ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ৬ বৈশাখ ১৪২৬, ১২ শাবান ১৪৪০ হিজরী।

খেলাধুলা

রাবাদা দ্যুতিতে দুরন্ত দিল্লি

আইপিএল টি-২০

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ এপ্রিল, ২০১৯, ১:৪৭ এএম

আইপিএলে রোববারের ম্যাচগুলোতে ছিলো প্রোটিয়াদের আধিপত্য। বিকেলে চেন্নাই সুপার কিংসের জয়ে ভূমিকা রেখেছেন ইমরান তাহির। আর রাতে দিল্লি ক্যাপিটালসের জয় পেতে ভূমিকা রেখেছেন পেসার কাগিসো রাবাদা ও ক্রিস মরিসরা।

তাদের অসাধারণ বোলিংয়ে দিল্লির কাছে ৩৯ রানে হেরেছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। 

সাকিবহীন এই ম্যাচে ১৫৬ রানের লক্ষ্যে খেলতে নামা সানরাইজার্স এক সময় উড়ন্ত সূচনা করেছিলো। দুই ওপেনার জনি বেয়ারস্টো ও ডেভিড ওয়ার্নার মিলে শুরুতে রাবাদাদের বানিয়ে দেন নখদন্তহীন।

১০ ওভারে ৭২ রান করে ফেলা এই ওপেনিং জুটিটাই স্বপ্ন দেখাচ্ছিল সানরাইজার্সকে। কিমো পল ৩১ বলে ৪১ করে ফেলা বেয়ারস্টোকে সাজঘরে ফেরালে সানরাইজার্স হয়ে পড়ে তাসের ঘর।

ব্যাটসম্যানদের আসা যাওয়ার এই মিছিলে শুরুতে আক্রমণ হানেন পল। অপর প্রান্তে ওয়ার্নার ৪৭ বলে ৫১ রানে রাবাদার বলে ফিরলে এই সানরাইজার্স আর দাঁড়াতেই পারেনি।

সেখান থেকে উত্তরণে কেউ ভূমিকাও রাখতে পারেননি। কারণ শেষ দিকে এক ওভারে ৩ উইকেট নিয়ে তাদের সর্বনাশের চূড়ান্ত করেন ক্রিস মরিস।

রাবাদা লেজ ছেঁটে দিলে ১৮.৫ ওভারে ১১৬ রানে অলআউট হয় হায়দরাবাদ। যাদের শেষ ৮ উইকেট পড়েছে মাত্র ১৫ রানে!

২২ রানে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট রাবাদার। তিনটি করে নেন মরিস ও কিমো পল। ম্যাচসেরা হয়েছেন কিমো পল। প্রতিপক্ষের ভয়ঙ্কর জুটিটা ভেঙেছেন তিনিই।

তার আগে টস হেরে ব্যাট করে দিল্লি। খুব বেশি বড় স্কোর নাহলেও যতটুকু হয়েছে তাতে ভূমিকা ছিলো মূলত অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ারের ৪৫ আর কলিন মুনরোর ৪০ রান।

ঋষভ পন্ত ২৩ ও অক্ষর প্যাটেল ১৪ রান করেন। তাতে ৭ উইকেটের বিনিময়ে ১৫৫ রান তুলে দিল্লি। হায়দরাবাদের পক্ষে খলীল নেন তিনটি উইকেট আর দুটি নেন ভুবনেশ্বর কুমার।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
সপ্নীল আকাশ ১৫ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:৫০ পিএম says : 0
ভাইরে দালালির একটা সীমা থাকা উচিত। অনলাইনে আপনাদের পত্রিকার উপর ক্লিক করতেই দেখি IPL ফিচার। কিন্তু কেন ? কই BPL নিয়ে ত এত বড় ফিচার করেননি। আর যতসব বস্তাপঁচা খবরের ছড়াছড়ি। ভাই এবার একটু ক্ষেমা দেন।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন