথে মোটরসাইকেলটির হুবহু মিল পাওয়া যায়। পরিকল্পনায় সহায়তা ও আশ্রয়দানকারী হিসেবে রাত ১টার দিকে আরো ৩ জনকে আটক করা হয়। তদন্তের স্বার্থে তাদের নাম-ঠিকানা গোপন রাখা হচ্ছে।
জিজ্ঞাসাবাদে মাসকাওয়াত জানিয়েছে, তারা ইসলামী জঙ্গি সংগঠন জেএমবির সক্রিয় সদস্য। তারা চার জেএমবি সদস্য সরাসরি হত্যাকা-ে অংশ নিয়েছে। এদের মধ্যে আসামি মাসকাওয়াতসহ ৩ জন প্রফেসর রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে এবং অন্যজন মোটরসাইকেল স্টার্ট দিয়ে অপেক্ষা করে। গত ১৬ তারিখে মাসকাওয়াত নিজেকে জড়িয়ে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে। হত্যার সাথে জড়িত আরো আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।
পুলিশ কমিশনার বলেন, মাসকাওয়াতের গ্রামের বাড়ি বগুড়ার শিবগঞ্জে। সে রংপুর পলিটেকনিক থেকে পড়াশোনা করেছে। সে জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে কেন রেজাউলকে হত্যা করা হয়েছে সে সম্পর্কে সে কিছু জানে না। ওপর মহলের নির্দেশে তাকে হত্যা করা হয়েছে। হত্যার জন্য জেএমবির টার্গেট রয়েছে, নাস্তিক, পুলিশ, সাংবাদিক, চিন্তাবিদ, গুণীজনসহ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা।
তিন আসামির পাঁচ দিনের রিমান্ড
এ হত্যা মামলা গ্রেফতারকৃত আরো তিন আসামির পাঁচ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। রাজশাহী মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-১ এর বিচারক মোকসেদা আজগর তাদের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। পরে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়। আসামিরা হলোÑ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রহমতুল্লাহ ওরফে শাহিন (২৫) এবং রাজশাহী নগরীর উপকণ্ঠ খড়খড়ি বাইপাস এলাকার আবদুস সাত্তার (৫০) ও তার ছেলে খায়রুল ইসলাম ওরফে রিপন (২৬)। পুলিশ জানায়, গত সোমবার রাতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে এই তিনজনকে আটক করা হয়।
শিক্ষক সমিতির আন্দোলন স্থগিত
প্রফেসর ড. রেজাউল করিম সিদ্দিকীর হত্যার বিচারের চলমান আন্দোলন সাময়িকভাবে স্থগিত ঘোষণা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। সকাল ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় জুবেরী ভবনের শিক্ষক লাউঞ্জে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ তথ্য জানান শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর শাহ্ আজম শান্তনু।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘মন্ত্রীদর উদ্যোগ, আন্তরিকতা, সমমর্মিতা ও অনুরোধের প্রেক্ষিতে আমরা প্রফেসর রেজাউল করিম সিদ্দিকীর হত্যার খুনিদের খুঁজে বের করা ও শাস্তির দাবিতে চলমান আন্দোলন সাময়িক স্থগিত করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি।’
গত দু’দিনে সরকারের মন্ত্রীরা রেজাউল করিম সিদ্দিকীর হত্যার বিচারের দাবিতে চলমান আন্দোলনে সংহতি জানিয়ে অপরাধীদের দ্রুত শনাক্ত করে বিচারের আশ্বাস দেন। একই সাথে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের আন্দোলন বন্ধ করে ক্লাসে ফেরারও আহ্বান জানান। কত দিন আন্দোলন স্থগিত থাকবে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘দৃশ্যমান কোনো ফলাফল না পেলে আবারো আন্দোলনে যাওয়া হবে বলে জানান তিনি।’
সম্মেলনে শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর মো: শহীদুল্লাহ, কোষাধ্যক্ষ দীলিপ কুমার ম-লসহ অন্য শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন