ঢাকা, সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৯ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

বৈশাখের অনুষ্ঠান শেষ করতে হবে ৬টার মধ্যে : মুখোশ-বাঁশি নিষিদ্ধ : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৪ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

অসৎ পুলিশ কর্মকর্তারা আইনের আওতায় আসছেন

ফায়ার সার্ভিসের জন্য কেনা হবে বিশেষ হেলিকপ্টার

জরুরী উদ্ধার ও আগুন নিয়ন্ত্রণের জন্য ফায়ার সার্ভিসের জন্য বিশেষ ধরনের হেলিকপ্টার কেনা হবে। পহেলা বৈশাখের দিন সারাদেশ কঠোর নিরাপত্তায় থাকবে। অনুষ্ঠান সন্ধ্যা ছয়টার মধ্যে শেষ করতে হবে। মঙ্গল শোভযাত্রায় মুখোশ পরা যাবে না। বাঁশিও বাজানো যাবে না। গতকাল বুধবার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বাংলা নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত আইনশৃঙ্খলা সম্পর্কিত সভা শেষে এ সব কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।
সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আইন সবার জন্য সমান। পুলিশও যদি অন্যায় করে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। অসৎ পুলিশ কর্মকর্তাদের আইনের আওতায় আনা হচ্ছে।
আদালতের তথ্য মতে, ২ লাখ পুলিশের মধ্যে মাত্র ১৩ হাজার পুলিশ অসৎ। এই কিছুসংখ্যক পুলিশের জন্য গোটা পুলিশ বাহিনীর বদনাম হচ্ছে। বিষয়টির সত্যতা কতটুকু এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এ ক্ষেত্রে সত্য মিথ্যার প্রশ্ন আসে না। সবার জন্যই আইন সমান।
থানার ওসিদের বিষয়ে প্রশ্ন রেখে হাইকোর্ট বলেছেন, ওসিরা যেখানে সেখানে কোর্ট বসান। রাতে কোর্ট বসান। তারা নিজেরা বিচার বসান কীভাবে? এত সাহস তারা কোথায় পান? এক ব্যক্তির থানায় মামলা না নেয়া এবং সাতক্ষীরার শ্যামনগর থানার ওসি হাবিল হোসেনের কর্মকাÐনিয়ে করা এক রিটের শুনানিতে গত মঙ্গলবার বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এমন প্রশ্ন রাখেন।
আদালত বলেছেন, ১৩ হাজার পুলিশ যারা থানায় জন্য গোটা পুলিশের বদনাম হতে পারে না। অনেক পুলিশ খুব কষ্ট করে জীবনযাপন করে। আবার দেখা যায় অনেকের চার-পাঁচটা করে বাড়ি আছে।
তিনি বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রীর পরিকল্পনা অনুযায়ী ফায়ার সার্ভিসের জন্য বিশেষ ধরনের হেলিকপ্টার ক্রয় করা হবে, যা দিয়ে উদ্ধার এবং আগুন নিয়ন্ত্রণ দুই কাজই হবে। এছাড়া ফায়ার সার্ভিসকে আরও আধুনিকায়নের কাজ অব্যাহত রয়েছে। ফায়ার সার্ভিসে কিছু বৈষম্য রয়েছে। তাদের এখন ঝুঁঁকি ভাতাও দেয়া হচ্ছে।
বনানীর এফ আর টাওয়ারের আগুন নিয়ন্ত্রণে ও উদ্ধারকাজে ব্যবহৃত হেলিকপ্টারের বাতাসে আগুন আরও ছড়িয়ে পড়ার অভিযোগের বিষয়ে তিনি বলেন, সেদিনের অগ্নিকাÐটা একেবারে পিক টাইমে ঘটেছিল। ফায়ার সার্ভিস ঝুঁঁকি নিয়ে কাজ করেছে। তখন ছাদের ওপর অনেক লোক উঠে গিয়েছিল। তাই তাদের উদ্ধার করার জন্য বিমানবাহিনীর হেলিকপ্টার ব্যবহার করা হয়েছিল। সব শক্তি ব্যবহার করে লোকজনকে উদ্ধার করতে চেয়েছিলাম। হেলিকপ্টারে কয়েকজনকে উদ্ধারও করেছে। আগুন নিয়ন্ত্রণের জন্য পানিও ঢেলেছিল।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সেদিন পুরো ঢাকা শহর নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা থাকবে। এবারের মঙ্গল শোভাত্রায়ও পুলিশ কর্ডন দিয়ে নিরাপত্তা দেয়া হবে। কোনো ধরনের মুখোশ পরা যাবে না। মুখোশ হাতে ধরে রাখা যাবে, বাঁশি বাজানো যাবে না। তবে পহেলা বৈশাখ নিয়ে কোনো নাশকতার আশঙ্কা নেই। পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠানে গোয়েন্দা, পুলিশ ও র‌্যাবসহ নিরাপত্তারক্ষাকারী বাহিনী তৎপর রয়েছে। একইসঙ্গে এই নিরাপত্তার অংশ হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় অনুষ্ঠানের আগের দিন অর্থাৎ ১৩এপ্রিল বিকেল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনও স্টিকার ছাড়া গাড়ি প্রবেশ করতে দেয়া হবে না।
নিরাপত্তার স্বার্থে হাতিরঝিলে নৌপুলিশ, সাদা পোশাকের পুলিশ থাকবে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যৌনহয়রানি ও ছিনতাই প্রতিরোধে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি থাকবে ভ্রাম্যমাণ আদালত। পহেলা বৈশাখের দিন নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ থাকবে। পহেলা বৈশাখকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কোনো ধরনের উসকানি যেন না ছড়াতে পারে, সেজন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম মনিটরিং করা হবে বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সভায় পুলিশ, র‌্যাব, আনসার, ফায়ার ব্রিগেড, কারা কর্তৃপক্ষ, বিজিবি, সব গোয়েন্দা সংস্থার প্রধান, কোস্টগার্ড, নৌবাহিনীর প্রতিনিধি ও মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন