ঢাকা, বুধবার ১৯ জুন ২০১৯, ৫ আষাঢ় ১৪২৬, ১৬ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

আন্তর্জাতিক সংবাদ

চীনা পণ্যে সয়লাব হতে পারে ভারতীয় বাজার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ মে, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

চলমান বাণিজ্য উত্তেজনা থেকে শিল্পগুলো রক্ষা করতে চীন তার রফতানি ভারতসহ উদীয়মান বাজারগুলোর দিকে চালিত করতে পারে। ফিচ গ্রুপের কোম্পানি ইন্ডিয়া রেটিংস এন্ড রিসার্স এক রিপোর্টে শুক্রবার এ কথা জানিয়েছে।
রিপোর্টে বলা হয়, এতে বিশেষ করে ইলেক্ট্রনিক পণ্য, লোহা ও স্টিল এবং জৈব রসায়নে মতো পণ্যের ক্ষেত্রে ভারতের অভ্যন্তরীণ বাজারে চাহিদা-সরবরাহের গতিশীলতা ব্যাহত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সংস্থাটি মনে করছে যুক্তরাষ্ট্রে চীনের বাণিজ্য প্রবাহ কমে গেলে ভারতে ইলেক্ট্রনিক ও ইলেক্ট্রিক্যাল কম্পোনেন্ট, স্টিল, কেমিকেল, প্লাস্টিক আইটেম ও অন্যান্য পণ্যের ঢল নামবে।
রিপোর্টে আরো বলা হয়, রফতানি পড়ে যাওয়ায় চীনা মুদ্রা ইউয়ানের অবমূল্যায়ন করা হলে তা ভারতীয় রুপির তুলনায় বেশি সুবিধা পাবে। এতে ভারতীয় রফতানির প্রতিযোগিতামূলক সুবিধা খর্ব হবে। ২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্র যত পণ্য আমদানি করেছিলো তার ১৮% ছিলো চীন থেকে, যা যুক্তরাষ্ট্রের জিডিপি ২.৩৪%।
বৃহস্পতিবার ট্রাম্প প্রশাসন চীনের টেলিকম জায়ান্ট হুয়াওয়ে টেকনলজিস কোম্পানি লিমিটেডকে কালো তালিকাভুক্ত করলে বিশ্বের শীর্ষ দুই অর্থনীতির মধ্যে বাণিজ্য উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। কালো তালিকাভুক্তির ফলে হুয়াওয়ের পক্ষে কোন মার্কিন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কাজ করা অত্যন্ত কঠিন হয়ে যাবে। চীনের পত্রিকা পিপলস ডেইলি শুক্রবার লিখে, বাণিজ্যযুদ্ধের মাধ্যমে চীনকে দমানো যাবে না। এটা আমাদেরকে আরো শক্তিশালী হতে সহায়তা করবে।
গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি আরো মনে করে যে, চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে চলমান বাণিজ্য টানাপোড়ন থেকে ভারতের বেশি সুবিধা পাওয়ার সুযোগ নেই।
এর কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে রিপোর্টটিতে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রে ভারত ও চীন যেসব পণ্য রফতানি করে সেগুলোর মধ্যে বিপুল তফাৎ রয়েছে। যেমন ২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রে ভারতীয় রফতানি পণ্যের ৩০% ছিলো ফার্মাসিউটিক্যাল পণ্য, দামি পাথর ও অলংকার। অন্যদিকে একই বছর যুক্তরাষ্ট্রে চীনা রফতানি পণ্যের ৪৭% ছিলো ইলেক্ট্রনিক পণ্য ও মূলধনী পণ্য। চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সর্বশেষ শুল্ক যুদ্ধ শুরু হয় গত সপ্তাহে। ডোনাল্ট ট্রাম্প ২০০ বিলিয়ন ডলার মূল্যের চীনা পণ্যের উপর শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ২৫ শতাংশ করার ঘোষণা দেন।
ট্রাম্প বর্তমান বাণিজ্য উত্তেজনার জন্য চীনকে দায়ি করেন। বিশ্বের দুই শীর্ষ অর্থনীতির মধ্যে ১০ মাস ধরে চলা বাণিজ্য যুদ্ধ অবসানে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের আলোচকদের মধ্যে বৈঠক ব্যর্থ হয়েছে। সূত্র : এসএএম।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন