ঢাকা, রোববার ২১ জুলাই ২০১৯, ০৬ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৭ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

আন্তর্জাতিক সংবাদ

কালো তালিকাভুক্ত ফেরদৌস ভারতে প্রবেশ নিষিদ্ধ

বিপাকে আরেক অভিনেতা নূর

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

বাংলাদেশের অভিনেতা ফেরদৌসকে কালো তালিকাভুক্ত করেছে ভারত সরকার। বাংলাদেশ সরকার তার ভিসাও বাতিল করেছে। এভাবে পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূলের হয়ে প্রচারে গিয়ে ব্যাপক কোনঠাসা হয়ে পড়লেন বাংলাদেশের অভিনেতা ফেরদৌস। এখন ফেরদৌসের পর বিপাকে পড়তে চলেছেন বাংলাদেশের আরেক অভিনেতা আবদুন গাজি নূর। ইতোমধ্যেই ফেরদৌস ও নূরের বিষয়ে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানিয়েছে বিজেপি। খবর এই সময়। জানা গেছে, তাকে ভারতে কালো তালিকাভুক্ত করেছে ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়। অর্থাৎ ভারতে প্রবেশ তার জন্য নিষিদ্ধ হয়ে গেল। বাংলাদেশ থেকে ট্যুরিস্ট ভিসা নিয়ে এসে ভোট প্রচারে নামেন তিনি। তার ভিসাও বাতিল করেছে বাংলাদেশ সরকার। বিদেশি নথিভুক্তকরণ দফতরের রিপোর্ট পাওয়ার পরই ফেরদৌসকে কালো তালিকাভুক্ত করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, মঙ্গলবার সকাল থেকেই অভিনেতা ফেরদৌস আহমেদকে নিয়ে টানটান উত্তেজনা শুরু হয়। তাকে দেশে ফিরে যাওয়ার নির্দেশ দেয় বাংলাদেশ।
নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ দায়ের করে বিজেপি নেতা জেপি মজুমদার বলেছেন, ‹ভারতে নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে পারেন না বিদেশিরা। ভিসা নিয়ম ভাঙার জন্য ওর (ফেরদৌস) গ্রেফতার হওয়া উচিত।›
রোববার উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জে তৃণমূল প্রার্থী কানাইয়ালাল আগরওয়ালের সমর্থনে প্রচার করেন বাংলাদেশের অভিনেতা ফেরদৌস। এরপরই পশ্চিমবঙ্গকে ‹পশ্চিম বাংলাদেশ› বানানোর চেষ্টা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি কটাক্ষ করে বলেন, ‹এমনটা আগে কখনও দেখেনি। কাল হয়তো ইমরান খানকেও প্রচারে ডাকবে তৃণমূল।›
ফেরদৌসের ডর এবার বিপাকে পড়তে চলেছেন আর এক বাংলাদেশি অভিনেতা আবদুন গাজি নূর। রাণী রাসমণি সিরিয়ালে রাসমণির স্বামী রাজচন্দ্রে দাসের ভ‚মিকায় অভিনয় করে তিনি ইতোমধ্যেই নজরে এসেছেন।
অতি স¤প্রতি তাকেও দেখা গেছে তৃণমূল নেতা মদন মিত্রর সঙ্গে দমদমের তৃণমূল প্রার্থী সৌগত রায়ের প্রচার অভিযানে অংশ নিতে। সেখানে সৌগত রায়ের জন্য ভোট চাইছেন মদন মিত্র, আর সেই একই হুডখোলা গাড়িতে রয়েছেন নূর। সেই ছবি সামনে আসতেই আসরে নেমেছে বিরোধীরা।
তবে নূরের মতে, ব্যক্তিগত সম্পর্কের খাতিরে তিনি মদন মিত্রর সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন মাত্র। সেখানে নির্বাচনী প্রচারে যে তাকে ডাকা হয়েছে, তা তিনি জানতেনই না। ফেরদৌসের ঘটনার পর নিজের ভবিষ্যত নিয়ে অত্যন্ত উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন নূর।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (11)
Mohammad Anwar ১৮ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৬ এএম says : 1
সব খানে দালালি চলে নারে ফেরদৌস !!! সে এখনো বাংলাদেশ আর ভারতের আইনের তফাত বুঝে নাই । আরে আহম্মক ভারত কিন্তু বাংলাদেশ নয়, যে পুলিশ, বিজিবি, র‍্যাব রাতের আধাঁরে ভোটের বক্স ভরে দিবে - নিলর্জ্জ কোথাকার । ঐখানে রকিব আর নুরুল হুদা মত নির্বাচন কমিশন নেই, ঐখানের নির্বাচন কমিশনার গন দেশের চাকুরী করে দলের না । ভবিষ্যৎ এ কোন কিছু করার আগে হাজার বার চিন্তা করে নিস,, পাগল কোথাকার ।
Total Reply(0)
Imrul Hasan ১৮ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৬ এএম says : 0
হুম, ওটা বাংলাদেশ না যে,, অন্য দেশের মাতাব্বরী মানে নিবে,, তাদের দেশের রাজনীতিতেে!
Total Reply(0)
NAhmed ১৮ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৬ এএম says : 0
ক্ষমা চাইবার আগে উনি কোন দেশি সেটা আগে পরিষ্কার করতে হবে? বাংলাদেশে আওয়ামী লীগের লেবাস পরে অন্য দেশে গিয়ে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিয়ে নিজে যেমন বিতর্কিত হয়েছেন তেমনি এদেশকেও বিতর্কিত করেছেন।
Total Reply(0)
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ১৮ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৬ এএম says : 0
দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করেছেন । আমরা চাইনা দেশের মানুষ তার কৃতকর্মের জন্য অন্য দেশ থেকে অপমানিত হয়ে আসুক।
Total Reply(0)
Rubel Ahmed ১৮ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৭ এএম says : 0
ফেরদৌস সাহেব কেনো ভারতে দালালী করতে গিয়ে দেশের ভাবমূর্তি নস্ট করলেন ❓
Total Reply(0)
Masud alam akash ১৮ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৮ এএম says : 0
ছিনেমা বা নাটকে কেউ যখন ওনাকে ব্যবহার করেনা তখন অভাবের তাড়নায় উনি নির্বাচনী প্রচারণাকে পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন ।যাক এটাতেও যখন ধরা খেলেন ,তাহলে আপনি আরও যা করতে পারেন তা হলো - বাস বা লঞ্চে ঢেকে ঢেকে লোক তুলতে পারেন, ফুটপাথে গলা ফাটিয়ে চিৎকার করে হকারদের হেলপার হিসেবে কাজ করতে পারেন , এমনকি বাজারে বাজারে যারা মলম বিক্রি করে তাদের সাথে গলাবাজি করে লোক জড়ো করতে পারেন ।গরুর বাজারে গরুর দালালিও করতে পারেন ।আপনার যা ইমেজ কাজে লাগান এসব কাজে দ্রুত উন্নতি করতে পারবেন ।
Total Reply(0)
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ১৮ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৮ এএম says : 0
দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করেছেন । আমরা চাইনা দেশের মানুষ তার কৃতকর্মের জন্য অন্য দেশ থেকে অপমানিত হয়ে আসুক।
Total Reply(0)
Rupom ১৮ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 0
এখানে ক্ষমা চাইতে হলে ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি লিখে ক্ষমা চান, বাংলাদেশে ক্ষমা চেয়ে লাভ নেই। আর কথায় বলে ভাবিয়া করিও কাজ করিয়া ভাবিও না। ভারতের নির্বাচনী প্রচারণার কাজে জড়িত হওয়া একদম উচিৎ হয়নি।
Total Reply(0)
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ১৮ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 1
একশ্রেণির লোক ফেরদৌসকে ব্লাকলিস্টেড করাতে খুশি হয়েছে, তাঁর প্রধান কারণ সে একজন আওয়ামী লীগ সমর্থক। ভারতের নির্বাচন কমিশনের আচরণবিধিতে এমন কোনো ব্যাপার নেই যে একজন বিদেশী কোনো প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা চালাতে পারবেন না। ভিসার শর্তভঙ্গ করার জন্য তার ভিসা ক্যান্সেল করা হয়েছে। তা ভিসাপ্রদানের শর্ত কি তা কয়জন জানে? এই যে এতো মানুষ ভিসা নিয়ে ভারতে যায় তারা সবাইকি জানে যে ইন্ডিয়ান গভর্নমেন্ট ঠিক কি কি শর্তে একজনকে ভিসা দেয়? ওনার ভুলটা অনিচ্ছাকৃত। ক্ষমা চেয়েছেন, মিটে গেল। এটা নিয়ে আর জল ঘোলা করার কারণ দেখি না।
Total Reply(0)
Mohammad Shahajahan ১৮ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 0
He thought it was Bangladesh election commission, which didn't see everyone, it varies from man to man and political party to party .
Total Reply(0)
MAHMUD ১৮ এপ্রিল, ২০১৯, ৪:৫৪ এএম says : 0
Mr Famous NAIYOK, "As you make your bed,so you must lie on it".
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন