ঢাকা, শুক্রবার ২১ জুন ২০১৯, ৭ আষাঢ় ১৪২৬, ১৭ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

সারা বাংলার খবর

সীতাকুন্ডে সংঘর্ষে ৩০ জেলে আহত তিন পুলিশ গুলিবিদ্ধ

সীতাকুন্ড (চট্টগ্রাম) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ২২ মে, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

সীতাকুÐে পুলিশের সাথে জেলেদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। উপজেলার কুমিরা ঘাটঘর জেলে পাড়া এলাকায় রুবেল নামক এক যুবককে আটক করতে গিয়ে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে পুলিশ শতাধীক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোঁড়ে বলে এলাকাবাসীর দাবি।
এসময় পুলিশের সাথে জেলেদের পাল্টা পাল্টি হামলায় তিন পুলিশ গুলিবিদ্ধ হন ও ৩০ জেলে নারী পুরুষ আহত হয়। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত সোমবর রাত ১১টার দিকে সীতাকুÐ থানার এসআই মো. জাহেদ হোসেন জসিম তার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে স্থানীয় রুবেল দাসের কাছে ৩০ হাজার ইয়াবা আছে এমন অভিযোগে তাকে আটক করে। পরে তাকে নিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশের কাছে আটকের কারণ জানতে চান অপর জেলেরা। পুলিশকে বাধা দেন স্থানীয় জেলেরা। তার আগে ওই এলাকার এক বৃদ্ধা বিলাম্ব দাস বার্ধক্যজনিত কারণে স্বাভাবিক মৃত্যু ঘটে। আর এ মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে উত্তেজিত জেলেরা পুলিশের গাড়ির উপর হামলা চালিয়ে ৫ পুলিশকে পিটিয়ে আহত করে এবং রুবেলকে ছিনিয়ে নেয়। এরপর মদের বতল, লাঠি ও ইটপাটকেল ছুঁড়তে থাকে পুলিশের উপর।
সীতাকুÐ মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মো. আফজাল হোসেন বলেন, রুবেল দাসের কাছে ৩০হাজার ইয়াবার কথা নিশ্চিত জেনে পুলিশ সেখানে গিয়ে তাকে আটক করে আনার সময় পুলিশের গাড়ির উপর হামলা চালিয়ে ইয়াবা ব্যবসায়ী রুবেলকে ছিনিয়ে নেয় এবং এসআই জাহেদ হোসেন জসিম ও সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্সের উপর হামলা চালায়। খবর পেয়ে আমরা সেখানে গেলে আমাদের উপরও দফায় দফায় হামলা চালায় এবং ২৫জন পুলিশকে অবরোদ্ধ করে হামলা চালায় তারা।
সীতাকুÐ থানার ওসি মো. দেলওয়ার হোসেন বলেন, বৃদ্ধার মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে পরিস্থিতি গোলাটে করে ইয়াবা ব্যবসায়ী রুবেলকে ছিনিয়ে নিতে এসব ঘটনা ঘটানো হয়েছে। জেলেদের মদের বোতল, ধারালো অস্ত্রের আঘাতে এসআই আলীম ও সেকেন্ড অফিসার সুজায়েত আহত হন। এছাড়া ওসি(তদন্ত) মো. আফজাল হোসেন, কনস্টেবল কামরুলসহ তিনজন গুলিবিদ্ধ হওয়ার পাশাপাশি ওসি (ইন্টিলিজেন্স) সুমন বণিকসহ অনেকেই আহত হয়েছেন।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন