ঢাকা, বুধবার ১৯ জুন ২০১৯, ৫ আষাঢ় ১৪২৬, ১৬ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

স্বামীর সাথে বিরোধের জেরে স্ত্রীকে গণধর্ষণ

বিভিন্ন স্থানে গণধর্ষণের শিকার আরো ২, শিশুসহ ধর্ষিত ৩

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৫ মে, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

মাছ চাষকে কেন্দ্র করে স্বামীর সাথে বিরোধের জের ধরে নোয়াখালীতে এক গৃহবধূকে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় অস্ত্রসহ দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
এছাড়া ঠাকুরগাঁওয়ে যৌন হয়রানীর কথা পরিবারকে জানানোয় গনধর্ষনের শিকার হয়েছে এক কিশোরী। অন্যদিকে চুয়াডাঙায় প্রতিবন্ধী কিশোরীকে দলবেঁধে ধর্ষণের খবর পাওয়া গেছে।
এ ঘটনায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে ধর্ষক আকাশকে আটক করে। শ্রীবরদীতে ৩ বছরের এক শিশু ধর্ষনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এছাড়া নাটোরের বাগাতিপাড়ায় ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি আটক হয়েছে।
নোয়াখালী: নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার ছয়ানি ইউনিয়নে এক গহবধূকে (২৫) গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে একটি এলজি ও এক রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।
গতকাল শুক্রবার সকালে পুলিশ দোয়ালিয়া গ্রামের একটি বাড়ি ঘেরাও করে তাদের ধরে। তারা হলেন, ওই গ্রামের মোস্তফার ছেলে সাইফুল ও রুদ্রুপুর গ্রামের কফিল উদ্দিনের ছেলে বাবু। এর আগে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে এ দুইজনসহ মোট তিনজন ওই গৃহবধূর ঘরে ঢুকে তাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।
নির্যাতিতার পরিবার সূত্রে জানা গেছে, পুকুরে মাছ চাষকে কেন্দ্র করে অভিযুক্ত হারুন, সাইফুল ও বাবুর সঙ্গে ওই গৃহবধূর স্বামীর বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে গৃহবধূর ঘরে প্রবেশ করে তাকে মারধর করে। পরে অভিযুক্তরা তাকে (গৃহবধ‚কে) একটি কক্ষে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এসময় বাড়ির লোকজন বিষয়টি টের পেয়ে এগিয়ে এলে তারা পালিয়ে যায়।
এ ঘটনায় বেগমগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফিরোজ আলম মোল্লা বলেন, ওই গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে তিনজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ৬০/৭০ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলার পর অভিযান চালিয়ে অস্ত্রসহ দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন ওই গৃহবধ‚কে উদ্ধার করে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
ঠাকুরগাঁও: গৃহবধূকে দলবেধে ধর্ষণের ঘটনার পর ফের ঠাকুরগাঁওয়ে এক কিশোরী দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গত বুধবার রাতে সদর উপজেলার শুখনিপুকুরী ইউনিয়নের পশ্চিমপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। পরে বৃহস্পতিবার সকালে ওই কিশোরীকে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
ধর্ষণের শিকার কিশোরীর পিতা অভিযোগ করে বলেন, কয়েক মাস আগে তার মেয়ে প্রাইভেট পড়তে যাওয়া আসার সময় ওই ইউনিয়নের সড়লাডুবি গ্রামের মিলন রায়সহ ২/৩জন বিরক্ত করে। এ কথা তার মেয়ে মাকে জানানোর কথা জানতে পেরে মিলন ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। বুধবার রাতে ওই কিশোরী শৌচাগারে যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হলে ওত পেতে থাকা মিলন, তার বন্ধু সঞ্জয় ও সতীশ রায় তার মুখ চেপে ধরে বাড়ির পাশে নির্জন এলাকায় নিয়ে যায়। সেখানে ধর্ষণ করে অচেতন অবস্থায় রেখে পালিয়ে যায়। রাতেই খোঁজাখুঁজির পর কিশোরীর পরিবারের লোকজন মেয়েকে উদ্ধার করে সকালে হাসপাতালে ভর্তি করে।
সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. রোকেয়া সাত্তার জানান, ওই কিশোরীর ডাক্তারি পরীক্ষা ও নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।
ঠাকুরগাঁও থানার ওসি আশিকুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজনকে আটক করা হয়েছে। কিশোরীর পক্ষ থেকে কোনো মামলা দিতে আসেনি বলে জানান তিনি।
চুয়াডাঙা: দামুড়হুদায় প্রতিবন্ধী এক কিশোরীকে দলবেঁধে ধর্ষণের খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বুধবার মামলা দায়ের করা হলে বৃহস্পতিবার সকালে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। চুয়াডাঙা পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
পুলিশ ও গ্রামবাসীরা জানান, উপজেলার উজিরপুর গ্রামের দিনমজুরের প্রতিবন্ধী কন্যা ঘটনার দিন বাড়িতে এক ছিল। এ সময় কয়েকজন দুর্বৃত্ত তার মুখ চেপে ধরে পাশের বাগানে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে কিশোরীর চিৎকারে পাশের লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে। এ সময় ধর্ষকরা পালিয়ে যায়।
সন্ধ্যায় কিশোরীর মা বাদী হয়ে দামুড়হুদা মডেল থানায় শহিদুল ইসলামের ছেলে আকাশ, ওমর আলীর ছেলে আল আমিনসহ অজ্ঞাত ৩/৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। পরে থানার অফিসার্স ইনচার্জ সুকুমার বিশ্বাস চুয়াডাঙা থেকে ধর্ষক আকাশকে (২০) গ্রেফতার করে। মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই শামিমুর রহমান জানান, বৃহস্পতিবার ডাক্তারি পরীক্ষা ও জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়েছে।
বাগাতিপাড়া (নাটোর) : নাটোরের বাগাতিপাড়ায় গৃহবধূকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে পাঁকা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ইলিয়াস আহম্মেদ লেলিনকে আটক করেছে বাগাতিপাড়া মডেল থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে একডালা বাজার এলাকা থেকে আটক করা হয় লেলিনকে। আটক লেলিন চকগোয়াশ গ্রামের মসলেম উদ্দিনের ছেলে।
পুলিশ জানায়, উপজেলার তকিনগর গ্রামের এক গৃহবধুকে প্রায়ই কু-প্রস্তাব ও উত্ত্যক্ত করতো লেলিন। সাত মাস পুর্বে ওই গৃহবধূ বিয়ে হয়। তার স্বামী একটি কোম্পানিতে চাকুরির সুবাধে ঢাকায় থাকেন। বুধবার মধ্যরাতে স্বামী না থাকায় গুহবধুর ঘরের দরজায় ধাক্বাধাক্বি করে লেলিন। এসময় গৃহবধু দরজা খুললে মুখে গামছা ঢুকিয়ে তাকে তুলে নিয়ে বাড়ির পাশে পুকুর ধারে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে ধর্ষনের চেষ্টা করে। পরে মেয়েটির চিৎকারে পরিবার ও আসপাশের লোকজন মেয়েটিকে উদ্ধার করে।
বাগাতিপাড়া মডেল থানার এসআই মো: রাকিবুল ইসলাম জানান, এই ঘটনার পরদিন বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গৃহবধূমা বাদি হয়ে থানায় মামলা করেছেন। ওই মামলার পর একডালা বাজার থেকে এদিন রাতে তাকে আটক করে।
শেরপুর : শেরপুরের শ্রীবরদীতে তিন বছরের শিশুকে ধর্ষণ করা হয়েছে। এ অভিযোগে শ্রীবরদী থানায় একটি মামলা হয়েছে। ধর্ষিত শিশুটি শেরপুর জেলা হাসপাতালে ভর্তি চিকিৎসাধীন আছে। থানায় মামলা হওয়ার পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত ইসমাইলকে গ্রেফতার করেছে। পুলিশের পক্ষ থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন