ঢাকা রোববার, ২৪ জানুয়ারি ২০২১, ১০ মাঘ ১৪২৭, ১০ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

ব্যবসা বাণিজ্য

লেনদেনে ডিএসইর সূচকে পতন

প্রকাশের সময় : ২৯ মে, ২০১৬, ১২:০০ এএম

অর্থনৈতিক রিপোর্টার : দেশের প্রধান শেয়ারাবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স গত সপ্তাহের লেনদেনে সামান্য পতন হয়েছে। একই সঙ্গে এক কার্যদিবস সরকারি ছুটির কারণে আগের সপ্তাহের চেয়ে মোট লেনদেনও কম হয়েছে। তবে দৈনিক গড় হিসাবে লেনদেনের পরিমাণ বেড়েছে। ডিএসইর ওয়েবসাইট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
সপ্তাহিক লেনদেনে ডিএসইর মূল্যসূচক ডিএসইএক্স ৪ দশমিক ৮৭ পয়েন্ট বা দশমিক ০৮ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৩৮৮ দশমিক ০১ পয়েন্টে, যা এর আগের সপ্তাহে বেড়েছিল ৯৪ দশমিক ২৩ পয়েন্ট বা ২ দশমিক ১৯ শতাংশ। এ ছাড়া গত সপ্তাহে ডিএসই-৩০ সূচক ১১ দশমিক ২৫ পয়েন্ট ও ডিএসই শরিয়াহ সূচক দশমিক ৮৮ পয়েন্ট কমেছে।
গত সপ্তাহের ৪ কার্যদিবসে ডিএসইতে আর্থিক লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৪৮৮ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। দৈনিক গড় হিসাবে এ লেনদেনের পরিমাণ ৩৭২ কোটি ১২ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহের ৫ কার্যদিবসে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৬৩৪ কোটি ৭৪ লাখ টাকা এবং গড় লেনদেন হয়েছিল ৩২৬ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। এ হিসাবে গত সপ্তাহে মোট লেনদেন কমেছে ৮ দশমিক ৯৫ শতাংশ ও গড় হিসাবে বেড়েছে ১৩ দশমিক ৮২ শতাংশ। মোট লেনদেনের ৯১ দশমিক ৫২ শতাংশ ‘এ’ ক্যাটাগরিভুক্ত, ১ দশমিক ৫৮ শতাংশ ‘বি’ ক্যাটাগরিভুক্ত, ৬ দশমিক ০৭ শতাংশ ‘এন’ ক্যাটাগরিভুক্ত এবং দশমিক ৮৩ শতাংশ ‘জেড’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের মধ্যে লেনদেন হয়েছে।
সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হওয়া ৩২৬টি কোম্পানির মধ্যে ১৪১টির দর বেড়েছে, কমেছে ১৫১টির ও অপরিবর্তিত ছিল ৩৪টির। গত সপ্তাহের লেনদেনে ডিএসইর মূল্য-আয় (পিই) অনুপাত কমেছে দশমিক ৯৫ শতাংশ। সপ্তাহের শুরুতে পিই ছিল ১৪ দশমিক ৪২। যা দশমিক ১৪ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৪ দশমিক ২৮ পয়েন্টে। এ সময়ে বাজার মূলধন কমেছে দশমিক ৩২ শতাংশ। সপ্তাহের শুরুতে ডিএসইর বাজার মূলধন ছিল ৩ লাখ ১০ হাজার ১৪৫ কোটি টাকা। সপ্তাহের শেষে তা কমে দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৯ হাজার ১৫০ কোটি টাকায়।
সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হওয়া ইস্যুগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে শাহজিবাজার পাওয়ারের শেয়ার। এ সময়ে কোম্পানিটির ৫৯ কোটি ৫৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যা গত সপ্তাহের মোট লেনদেনের ৪ শতাংশ। দ্বিতীয় স্থানে থাকা লাফার্জ সুরমার লেনদেন হয়েছে ৫১ কোটি ৩২ লাখ টাকা, যা সপ্তাহের মোট লেনদেনের ৩ দশমিক ৪৫ শতাংশ। ৪৬ কোটি ৮৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে এমজেএল বাংলাদেশ। লেনদেনে এরপর রয়েছে যথাক্রমে- ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন, ডরিন পাওয়ার, খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ, বিএসআরএম লিমিটেড, ওরিয়ন ইনফিউশন, বেক্সিমকো ফার্মা, কেয়া কসমেটিকস।
এমডিসহ ৯ কোম্পানির সব পরিচালককে জরিমানা
নির্ধারিত সময়ে আর্থিক প্রতিবেদন জমা দিতে না পারায় শেয়ারবাজরের তালিকাভুক্ত ৯ কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ (এমডি) কোম্পানিগুলোর পরিচালকদের এক লাখ টাকা করে জরিমানা করেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।
কমিশনের ৫৭৪তম সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। সভায় সিডিবিএলর (সেন্ট্রাল ডিপজিটরি অব বাংলাদেশ) কার্যক্রম তদারকিতে বিএসইসির কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন