ঢাকা মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

রোমানিয়া-পোল্যান্ডকে পুতিনের হুমকি

প্রকাশের সময় : ২৯ মে, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : রোমানিয়া ও পোল্যান্ডকে হুমকি দিলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন। গত শুক্রবার রাজধানী এথেন্সে গ্রিস প্রধানমন্ত্রী আলেক্সিস সিপ্রাসের সঙ্গে বৈঠককালে তিনি এ হুমকি দেন। পুতিন অভিযোগ করে বলেন, পোল্যান্ড ও রোমানিয়া তাদের মাটিতে যুক্তরাষ্ট্রকে তাদের ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধ ব্যবস্থা মোতায়েনের সুযোগ দিয়েছে। এটি রাশিয়ার নিরাপত্তা জন্য হুমকি হয়ে উঠেছে। আর এ কারণে এই দেশ দু’টি রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্রের লক্ষ্যবস্তু হতে পারে। তিনি বলেন, মস্কো এই ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধ ব্যবস্থা মোতায়েনের বিরুদ্ধে বারবার সতর্ক করে আসছে। কিন্তু ওয়াশিংটন ও তার মিত্ররা এতে কান দেয়নি।
এর আগে গত মাসে মার্কিন সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, ইরানের হামলা থেকে রক্ষা পেতে এই ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধ ব্যবস্থা মোতায়েন করা হয়েছে, রাশিয়ার জন্য নয়। এই ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধ ব্যবস্থার একটি অংশ রোমানিয়ায় মোতায়েন করা হয়েছে। অপর অংশটি পোল্যান্ডে মোতায়েনের কাজ চলছে। পুতিন বলেন, যদি রোমানিয়ার জনগণ স্বাভাবিকভাবে সীমা অতিক্রম করার অর্থ না বুঝে থাকে তাহলে আমাদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য আমরা সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নিব। একই বিষয় পোল্যান্ডের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। তবে কী ধরনের পদক্ষেপ হতে পারে সে ব্যাপারে পুতিন কিছুই বলেননি। তবে তিনি বলেন, আমাদের প্রতিবেশীদের কাছে ক্ষেপণাস্ত্র না আসার আগ পর্যন্ত আমরা কোনো পদক্ষেপ নেব না। এর আগে পুতিন বলেছিলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন রাশিয়ার সহযোগিতা ছাড়া বিশ্বকে নেতৃত্ব দিতে পারবে না।
গত শুক্রবার দু’দিনের গ্রিস সফরের আগে এক নিবন্ধে তিনি একথা বললেন। গত বৃহস্পতিবার দৈনিক কাথিমেরিনি পত্রিকায় এ নিবন্ধটি প্রকাশিত হয়। পুতিন ইউরোপের সঙ্গে একটি জ্বালানি মৈত্রী গড়ার আহ্বান জানিয়েছেন। এছাড়া রাশিয়ার ইইউ গমনকারীদের জন্য ভিসা পদ্ধতি সহজ করারও আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।
পুতিন লিখেছেন, নতুন আন্তর্জাতিক বাস্তবতায় রাশিয়াসহ সব ইউরোপীয় দেশের সক্ষমতা সমন্বয়ের মাধ্যমেই কেবল ইউরোপীয় ইউনিয়নের কার্যকর অবস্থান নিশ্চিত করা যেতে পারে। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট বলেন, আমরা মনে করি, ইইউ’র সঙ্গে আমাদের সম্পর্কে সমাধান করা যায় না এমন কোনও সমস্যা নেই। একটি বহুমুখী অংশীদারিত্ব ফিরে পেতে একমুখী সম্পর্কের ত্রুটিপূর্ণ দৃষ্টিভঙ্গি পরিহার করতে হবে। পরস্পরের মতামত ও স্বার্থের প্রতি সত্যিকার সম্মান থাকতে হবে। রয়টার্স, এএফপি, আরটি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন