ঢাকা, রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬, ২৩ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

অভ্যন্তরীণ

সিংড়ায় মহাসড়কে নীরব চাঁদাবাজি

সিংড়া (নাটোর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৪ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৮ এএম

নাটোরের সিংড়ায় মালিক-শ্রমিক যৌথ তহবিলের নামে বেপরোয়া চাঁদাবজি করা হচ্ছে। মহাসড়কে ভারি যানবাহন থামিয়ে পুলিশের নাগের ডগায় নিরব চাঁদাবাজি করে গাড়ি-বাড়ির মালিক হয়েছেন সংগঠনের কতিপয় নেতারা। এরআগে আইসিটি প্রতিমন্ত্রীর নির্দেশে সব ধরনের চাঁদাবাজি বন্ধ করে দেয় পুলিশ।
অনুসন্ধানে জানা যায়, নাটোর-বগুড়া মহাসড়কে সিংড়া বাসস্ট্যান্ডে ভারী যানবাহন থামিয়ে ট্রাক, ট্যাঙ্কলরী, ট্রাক্টর ও কাভার্ডভ্যান মালিক শ্রমিক যৌথ তহবিলের নামে নিরব চাঁদাবাজি করা হচ্ছে। মাগুড়া জেলার হাবিব, দিনাজপুর জেলার রওশন ও বরিশাল জেলার ট্রাক চালক আহমদ জানান, চাঁদাবাজির প্রথমদিকে ৫০টাকা নেয়া হত। বর্তমানে তা বাড়িয়ে জোরপূর্বক ১০০টাকা নেয়া হচ্ছে। চাঁদার টাকা না দিলে যানবাহন রাস্তায় আটকিয়ে রাখে। তখন বাধ্যহয়ে দাবিকৃত চাঁদার টাকা পরিশোধ করতে হয় তাদের। দিন-রাত ২৪ ঘন্টা পালাক্রমে ডিউটি করে পরিবহন শ্রমিকরা। চাঁদার টাকায় অনেকে আঙুল ফুলে কলাগাছে পরিণত হয়েছেন। মাসে কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে গাড়ি-বাড়ির মালিক হয়েছে সংগঠনের কতিপয় নেতারা। আবার অনেকেই রাজনৈতিক তৎপরতা চালাচ্ছেন বলে চাউর রয়েছে। তারা এতটাই প্রভাবশালী প্রাণভয়ে কেউ কথা বলার সাহস পান না। তবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক আদায়কারী জানান, দিনরাতে যে টাকা চাঁদা আদায় করা হয়, তার অর্ধেক পুলিশ প্রশাসনসহ বিভিন্ন জনকে ভাগ বাটোয়ারা করে দেয়া হয়। প্রতিদিন সিংড়া বাসস্টান্ডের পূর্বদিকে থেকে হাজার হাজার টাকা চাঁদা তোলা হয়। নিরব এসব চাঁদাবাজি বন্ধ করতে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী এড. জুনাইদ আহমেদ পলক কঠোর অবস্থানে থাকায় এক দিনেই সকল চাঁদাবাজি বন্ধ করে পুলিশ। প্রায় দুইমাস বন্ধ থাকার পর আবারো নাটোর জেলা ট্রাক,ট্যাঙ্কলরী, ট্রাক্টর ও কাভার্ডভ্যান মাালিক-শ্রমিক যৌথ তহবিলের নামে চাঁদা তোলা হচ্ছে।
এ বিষয়ে নাটোর জেলা ট্রাক,ট্যাঙ্কলরী, ট্রাক্টর ও কাভার্ডভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি শহিদুল ইসলাম চাঁদাবাজির কথা অকপটে স্বীকার বলেন, সারাদেশেই তো চাঁদা তুলা হচ্ছে, আমরা করলে দোষ কি।
সিংড়া থানার ওসি মনিরুল ইসলাম চাঁদাবাজির বিষয়ে কথা বলতে রাজি হননি।
সিংড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সুশান্ত কুমার মাহাতো বলেন, বেশ কিছুদিন বন্ধ থাকার আবার চালু করা হয়েছে। তবে এবিষয়ে তিনি অসহায়ত্ব প্রকাশ করেছেন।
জেলা পুলিশ সুপার সাইফুল্লাহ আল মামুন চাঁদাবাজির বিষয়ে তিনি বলেন বিষয়টি আমি দেখছি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন