ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ সফর ১৪৪১ হিজরী

ব্যবসা বাণিজ্য

আসছে ২ লাখ কোটি টাকার এডিপি

অর্থনৈতিক রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ২৯ মার্চ, ২০১৯, ১২:২৫ এএম

আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) আকার হতে পারে এক লাখ ৯৮ হাজার ৩০০ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরের ম‚ল এডিপির তুলনায় নতুন এডিপির আকার বাড়ছে ২৫ হাজার ৩০০ কোটি টাকা। অন্যদিকে সংশোধিত এডিপির তুলনায় বাড়ছে ৩৩ হাজার ৩০০ কোটি টাকা। অর্থ বিভাগ প্রাথমিকভাবে এডিপির এ আকার প্রস্তাব করে। তবে এটি চ‚ড়ান্ত নয়। এডিপির আকার এর চেয়ে কমতে বা বাড়তে পারে বলে সংশ্নিষ্টরা জানান।
এদিকে আগামী এডিপিতে বিদেশি সহায়তার প্রাক্কলন নির্ধারণে মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোর সঙ্গে গতকাল বৈঠক শেষ করেছে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি)। এখন বৈদেশিক সহায়তার পরিমাণ চ‚ড়ান্ত হবে। তবে প্রাথমিকভাবে নতুন এডিপিতে ৬৫ হাজার কোটি টাকা বৈদেশিক সহায়তা ব্যবহারের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হতে পারে। আর সরকারি তহবিলের বরাদ্দ হতে পরে এক লাখ ৩৩ হাজার ৩০০ কোটি টাকা। আগামী এডিপিতে স্বায়ত্তশাসিত সংস্থার বিভিন্ন প্রকল্পে ২৬ হাজার ৫৯০ কোটি টাকা ব্যয়ের প্রাক্কলন করা হয়েছে। স্বায়ত্তশাসিত সংস্থার বরাদ্দসহ এডিপি বেড়ে হচ্ছে দুই লাখ ২৪ হাজার ৮৯০ কোটি টাকা।
চলতি অর্থবছরে মূল এডিপিতে অর্থব্যয়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল এক লাখ ৭৩ হাজার কোটি টাকা। সরকারি তহবিল থেকে এক লাখ ১৩ হাজার কোটি টাকা এবং বৈদেশিক সহায়তার ব্যবহারের প্রাক্কলন ছিল ৬০ হাজার কোটি টাকা। সংশোধিত এডিপিতে যা কমে হয় এক লাখ ৬৫ হাজার কোটি টাকা। সংশোধিত এডিপিতে সরকারি তহবিল এক হাজার কোটি টাকা বেড়ে হয় এক লাখ ১৪ হাজার কোটি টাকা। অন্যদিকে বৈদেশিক সহায়তা নয় হাজার কোটি (১৫ শতাংশ) কমে হয় ৫১ হাজার কোটি টাকা।
পরিকল্পনা কমিশনের কর্মকর্তারা জানান, আগামী অর্থবছরের ‘ফাস্ট ট্র্যাক’ প্রকল্পগুলোতে চাহিদা মতো সর্বোচ্চ বরাদ্দ দেওয়া হবে। পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে থাকায় এ প্রকল্পে ব্যয় ১০ হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে। এ ছাড়া মেট্রো রেল এবং রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে বরাদ্দ বাড়বে। ভ‚মি জটিলতা দূর করে দোহাজারী থেকে ঘুমধুম পর্যন্ত রেললাইন নির্মাণের মূল কাজ শুরু হবে আগামী অর্থবছরে। একইভাবে পদ্মা রেল সংযোগ প্রকল্পে গতি আসার সম্ভাবনা রয়েছে। ফলে এই প্রকল্পে ব্যাপক চাহিদা থাকবে। সরকারের অগ্রাধিকার প্রকল্প পায়রা গভীর সমুদ্রবন্দর এবং মাতারবাড়ী ১২শ’ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে অর্থ ব্যয়ের চাপ থাকবে। মেগা প্রকল্পগুলোতে আগামী অর্থবছরে চলতি অর্থবছরের চেয়ে বেশি ব্যয় হবে। সংশ্নিষ্টরা জানান, নতুন এডিপি বাস্তবায়নে বেশ কিছু দিকনির্দেশনা দেওয়া হবে। বাস্তবায়নে গতি আনতে প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ অনুযায়ী, বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও ম‚ল্যায়ন বিভাগ (আইএমইডি) এ নির্দেশনা তৈরি করছে। নির্দেশনা অনুযায়ী অর্থ ব্যয়ে ব্যর্থ প্রকল্প পরিচালকদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নিয়ম চালু হচ্ছে। যে সব প্রকল্প পরিচালক প্রকল্প এলাকায় থাকবেন না তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়া একজন প্রকল্প পরিচালককে একাধিক প্রকল্পের দায়িত্ব দেওয়ার বিষয়েও সরকার আরও কঠোর হবে বলে জানা গেছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন