ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

খেলাধুলা

আজই বোলিংয়ে মাহমুদউল্লাহ

বিশ্বকাপের মহড়ায় আজ প্রতিপক্ষ পাকিস্তান

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৬ মে, ২০১৯, ১২:৩৯ এএম

অনুশীলন শুরুর আগে সতীর্থরা যখন ব্যস্ত গা গরমের ফুটবলে, মাহমুদউল্লাহ তখন মাঠের এক পাশে। বল হাতে নিয়ে হাত ঘোরাচ্ছেন স্পিন কোচ সুনীল যোশীর সঙ্গে। কাছ থেকেই তীক্ষ্ন নজর রাখছিলেন ফিজিও তিহান চন্দ্রমোহন। কাঁধের চোটের পর বোলিং বাদ রেখেছিলেন। এ দিনই আবার বোলিংয়ে ফিরলেন মাহমুদউল্লাহ। প্রথম দিনের বোলিং আশা দেখাচ্ছে তাকে ও বাংলাদেশ দলকে। এই অলরাউন্ডের বিশ্বাস, বোলিং করতে পারবেন বিশ্বকাপের আগে প্রস্তুতি ম্যাচেই। যেই শুরুটা হতে পারে আজই। বিশ্বকাপের অফিসিয়াল প্রস্তুতি ম্যাচে এদিন বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ পাকিস্তান। দুপুর সাড়ে ৩টায় কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনসে সরফরাজ আহমেদের দলকে দিয়েই বিশ্বকাপের মহড়ায় নামছে মাশরাফির মুর্তজার বাংলাদেশ। একই সময় ব্রিস্টলে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

গতপরশু দুপুরে বাংলাদেশ দলের অনুশীলন ছিল কার্ডিফের ক্যাথেড্রাল স্কুল মাঠে। গত ফেব্রুয়ারিতে নিউজিল্যান্ড সফরে হ্যামিল্টন টেস্টের পর মাহমুদউল্লাহ প্রথম বোলিং করলেন ছবির মতো সুন্দর এই মাঠেই। শুরুটা অবশ্য ছিল অস্বস্তিময়। নেটে বোলিংয়ের আগে ফিজিওকে পাশে রেখে হাত ঘুরিয়েছেন স্পিন কোচের সঙ্গে। কয়েকবার হাত ঘোরানোর পর অন্তত বার তিনেক মৃদু চিৎকার করে উঠলেন ব্যথায়। চেপে ধরলেন কাঁধে চোটের জায়গাটায়। ফিজিও পর্যবেক্ষণ করলেন নিবিড়ভাবে। কাঁধে টেপ পেঁচিয়েই হাত ঘোরাচ্ছিলেন মাহমুদউল্লাহ। ব্যথা অনুভব করার পর আবার নতুন করে আরও টেপ পেঁচিয়ে গেলেন সেন্টার উইকেটের নেটে। বোলিং করলেন তিন ওভার।

নেটে বোলিংয়ের পরই ম্যাচে বোলিং করার বিশ্বাসটা পাচ্ছেন মাহমুদউল্লাহ। বোলিংয়ের পর যখন অপেক্ষা করছিলেন নিজের ব্যাটিং সেশনের, সেই ফাঁকে শোনালেন আশার কথা, ‘খুব ভালো লাগছে, আজকে প্রথম বোলিং করলাম (চোটের পর)। তিন ওভার বোলিং করেছি। ব্যথা এখনও আছে। তবে মনে হচ্ছে খুব সমস্যা হবে না। প্রস্তুতি ম্যাচেই আশা করি অন্তত দুই-তিন ওভার বোলিং করতে পারব। বিশ্বকাপে আমাদের প্রথম ম্যাচের আগে এখনও এক সপ্তাহ আছে। আশা করি কাঁধের অবস্থা আরেকটু ভালো হবে। অধিনায়কের সঙ্গে কথা বলব, ব্যথা থাকলেও কয়েক ওভার চালিয়ে নিতে পারব। ব্যাটিংয়ে কোনো সমস্যা নেই, এজন্যই আরও সাবধানী থাকতে হচ্ছে, বোলিং করতে গিয়ে যেন ব্যাটিংয়ে কোনো প্রভাব না পড়ে। আশা করি দলের যতটুকু দরকার, বোলিং করতে পারব।’

নিউজিল্যান্ড সফরে ওই হ্যামিল্টন টেস্টে ১ ওভার বোলিং করে একটি উইকেট নিলেও আর বোলিং করেননি। হাত ঘোরাননি ওয়েলিংটনে পরের টেস্টেও। নিউজিল্যান্ড সফর থেকে ফিরেছিলেন ব্যথা নিয়ে। এমআরআই করানোর পর ধরা পড়ে ‘গ্রেড থ্রি টিয়ার’। তাতে ব্যাটিংয়ে সমস্যা না হলেও বোলিং করতে পারছিলেন না। এই চোট থেকে পুরো মুক্তি পেতে অস্ত্রোপচার লাগবেই। তবে ব্যাটিংয়ে যেহেতু সমস্যা নেই, বিশ্বকাপের আগে সেই ঝামেলায় যাননি মাহমুদউল্লাহ। অস্ত্রোপচার না করে কোনোভাবে চোট সামলে বিশ্বকাপে দলের প্রয়োজন বুঝে কয়েক ওভার বোলিং করাই আপাতত তার চাওয়া। প্রথম দিনের বোলিংয়ে মিলছে সেই চাওয়া পূরণের ইঙ্গিত।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন