ঢাকা, রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬, ২৩ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

বাঁচানো গেল না নুসরাতকে

প্রধানমন্ত্রীর শোক : ঢামেকে কান্নার রোল : আজ ময়নাতদন্ত শেষে লাশ হস্তান্তর

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

অবশেষে সর্বোচ্চ চেষ্টায়ও বাঁচানো গেল না দুর্বৃত্তদের আগুনে দগ্ধ সোনাগাজীর মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে। সবাইকে কাঁদিয়ে চলে গেল না ফেরার দেশে। গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছে সে। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিঊন। তার মৃত্যুর বিষয়টি জানিয়েছেন বার্ন ইউনিটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন। নুসরাতের মৃত্যুর খবর জানতে পেরে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি নুসরাতের চিকিৎসার বিষয়টি ব্যক্তিগতভাবে মনিটরিং করছিলেন।
এর মাত্র আধঘণ্টা আগে রাত ৯টার দিকে নুসরাতের চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ডের প্রধান প্রফেসর ডা. আবুল কালাম জানিয়েছিলেন, এই ছাত্রীর শারীরিক অবস্থার মারাত্মক অবনতি ঘটেছে। ঢামেক হাসপাতালে আনার পরই চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন, নুসরাতের অবস্থা গুরুতর। তার শরীরে প্রায় ৮০ শতাংশই পুড়ে গেছে।
নুসরাতের মৃত্যুর খবরে হাসপাতালে থাকা তার মা-ভাই ও স্বজনদের কান্নায় ভারী হয়ে ওঠে বার্ন ইউনিটের আকাশ বাতাস। সেই দৃশ্য দেখে অনেকেই চোখের পানি ধরে রাখতে পারেনি।
এর আগে গতকাল বুধবার হাসপাতালে নুসরাত জাহান রাফিকে দেখার পর স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান জানিয়েছিলেন, একজন রোগীকে বিদেশে পাঠাতে গেলে অ্যাম্বুলেন্সে তোলাসহ যে ধকল সইতে হয়, এই মেয়েটি (অগ্নিদগ্ধ মাদরাসাছাত্রী) এখন সে ধকল নিতে পারার মতো অবস্থায় নেই। এ বিষয়টি বিবেচনা করে তাকে এখনই সিঙ্গাপুরে নেয়া সম্ভব হচ্ছে না। তার অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলে তাকে সিঙ্গাপুর নেয়া হবে।
অন্যদিকে ফেনীর সোনাগাজী থানার ওসি মো. মোয়াজ্জেম হোসেনকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। একই সঙ্গে মাদরাসাছাত্রীকে হত্যাচেষ্টার মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনে (পিবিআই) হস্তান্তর করা হয়েছে। মাদরাসার প্রিন্সিপাল সিরাজ উদদৌলার সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন ফেনীর আদালত। এছাড়া গ্রেফতারকৃত অন্য ৪ জনকে পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। জড়িত পলাতকদের গ্রেফতারে কাজ করছে পুলিশ। গতকাল পুলিশ সদর দপ্তরের এআইজি (মিডিয়া) সোহেল রানা দৈনিক ইনকিলাবকে এসব তথ্য জানান।
ঢামেকের বার্ন ইউনিটে সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী বলেছিলেন, এই ছাত্রীর শরীরের ৮০ শতাংশ পুড়ে গেছে। এরপরও চিকিৎসকরা তাকে সুস্থ করার জন্য প্রাণপণ চেষ্টা কররেন। ডা. রায়হানা আওয়াল সুমিসহ অন্যরা চিকিৎসা করছেন। প্রধানমন্ত্রী ফুলটাইম মনিটরিং করছেন। দফায় দফায় চিকৎসকরা তার আপডেট জানাচ্ছেন। তাকে প্রধানমন্ত্রী সিঙ্গাপুরে নিয়ে উন্নত চিকিৎসা দেয়ার কথা বলেন। এখানকার চিকিৎসকরা সিঙ্গাপুরের বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন। এ সময় ডা. মুরাদ হাসান বলেছিলেন, প্রধানমন্ত্রী, স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও আমি নিজে মেয়েটিকে নিয়ে খুবই উদ্বিগ্ন। তার চিকিৎসার ব্যাপারে আমরা ওয়াকিবহাল থাকছি।
সংবাদ সম্মেলনে শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন বলেন, বুধবার সকালে তাকে নিয়ে আমরা আবারও সিঙ্গাপুরের চিকিৎসদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্স করেছি। তারা আমাদের কাছে কিছু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র চেয়েছেন। আমরা তা পাঠিয়েছি। সেখানকার মেডিক্যাল বোর্ড, আইসিইউ চিকিৎসক, মেট্্েরালজিস্ট, প্লাস্টিক সার্জনসহ সব চিকিৎসক মিলে সিদ্ধান্ত নেন যে, রোগীর এখন যে অবস্থা, তাতে তাকে জার্নি করে সিঙ্গাপুরে নেয়া কঠিন হবে। তাকে বিদেশে নেয়ার ব্যাপারে আরও অপেক্ষা করা উচিত।
সামন্ত লাল সেন আরো বলেন, মঙ্গলবার আমরা যে অপারেশন করেছি, এতে তার শ্বাস-প্রশ্বাস নেয়ার একটা উপায় তৈরি করেছি। তার শরীরের চামড়াটা ফুটো হয়ে যাওয়ায় বুকে চাপ ধরেছিল, যার কারণে সে শ্বাস নিতে পারছিল না। আমরা অপারেশন করে শ্বাস নেয়ার ব্যবস্থা করেছি। তার অবস্থা কোনো পরিবর্তন হয়নি। সিঙ্গাপুর থেকে কোনোও খবর আসলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ সময় ডা. রায়হানা আওয়াল সুমি, ডা. নওয়াজেশ আহমেদ, ঢামেকের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনালের এ কে এম নাসিরুদ্দীনসহ অন্য চিকিৎসকরা উপস্থিত ছিলেন।
পুলিশ সদর দপ্তরের একাধিক সূত্র জানায়, সোনাগাজী থানার ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নে (এপিবিএন) বদলি করা হয়েছে। ছাত্রীর পরিবারের অনাস্থা আমলে নিয়ে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। কোনোভাবেই যেন মামলাটি ক্ষতিগ্রস্ত না হয় এবং স্থানীয় কেউ যেন প্রভাব বিস্তার করতে না পারে, সে জন্যই দায়িত্ব পিবিআইকে দেয়া হয়েছে। জড়িত অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এছাড়া আটক দু’জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন তদন্তের সাথে জড়িত কর্মকর্তারা।
ফেনী জেলা সংবাদদাতা মো. ওমর ফারুক জানান, ফেনীর পুলিশ সুপার এসএম জাহাঙ্গীর আলম সরকার বলেন, মামলার নথিপত্র ফেনী পিবিআই প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মনিরুজ্জামানের হাতে হস্তান্তর করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে প্রধান আসামি সিরাজ উদ্দৌল্লাহ, প্রভাষক আফছার উদ্দীন ও আলিম পরীক্ষার্থী আরিফুল রহমানকে আদালতে হাজির করা হয়। ফেনীর চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শরফুদ্দিনের আদালতে হাজির করে পুলিশ আসামিদের রিমান্ড দাবি করে। এসময় আদালত প্রধান আসামির ৭ দিন, অপর ২ জনের ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রাফিকে আগুনে ঝলসে দেয়ার ঘটনায় আদালত এ পর্যন্ত ৭ আসামির রিমান্ড মঞ্জুর করেছে। এর আগে মঙ্গলবার ৪ আসামিকে আদালতে হাজির করে ৭ দিনের রিমান্ড চায় মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। এসময় আদালত আসামি নুর হোসেন, আলাউদ্দিন, কেফায়েত উল্যাহ ও সাইদুল ইসলামের ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
এছাড়া ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে মঙ্গলবার রাতে জোবায়ের আহমদ নামে আরেক মাদরাসাছাত্র ও ছাত্রলীগ কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। শম্পা সন্দেহে প্রিন্সিপালের শ্যালিকার মেয়ে পপিকে আটক করা হলেও সে এখনো থানা হেফাজতে রয়েছে। সার্বিক বিষয়ে জানতে মাদরাসা পরিচালনা কমিটির সদস্য ও উপজেলা আ’লীগ সভাপতি রুহুল আমিনের কাছে ফোন করা হলে তিনি বলেন, এটি সোনাগাজীর ইতিহাসে ন্যাক্করজনক ঘটনা। প্রকৃৃত অপরাধীদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তির দাবি জানান তিনি।
উল্লেখ্য, গত ৬ এপ্রিল শনিবার সকাল ৯টার দিকে আলিম পর্যায়ের আরবী প্রথমপত্র পরীক্ষা দিতে সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসা কেন্দ্রে যায় ওই ছাত্রী। এরপর কৌশলে তাকে পাশের ভবনের ছাদে ডেকে নেয়া হয়। সেখানে বোরকা পরিহিত ৪/৫ ব্যক্তি ওই ছাত্রীর শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে তার শরীরের ৮৫ শতাংশ পুড়ে যায়। পরে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে তার স্বজনরা প্রথমে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে ফেনী সদর হাসপাতালে পাঠান। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়। মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত ওই ছাত্রী লাইফ সাপোর্টে চিকিৎসাধীন। সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল সিরাজউদ্দৌলা-এর আগে ওই ছাত্রীকে যৌন নিপীড়ন করে। এ কারণে গত ২৭ মার্চ তাকে আটক করে পুলিশ। এ ঘটনায় মেয়েটির মা বাদী হয়ে সোনাগাজী থানায় মামলা করেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (44)
Rahman mizan ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৫ এএম says : 0
এই কয়েক বৎসরে যতটি পৈশাচিক নির্যাতন, ধর্ষনের ঘটনা ঘটেছে তার বিরুদ্ধে সরকার বা আদালত নূন্যতম একটি হলেও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্তা করতে পারে নি ? তাই এই নিপীড়নের আরেক বলি কিশোরী নুসরাত
Total Reply(0)
Engr.Anisur Rahman Shishir ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৫ এএম says : 0
দ্রুত এই মামলার বিচার চাই।এবং সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড চাই।
Total Reply(0)
Abu Sayeed Muhammad Naeem ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৫ এএম says : 0
বিচার যেখানে অনিশ্চিত সেখানে মেয়েটার কাছে ক্ষমা চাওয়া ছাড়া আর কি করার আছে আমাদের! ক্ষমা করে দিও বোন
Total Reply(0)
Md Khan ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৫ এএম says : 0
its terrible, its really upset news for all of us.
Total Reply(0)
Shahid Md Rezwan Dilgir ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৬ এএম says : 0
স্বাধীনতার এত বছর পর এই লজ্জা রাখি কোথায়??? #খুনীকে_মুক্তি_দিতে_হবে? এই মিছিলে অংশ নেয়া প্রতিটি অসুস্থ মানসিকতার নারী পুরুষ কে খুনীর সাহায্যকারী হিসেবে আটক করা হোক।
Total Reply(0)
Md. Nahid Hasan Khan ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৬ এএম says : 0
আশা করছি সবাইকে দ্রুত আইনের আওতায় এনে সর্বোচ্চ শাস্তি দিতে হবে যাতে তা অন্যদের জন্য দৃষ্টান্ত হয়ে থাকে
Total Reply(0)
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৬ এএম says : 0
এভাবেই হারিয়ে যায় হাজারো নুসরাতের জিবন। প্রসাসন প্রহসন অবকাঠামো দেখিয়ে কেটে পরে। ধর্ষকের কোনো বিচার হয় না। আমরা শুধু আইন চাই না, আইনের প্রয়োগ চাই। এভাবে চলতে থাকলে আমাদের স্বাধীনতা হয়ে যাবে Meaningles.
Total Reply(0)
শাদনান মাহমুদ নির্ঝর ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৬ এএম says : 0
থানার ওসির শুধু প্রত্যাহার কেন? তাকে রিমান্ডে নেয়া হোক। এমন মাইর দেয়া হোক যাতে জীবনের তরে বাপের নাম ভুলে যায়। পরোক্ষ ভাবে হইলেও এই মৃত্যুর অনেক খানি দায় এই অথর্বের। আর হাত জোর করে বলি এদের ফাঁসি দিয়েন না, একটু একটু করে পোড়ায় মারার শাস্তি দ্যান। ফাঁসি দিয়ে ফেললে এই মেয়েটা কিভাবে কষ্ট পেয়ে মরছে তা এই জানোয়ার গুলা বুঝবে না।
Total Reply(0)
Mahamud Hosain ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৬ এএম says : 0
আমি চিৎকার করে কাঁদিতে চাহিয়া করিতে পারিনা চিৎকার, বুকের ব্যথা বুকে চাপায়ে নিজেকে দেই ধিক্কার । কতটুকু নির্লজ্জ হ‌লে হৃদয় হয়না জলে সিক্ত ‌মানবতার কত পতন ‌ হ‌লেও আমরা ভাবব আমাদের জীবন এখনও আলোয় উদ্দীপ্ত । কত ব্যথা বুকে চাপলেই তাকে বলি ধৈর্য, নির্মমতা কতদূর হলে আমরা রয়ে যাব নির্লজ্জ ।
Total Reply(0)
Joynal Abedin Monzu ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৭ এএম says : 0
মেয়েটি মরে গিয়ে প্রমাণ করে গেছে এই সমাজে ন্যায়ের প্রতিবাদ করা যায় না। আর তা দেখে কেউ নতুন করে প্রতিবাদ করার সাহস পাবে বলে মনে হয় না। আবার জালেমের শাস্তি দেখে শিক্ষা গ্রহন করার সুযোগ ও জনগণের হয়তো বা হবে না।
Total Reply(0)
শাকিল কোরাইশী ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৭ এএম says : 0
We see... but can we see the point that we can't really see??
Total Reply(0)
Minhaj ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৭ এএম says : 0
Incidents of rape, abuse of drugs have occupied headlines for a while now. Time has come for stern actions with zero tolerance against these social evils.
Total Reply(0)
Minhaj ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৭ এএম says : 0
This week we lost two super human. May the Almighty Allah rest the departed souls in peace.
Total Reply(0)
Md. Habibur Rahman ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৭ এএম says : 0
আগে এসিড এ ঝলসে দিত আর এখন সরাসরি আগুনে ঝলসে দেয়। বিচারে অপরাধীদেরকেও আগুনে ঝলসে দেয়া হোক। সকলের সামনে। পল্টন ময়দানে বা খোলা মাঠে।
Total Reply(0)
Md. Rahidul Islam ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৭ এএম says : 0
খুব খারাপ লাগছে, প্রতিবাদ করতে গিয়ে এভাবে জীবন দিতে হল, এর দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি হোক
Total Reply(0)
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৭ এএম says : 0
ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্নাইলাইহে রাজিউন। আজ আরো একবার আমার প্রিয় বাংলাদেশের মৃত্যু প্রত্যক্ষ করলাম।
Total Reply(0)
Md. Jamiul Islam ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৮ এএম says : 0
সমগ্র বাংলাদেশের মানুষের লজ্জার নাম আজথেকে "রাফি"...
Total Reply(0)
Apon ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৮ এএম says : 0
এমন শাস্তি হওয়া উচিত যাতে শয়তানও ভয় পায়। সবার সামনে জ্যান্ত আগুনে পুড়িয়ে মারা দরকার
Total Reply(0)
Imdadul Haque ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৮ এএম says : 0
আজকে নারী বাদী সংগঠন গুলো গেলো কই। নুসরাত মাদরাসার ছাত্রী , সে বোরকা পরে, সে হিজাব পরে তার জন্য কোন নারী বাদী সংগঠন কে আন্দোলন করতে দেখলাম না। যদি নুসরাত বিশ্ববিদ্যালয়ের মেয়ে হতো ,গেন্জি পরতো তাহলে ওর জন্য আন্দোলন হত।
Total Reply(0)
Rahul Nigam ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৮ এএম says : 0
তার মৃত্যু তে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করছি এবং গায়ে আগুন দেয়ায় জরিতদের দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তি দাবি করছি
Total Reply(0)
নাসিম ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৮ এএম says : 0
আল্লাহ যেন নুসরাতকে জাননাতুল ফিরদাউস দান করেন এবং তার পরিবারকে ধৈর্য ধারণের তাউফিক দান করেন... আমিন
Total Reply(0)
MD. OHID KAZI ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৮ এএম says : 0
অপরাধীদের এমন শাস্তি দেওয়া উচিত যা আগে কেউ দেখেনি। জনসম্মুখে ওদের ফাঁসী কার্যকর করা হোক দ্রুত সময়ের মধ্যে।
Total Reply(0)
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৮ এএম says : 0
হতভাগী মেয়েটিকে বাঁচানো গেলো না। তুমি মরেই বেঁচে গেলে মা। তোমার আত্মার মঙ্গল হোক, তুমি বেহেস্তবাসী হও মা!!
Total Reply(0)
Mohammad Ruhul Amin ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 0
Please Government, handover this case to CID or RAB immediately. We do not have any faith in Police anymore. Bring those brutal murderers and rapists under justice.
Total Reply(0)
Md. Abu Syed ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 0
এমন হিংস্র কর্মকান্ডের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি যদি আগে হত, আজকে হয়ত এমন অবস্থার মুখামুখি হতে হত না।
Total Reply(0)
msIqbal ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 0
তুই তো মরে গিয়ে বেঁচে গালি! আমাদেরকে তোকে বাঁচাতে না পারার, বাঁচতে না দেয়ার কষ্ট বুকে নিয়েই বেঁচে থাকতে হবে আমরণ!
Total Reply(0)
MOHAMMAD ANWAR HOSSAN ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 0
মহান রাব্বুল আলামীন, আমার বোন জীবিত অবস্থায় ওর প্রতি যে অন‍্যায় হয়েছে তার সুবিচার পায়নি। আপনার দরবারে আকুল আবেদন, আমার বোনকে আপনি জান্নাতের সুউচ্চ স্থান দান করুন। আর যারা আমার বোনের উপর নিষ্ঠুর নির্যাত করেছে, তাদের উপযুক্ত বিচার হয়েছে, আমি আমার মৃত্যুর পূর্বে তা দেখে ও জেনে যেতে চাই। আমিন।
Total Reply(0)
MD: OMAR Faruk ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 0
শুনা যাচ্ছে ওই শিক্ষককে মুক্তির দাবীতে আন্দোলনও চলছে। কত নিছে নেমে গেছে আজকে দেশের মানুষ। তা ভাবতেও গা শিওরে উঠে
Total Reply(0)
Anonto Akash ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 0
দুঃখ জনক,অন‍্যায়ের প্রতিবাদ করতে যেয়ে নুসরাত এর আত্বত‍্যাগ যেন বৃথা না যায়,তার আত্বার মাগফিরাত কামনা করছি, একই সাথে অন‍্যায় কারীদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি নিশ্চিত করা উচিত।
Total Reply(0)
MR Nayan ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 0
আমরা দুঃখিত ও লজ্জিত। ক্ষমা চাওয়ার মতো কোন মুখ নেই আমাদের। আমরা জাতি হিসেবে দেওলিয়া হয়ে গেছি।
Total Reply(0)
Rashidullah ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:৩০ এএম says : 0
ইতি মধ্যে মেয়েটি বাংলাদেশের অনেক মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছিল। মর্মান্তিক!
Total Reply(0)
msIqbal ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:৩০ এএম says : 0
ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্নাইলাইহি রাজিউন ...... সত্যি সত্যিই আর ফিরলি না তো !! দেখলি না তো, আজ কত লক্ষ্য কোটি মানুষের চোখের জলে জ্বল জ্বল করছে তোর মুখচ্ছবি!! ...... কিচ্ছু বলার নাই! বিচার হওয়াটা হয়তো দেখা হবে না, তাই একটা অভিশাপ, এই নুসরাত জাহান রাফির মৃত্যুর জন্য দায়ীদের প্রত্যেকেরই যেন আগুনে পুড়ে মৃত্যু হয়!
Total Reply(0)
স্বাধীন ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:৩০ এএম says : 0
এমন বর্বরতার দৃষ্টান্তমূলক বিচার দেখতে চাই। কতটা পশু হলে এমনভাবে একজন মানুষকে হত্যা করতে পারে। তীব্র ঘৃণা প্রকাশ করছি হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত প্রত্যেকটি পশুর প্রতি!
Total Reply(0)
Rafiq BP ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:৩০ এএম says : 0
সঠিক বিচার আশাকরি নচেৎ আল্লাহর বিচার বড় কঠিন। সুরা: মায়েদা ৪৫-যেসব লোক আল্লাহ যা অবতীর্ণ করেছেন, তদনুযায়ী বিচার করে না তারাই জালেম। ৪৭-যারা আল্লাহ যা অবতীর্ণ করেছেন, তদনুযায়ী বিচার করে না, তারাই পাপাচারী।
Total Reply(0)
Abuanik Abuanik ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:৩১ এএম says : 0
ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহির রাজিউন ফি জান্নাত ইন্সা আল্লাহ এবং জালিম দের কঠিন বিচার দাবি করি যা দেখে আর কেউ এরকম না করে Delete or hide this
Total Reply(0)
Md Rezaul ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:৩১ এএম says : 0
এমন এক যুগে এখন আমাদের অবস্থান; যেখানে অমানুষেরাই মাথা উঁচু করে বাঁচে,এবং তাদেরই আওয়াজ থাকে জোরালো; তারাই দিনশেষে পুষ্পের হাসি হাসে। 'ওপারে ভালো থেক নুসরাত', মানুষ হিসেবে আমরা লজ্জিত।
Total Reply(0)
Abdullah Al Sohel ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:৩১ এএম says : 0
শোক না করে, পারলে বিচার করে - কার্যকর করে দেখিয়ে দেন যে, দলীয় লোক হলেও ছাড় নয়। আইন সবার জন্য। আপনার এই শোক আমাদের বোনদের -ভবিষ্যত প্রজন্মের নিরাপত্তা দিবে না। পারলে সুষ্ঠু নিরপেক্ষ বিচার করে দেখান।
Total Reply(0)
Sharif Ahmed ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:৩২ এএম says : 0
শিক্ষকের কাছে যদি ছাত্রী নিরাপদ না থাকে ,তবে আমরা যাঁরা অভিভাবক আমরা আমাদের সন্তানের লিখা পড়া শিখাব কি ভাবে ? একজন মাদ্রাসার অধ্যক্ষ এত খারাপ হয় কি ভাবে? নূসরাত হত্যা কারী অধ্যক্ষ সহ সকল আসামিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি ।
Total Reply(0)
হ্যালো-নোয়াখালীর খলিফার-হাট থেকে ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১:৩২ এএম says : 0
বিচার আরকি হবে? কারা করবে বিচার? এমনিতো কতো ঘটনাই হচ্ছে বিচার কঔ?????
Total Reply(0)
MAHMUD ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ৯:৫২ এএম says : 0
I pray to ALLAH for NUSHRAT and keep her in heaven, she is like as my daughter.No have any real justice in our country about this typy of incident.Hand over the case to RAB for real investigation. People of our country have highly trust in RAB. So every body want hard justice. Our prime minister already says, for real investigation and guilty have required hard punished by the law. But dont know what will be happen.
Total Reply(0)
ইঞ্জিনিয়ার মোখলেছুর রহমান ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ৪:০৮ পিএম says : 0
হায়েনাদের বিচার চাওয়ার অপরাধে বোনটিকে জীবন দিতে হল। নুসরাত, তোমার হত্যার বিচারও হবেনা এই স্বাধীন দেশে, মাফ করে দিও আমাদের।
Total Reply(0)
ম নাছিরউদ্দীন শাহ ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ৩:৩৯ এএম says : 0
নারী জাতিকে সম্মানিত করলেন। নিজের জীবনের বিনিময়ে। নুসরাতের আর্তনাদ ফরিয়াদ তীব্রতর প্রতিবাদী সত্যবাদীতা নারীত্বের অহংকার। মা জাতির বিরাট সম্মান। ইসলামের বেশদারী নরপশু নরপিসাস চরিত্রহীন দুর্নীতি পরায়ন আলেমদের জন্য। বিরাট খতি হলো মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের। যেখানে নৈতিকতা শিক্ষা নিরাপত্তার স্হান। মাদ্রাসাতে তার সহপাঠি মহিলা কতৃক জীবত্ব্য পুরিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করা। এটি কিসের আলামত। সমাজে এত বেহাইয়া পনা। এত বে পদ্দা পনা। নানা রকমের ভয়ংকর সংবাদ প্রতিদিন। এখন কারো প্রতি শ্রদ্ধা সম্মান জানতে বিপদের মধ্যে পড়েন। কেন আইনের পোশাক পরা মানুষ গুলোর এত অদ্ভুত আচরণে পশুর মত মনে হয়। কেন সত্য ন্যায়নিষ্ঠতার জন্য মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর নির্দেশ দিতে হয়। এর কোন জবাব আছে ? আল্লাহ আপনি আমাদের সত্য ও ন্যায়পরায়ণ হওয়ার তৌফিক দিন। অকালে চলে য়াওয়া সত্যবাদী সৎ নুসরাতের মত কন্যা সন্তানের বাবা হওয়ার মত গৌরবময় সম্মানের। হে দয়ালু রাহমানের রাহিম তাকে তুমি জান্নাতুল ফেরদৌস দান করুন।
Total Reply(0)
Mohammed Kowaj Ali khan ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ৪:৩৪ এএম says : 0
বাঁচানো গেল না নুসরাতকে। এই সমস্থ কথা বলা মহা পাপ।
Total Reply(0)
Md Billal Hossain ৪ জুলাই, ২০১৯, ২:০২ পিএম says : 0
কঠিন বিচারের করতে হবে
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন