ঢাকা, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ০৬ ভাদ্র ১৪২৬, ১৯ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের আইনজীবীর উদ্দেশে আদালত

হাইকোর্টকে হাইকোর্ট দেখাচ্ছেন

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৪ মে, ২০১৯, ১২:০৫ এএম


আদালতের আদেশের পরও বাজার থেকে মানহীন ৫২ পণ্য সরানোর বিষয়ে কোনো প্রতিবেদন জমা দিতে না পারায় নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের প্রতি তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে বিএসটিআইর মানের পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ বিভিন্ন কোম্পানির খাদ্যপণ্য বাজার থেকে সরানোর নির্দেশনা বাস্তবায়ন না করায় নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানকে তলব করেছে হাইকোর্ট। আগামী ১৬ জুন তাকে আদালতে হাজির হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা করতে হবে। এসময় আদালত নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের আইনজীবীকে বলেন, আমাদের ভদ্রতাকে দুর্বলতা মনে করবেন না, ৫২ পণ্য নিয়ে হাইকোর্টকে হাইকোর্ট দেখাচ্ছেন?
গতকাল বৃহস্পতিবার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এমন মন্তব্য করেন। আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার শিহাব উদ্দিন খান। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোখলেছুর রহমান। নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার মুহাম্মদ ফরিদুল ইসলাম। ভোক্তা অধিকারের পক্ষে ছিলেন কামরুজ্জামান কচি।
আদালত বলেন, আপনাদের নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের অফিসে রাখার দরকার কী? আপনারা তো ব্যাংকের কেরানিগিরি করতে পারেন। নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের এখানে থাকার দরকার কী? বাসায় গিয়ে রান্নাবান্নার কাজ করুন।হাইকোর্ট আরও বলেন, নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ আদালতের আদেশ মানেনি। এখনও মানহীন পণ্য বাজারে আছে। তারা ধোঁকা দিয়েছেন। আদালত বলেন, নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ ১৭ জন জনবল নিয়েও আপনারা একটা দোকান থেকে কোনো পণ্য সরাতে পারেননি। ১৭ জনের দলবল নিয়ে অফিসের পাশের কোনো দোকান থেকে একটা প্যাকেটও সরাতে পারেননি। আগামী ১৬ জুন তাকে আদালতে হাজির হয়ে বাজার থেকে ৫২টি পণ্য না সরানোর কারণ ব্যাখ্যা করতে হবে।
স¤প্রতি বিএসটিআই ৪০৬টি খাদ্যপণ্যের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করেছে। এর মধ্যে ৩১৩টি পণ্যের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হয়। ৩১৩টির মধ্যে ৫২পণ্য মানহীন বলে প্রতিবেদন দেন। তবে বাকি ৯৩ পণ্যের পরীক্ষার ফলাফলের প্রতিবেদন ১৬ তারিখের মধ্যে দিতে বিএসটিআইকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
প্রতিষ্ঠান আদালতের আদেশ সংশোধন চেয়ে আবেদন করেছিলেন। আদালত তা আমলে নেয়ার মতো কোনো যুক্তি খুঁজে পাননি।তবে ৫২ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে কেউ যদি তাদের পণ্য বাজারজাত করতে পুনরায় টেস্ট করাতে চায় তাহলে ১৩ জুনের মধ্যে তাদের পণ্য টেস্ট করতে বিএসটিআইকে নির্দেশ দেন আদালত।
এর আগে ১২ মে এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট বাজার থেকে আইনানুসারে এসব পণ্য সরিয়ে নিতে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ ও জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরকে নির্দেশ দেন। একই সঙ্গে ওই আদেশ বাস্তবায়ন করে আদালতে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়। সারাদেশে জব্দের প্রতিবেদন দেয়ায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরকে সাধুবাদ জানান আদালত। গত ৮ মে ভোক্তা অধিকার সংস্থা কনসাস কনজুমার্স সোসাইটি’র নির্বাহী পরিচালক পলাশ মাহমুদের পক্ষে আইনজীবী ব্যারিস্টার শিহাব উদ্দিন খান এ রিট করেন।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন