ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

ইসলামী বিশ্ব

আরব নেতাদের নিয়ে বৈঠক ডেকেছে সউদী

স¤প্রতি সন্ত্রাসী হামলা নিয়ে উদ্বেগ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ মে, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

সউদী আরব ও আমিরাতে সন্ত্রাসী হামলার পরিপ্রেক্ষিতে মধ্যপ্রচ্য এবং আরব নেতাদের সঙ্গে আলোচনার জন্য জরুরি বৈঠক ডেকেছেন সউদী বাদশাহ সালমান। পবিত্র নগরী মক্কাতে আগামী ৩০ মে ওই বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন সউদীর পররাষ্ট্রমন্ত্রী।
আরব আমিরাতের উপকূলে গত শনিবার চারটি বাণিজ্যিক হামলা এবং এর দুদিন পরই সউদীর রাজধানীর রিয়াদের কাছে একটি তেল শোধনাগারে ড্রোন হামলা চালানো হয়। এসব হামলার পেছনে ইরান জড়িত বলে দাবি করছে সউদী আরব ও তার মিত্ররা।
সংযুক্ত আরব আমিরাতের ফুজায়রা বন্দরের কাছে তেলবাহী জাহাজ ‘নাশকতামূলক› হামলার শিকার হওয়ার পর ইরানের বিরুদ্ধে আরও আগ্রাসী অবস্থান নিতে রিয়াদ ও আবুধাবি সরকার যুক্তরাষ্ট্র ছাড়াও মিসরের ওপর চাপ সৃষ্টি করছে। তবে কায়রো সেই পথে যেতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। একটি কূটনীতিক সূত্র জানিয়েছে, ন্যূনতম পর্যায়ে হলেও ইরানের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক বজায় রাখাকে কায়রো গুরুত্ব দেয়। কিন্তু পারস্য উপসাগরীয় দেশগুলো তেহরানের সঙ্গে সরাসরি সংঘাতে যেতে কায়রোকে নানাভাবে প্রলুব্ধ করার চেষ্টা করছে।
মিসরের একটি কূটনৈতিক সূত্র জানিয়েছে, মধ্যপ্রাচ্যে সেনা পাঠানোর বিষয়ে মিসরকে রাজি করতে দেশটিকে আর্থিক এবং তেল সুবিধা দেয়ার পাশাপাশি সেখানে সরাসরি বিনিয়োগের প্রস্তাব দিয়েছে সউদী আরব এবং আরব আমিরাত।
সংবাদমাধ্যমটি আরও জানিয়েছে, সউদী আরবের তেল কোম্পানি ‹আরামকো› মিসরকে প্রতি মাসে সাত হাজার ৫০০ কোটি ডলার মূল্যের তেল ফ্রি দেয়ার সময়সীমা বাড়ানোর পাশাপাশি মিসরের কেন্দ্রীয় ব্যাংকে বিপুল পরিমাণ ডলার জমা রাখার প্রস্তাব দিয়েছে রিয়াদ। এছাড়া আরব আমিরাতও মিসরের মোট রিজার্ভ বাড়াতে ১৫ বিলিয়ন ডলার জমা রাখার প্রস্তাব দিয়েছে। সূত্র : রয়টার্স।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (11)
রঙ্গিলা মাঝি ২০ মে, ২০১৯, ১:১৭ এএম says : 0
ইরান আর তুরস্ক বাদ দিলে এই দুনিয়ায় আর মুসলমানদের অস্তিত্ব নেই বল্লেই চলে। বাকি সব মুসলিম দেশ গুলা কাফিরদের ...বর্তমান প্রেক্ষাপটে।
Total Reply(0)
MD Razu ২০ মে, ২০১৯, ১:১৯ এএম says : 0
তিনটি গরু ছিল একটা সাদা ছিল বাকি দুটি কাল। তারা মিলেমিশে থাকতো তাই কিছু ভয়ে আক্রমন করতো না।কিন্তু একদিন কালো দুটি ভাবল সাদা এটার কারনে আমরা ধরা পড়ে যাব তাই তারা তাকে এবোয়েড করে চললো। অন্যদিকে একটা নেকড়ে ওত পেতে আছে। এই সুযোগে সাদাটাকে আক্রমন করে। ওই দুটো তা শুধু দেখে। এরা কমে গেলে একদিন একটার উপরে আক্রমণ করে। আর এভাবে ইরানকে প্রথমে আক্রমন করবে।তারপর অন্যান্যগুলো।তখন বাধা দেওয়ার মতো কেউ থাকবেনা। যেমনটা করেছিল আফগানিস্তানে,ইরাকে,ফিলিস্তিনে।প্রথমে নিজেদেরকে দিয়ে নিজেদের মারবে পরে তাদের খেলা শুরু হবে।
Total Reply(0)
Hassan Mahamud ২০ মে, ২০১৯, ১:১৯ এএম says : 0
আরব দেশে তুরস্কের এরদোগান ইরানের হাসান রুহানি মালয়েশিয়ার মাহথির মোহাম্মদের মত দুই তিনটা নেতা ছাড়া বাকি সব দেশের নেতারাই এখন সৌদিআরবের মত ইহুদি আমেরিকার দালালে পরিনত হইছে
Total Reply(0)
Mominul Haque Mamun ২০ মে, ২০১৯, ১:২০ এএম says : 0
আরব নেতা কে চোখে পডে না জখন কোন মোসলমানরা মার খায় তখন কাউকে খুজে পাওয়া জায় না নেতা ফুটাও
Total Reply(0)
Nazim Uddin ২০ মে, ২০১৯, ১:২১ এএম says : 0
সৌদির এটা বুঝা উচিত যে ইসরাইল এবং আমেরিকা নিজেদের স্বার্থ উদ্ধারের জন্য সৌদিকে ইরানের বিরুদ্ধে বান্দরের মত নাচাচ্ছে। আজকে যদি ইরান ইসরাইল আমেরিকার মাধ্যমে ধ্বংসের শিকার হয় এর পরে ভবিষ্যতে সৌদি ও তাদের লক্ষ্য বস্তুতে পরিণত হবে। কারণ আমেরিকা যার বন্ধু হয় তার শত্রুর দরকার হয়না
Total Reply(0)
Амена Хан ২০ মে, ২০১৯, ১:২১ এএম says : 0
যুদ্ধে ব্যপক মানুষের ক্ষতি করে আর কারো জন্য আয়ের উৎস তৈরি হয়,ইরান আক্রান্ত হোলে সৌদিসহ পুরা এলাকায় আগুন জলবে,লুটের এলাকা হবে,সব সময়ের মত লাভবান কোন দেশ হবে সবারই জানা।
Total Reply(0)
ম নাছিরউদ্দীন শাহ ২০ মে, ২০১৯, ২:৩১ এএম says : 0
আল্লাহ তায়ালার বিচার দিবসে পৃথিবীর কৃতিম রাজা বাদশাদের ডাক দিয়ে হিসাব চাইবেন কিভাবে রাষ্ট্র পরিচালনা করেছো হিসাব দাও। আদি অন্ত হতে আগামীর যত রাজা বাদশা দুনিয়ায় ক্ষমতাশালীরা ভয়াবহ সময়ে দিশাহারা হয়ে যাবেন। হিসাবের পাহাড় হবে। ঐ কঠিন সময়ের কথা হিসাব নিকাশের কথা শয়তানের ইচ্ছায় ভুলে গেছেন। মহান আল্লাহর বিচারের আদালতে আমরা য়ার য়ার আমলনামা হাতে থাকবে। সেদিন বালি পরিমাণ কারো প্রতি কোন জুলুম করা হবেনা। হে দয়ালু আল্লাহ আপনার দরবারে। আপনার বিচারের দরবারে। এই দুনিয়াই পকৃত মুসলমান হিসাবে হক ভাবে চলার তৌফিক দাও। আমাদের পাচ ওয়াক্ত নামাজের মাধ্যমে আপনাকে সেজদা করার তৌফিক দাও। আখেরাতের সম্মান আসল সম্মান। দুনিয়ার ইজ্জত সম্মান কে আপনী হেফাজত কারী। আল্লাহ ইসলামের আপনী হেফাজত করুন। সারাবিশ্বের মুসলমানদের আপনী হেফাজত করুন। ইসলামের নামে নিরহ মানুষ হত্যাকারী আই এস দের হতে আমাদের হেফাজত করুন। হে রাহমানির রাহিম বিশ্বের শাসক রাজা বাদশা ইহুদি কাপেরের গভীর ষড়যন্ত্রের ফাদে পড়েছে। তাদের আপনী হেফাজত করুন
Total Reply(0)
raihan ২০ মে, ২০১৯, ৭:৫৬ পিএম says : 0
সৌদি রাজ পরিবার আমেরিকার দালাল আর ইরান রাশিয়ার দালাল। এই রাজ পরিবারের পতন দরকার। ইরানের খমেনি সরকারেরও পতন দরকার।
Total Reply(0)
Razaul ২০ মে, ২০১৯, ২:৫০ এএম says : 0
এক মাএ ইরাক ছিল মোসলমানদের পক্ষে কথাবলারমত সাহসি এমিরিকা ইরাককে ভয়পেত তাই মিথ্যা সরযন্ত করে ইরাককে ধংসকরল সৌদীআরব তখন ঘুমিয়ে ছিল এখন ইরান আর তোরস্ক আছে ইসলামের পক্ষে তাই ইহুদী বাদি ইজরায়েল আর এমিরিকার মাথাবেথা কিবাবে এই দুই দেশকে দংশ করাযায় আন্তরজাতিক সসন্তাসি রাস্ট এমিরাকা সৌদিআরবের সাথে সর্ম্পক ভালরেখে এমিরিকা গুপনে সৌদী আরবে সন্তাসি হামলাকরে দায় চাপাচ্ছে ইরেনের উপর আর সৌদিআরব এখন এমিরিকার দালালি করতেছে এখন ইরানকে দংস করবে সৌদীআরব এমিরাকাকে সহায়তা করবে তারপ ইহুদীবাদি ইসরায়েল তুরস্ক দংস করবে সৌদিআরব সহায়তাকরবে তার পর এমিরিকা সৌদিআরবকে বলবে আমাদের ফ্রি তেল দিতেহবে তেল নাদিলে ধংস করবে সৌদীআরবকে তখন সৌদীআরব বুজবে এমিরিকা সত্যিকার অর্থে মুসলমানদের বন্দু নাকি সত্তু গাধা পানিখায় গৌলাকরে কিন্তু সৌদীআরব পানি গোলা করেও খেতেপারবেনা কারণ সৌদীআরব যখন বিপদে পরবে তখন সৌদিআরবের পাশে কেউ থাকবেনা তাই আমি সৌদী আরবকে অনুরোদ করব এখনো সময় আছে আন্তরজাতিক সন্তাসি রাষ্ট এমিরিকাকে বাদদিয়ে মোসলিম রাষ্টগোলো নিয়ে আলাদা জাতিসংঘ করে মোসলিম সত্রুদের বিরুদ্দে রুখে দারানোর জন্য !
Total Reply(0)
Md.Shahanshah ২৩ মে, ২০১৯, ১:৪৬ পিএম says : 0
At present saudi is a big saytan . Salman is most enemy for muslim ummah .
Total Reply(0)
পৃথীবিতে কোন সৎ মুসলমান সাংবাদিক নাই যে মুসলিম বিশ্বকে বুজানোর মত সব মুসলিম দেশ গুলি একত্রে থাকলে ইহুদিরা মাথা নারা দেওয়ার সাহস পাবেনা মুসলিমের উপ পতিটি মুসলিম রাষ্ট এক থাক এরকম সাংবাদিক কি নাই মুসলিম রাষ্ট গুলিকে বুজানোর মত একটা দেশ জার নাম আমেরিকা সারা বিশ্বকে নাচাচ্ছে আর এই আমেরিকার নাচ থামানোর কো রাষ্টনাই আমেরিকা দেখছে কি
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন