ঢাকা, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ০৬ ভাদ্র ১৪২৬, ১৯ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

খেলাধুলা

সেরি আ চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাস

এবার রোনালদোর ইতালিজয়

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ এপ্রিল, ২০১৯, ২:০৪ এএম | আপডেট : ৯:২৩ এএম, ২১ এপ্রিল, ২০১৯

গত মঙ্গলবার এই মাঠে আয়াক্সের কাছে হেরে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকে ছিটকে যায় ইউভেন্তুস। চার দিন পর সেখানেই প্রিয় সমর্থকদের উৎসবের উপলক্ষ্য এনে দিলো মাস্সিমিলিয়ানো আল্লেগ্রির শিষ্যরা।

সেই হতাশা ভুলে লিগ শিরোপা জয়ের উল্লাসে মেতে উঠলো জুভেন্টাস। ফিওরেন্তিনাকে হারিয়ে টানা অষ্টমবারের মতো সেরি আর মুকুট পরলো প্রতিযোগিতার সফলতম দলটি।

ঘরের মাঠে শনিবার রাতে ২-১ গোলে জিতে পাঁচ ম্যাচ হাতে রেখেই শিরোপা উল্লাসে মেতে ওঠে ওল্ড লেডি খ্যাত দলটি। ডিসেম্বরে লিগের প্রথম পর্বে দলটির মাঠে ৩-০ গোলে জিতেছিল তুরিনের ক্লাবটি।

সেই সঙ্গে প্রথম ফুটবলার হিসেবে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ, স্প্যানিশ লা লিগার পর ইতালির শীর্ষ লিগ শিরোপাও জেতা হয়ে গেলে ক্রিশ্চিয়াসো রোনালদোর।

এসপিএএলের বিপক্ষে গত সপ্তাহেই শিরোপা নিশ্চিত করার সুযোগ ছিল জুভেন্টাসের। কিন্তু তাদের কাছে হার অপেক্ষায় রাখে শিরোপাধারীদের। অবশেষে ঘরের মাঠেই আসে সেই কাঙ্ক্ষিত উপলক্ষ্য।

শিরোপার হাতছানিতে মাঠে নামা জুভেন্টাস ম্যাচের শুরুতেই গোল খেয়ে বসে। ষষ্ঠ মিনিটে ডান দিকের বাইলাইন থেকে ফেদেরিকো চিয়েজার নেওয়া নিচু শট ঝাঁপিয়ে ঠেকান গোলরক্ষক ভয়চেখ স্ট্যাসনি; কিন্তু বিপদমুক্ত করতে পারেননি। আলগা বল ছোট ডি-বক্সের মুখে পেয়ে জোরালো শটে জালে জড়ান সার্ব ডিফেন্ডার নিকোলা মিলেঙ্কোভিচ।

৩৪তম মিনিটে আবারও গোল খেতে বসেছিল স্বাগতিকরা। তবে ইতালিয়ান ফরোয়ার্ড চিয়েজার জোরালো শট ভাগ্যের ফেরে পোস্টে বাধা পায়। ৪৩তম মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে থেকে তার নেওয়া বুলেট গতির শট ক্রসবারে লাগলে আবারও বেঁচে যায় শিরোপাধারীরা।

অতিথিদের এই দুই হতাশার মাঝে সমতায় ফেরে শুরু থেকে নিজেদের মেলে ধরতে ব্যর্থ হওয়া জুভেন্টাস। ৩৭তম মিনিটে মিরালেম পিয়ানিচের কর্নারে দুরূহ কোণ থেকে নিচু হয়ে দারুণ হেডে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার আলেক্স সান্দ্রো।

দ্বিতীয়ার্ধের অষ্টম মিনিটে সৌভাগ্যসূচক গোলে এগিয়ে যায় জুভেন্টাস। ডান দিক দিয়ে গতিতে একজনকে ফাঁকি দিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে বাইলাইন থেকে গোলমুখে শট নেন রোনালদো। বল আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডার হের্মান পেস্সেইয়ার পায়ে লেগে গোলরক্ষকের দুপায়ের ফাঁক গলে ভিতরে ঢোকে।

এগিয়ে যাওয়ার পর প্রতিপক্ষের উপর প্রবল চাপ তৈরি করে জুভরা। ৬৪তম মিনিটে রোনালদোর শট প্রতিপক্ষের পায়ে প্রতিহত হওয়ার পর ফিরতি বলে পিয়ানিচের জোরালো শট কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান গোলরক্ষক। শেষ দিকে ফরাসি মিডফিল্ডার ভাইয়ান দাবোর শট ঠেকিয়ে জয় নিশ্চিত করেন গোলরক্ষক স্ট্যাসনি।

ইতালির শীর্ষ লিগে এই নিয়ে মোট ৩৫টি শিরোপা জিতলো জুভেন্টাস। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৯ বার করে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে এসি মিলান ও ইন্টার মিলান।   

৩৩ ম্যাচে ২৮ জয় ও তিন ড্রয়ে চ্যাম্পিয়নদের পয়েন্ট ৮৭। ২০ পয়েন্ট কম নিয়ে দুই নম্বরে আছে এক ম্যাচ কম খেলা নাপোলি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন