ঢাকা, রোববার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২২ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

আড়াই বছর ধরে ধর্ষণ

চট্টগ্রাম, নীলফামারী ও নেত্রকোনায় গণধর্ষণসহ শিকার আরো ৫ : আটক ১০

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ জুন, ২০১৯, ১২:০৮ এএম

চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে এক কিশোরীকে আড়াই বছরের বেশি সময় ধর্ষণ করেছে এক যুবক। চট্টগ্রামে কিশোরীকে আটকে রেখে রাতভর গণধর্ষণ করা হয়েছে। নীলফামারীর সৈয়দপুর ও নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় কিশোরীকে গণধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এছাড়া রাজশাহীতে জামের লোভ দেখিয়ে এবং বরগুনার আমতলীতে মুখে মুখে ওড়না পেঁচিয়ে শিশু ধর্ষণ করা হয়েছে। এদিকে, পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ৬ষ্ঠ শ্রেণির স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টা মামলার আসামিসহ বিভিন্ন স্থানে ধর্ষণ মামলায় ১০ জন আটক করেছে পুলিশ। আমাদের ব্যুরো, জেলা ও উপজেলা সংবাদদাতাদের পাঠানো তথ্যে এ প্রতিবেদন :
চট্টগ্রাম : নগরীর কর্ণফুলী থানা এলাকায় কিশোরীকে আটকে রেখে রাতভর গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ পাঁচ দুর্বৃত্তকে পাকড়াও করেছে। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলমগীর মাহমুদ দৈনিক ইনকিলাবকে জানান, খবর পেয়ে গতকাল শুক্রবার ভোর পর্যন্ত টানা অভিযানে ওই পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়। তারা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে।

কর্ণফুলী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মনিরুল ইসলাম বলেন, বুধবার রাত ১০টায় এক কিশোরীকে ফুসলিয়ে জুলধার শুক্কুর ব্রিক ফিল্ডের পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে বখাটেরা রাতভর ধর্ষণ করে। বৃহস্পতিবার সকালে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় ছেড়ে দেয়া হয়। অভিযোগ পেয়ে ওইদিন দুপুর থেকে গতকাল ভোর পর্যন্ত টানা অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়। তারা হলো- চরলক্ষ্যার নুরুল ইসলামের ছেলে মো. ইলিয়াছ (৩২), জুলধার মো. ইউনুচের ছেলে জনাব আলী ওরফে চঙ্কু (৩০), পশ্চিম চরলক্ষ্যার আবুল কালামের ছেলে ইউনুছ (২৫), চরলক্ষ্যার মো. নুরুজ্জামানের ছেলে কামাল উদ্দীন (২৮), চরলক্ষ্যার মো. ইয়াকুবের ছেলে মো. সেকান্দর (৩৩)। গতকাল বিকেলে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। ওসি জানান ধর্ষিত কিশোরীকে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

রাজশাহী : রাজশাহীর বাগমারার দ্বিপপুর গ্রামে গতকাল জাম খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে আট বছরের এক শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে সাদেক হোসেন নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন সূত্রে জানায়, সকালে শিশুটি তাদের বাড়ির পাশে খেলছিল। সকাল নয়টার দিকে সাদেক শিশুটিকে জাম খাওয়ানোর প্রলোভন দেখায়। সে শিশুটিকে এলাকার একটি জঙ্গলের জামগাছ তলায় নিয়ে যায়। সেখানে শিশুটিকে বিবস্ত্র করে ধর্ষণের চেষ্টা করে। শিশুটির চিৎকার শুনে ঘটনাস্থলের পাশ দিয়ে যাওয়া এক ব্যক্তি এগিয়ে আসে। তাকে দেখে সাদেক দৌড় দেয়। পরে থানায় খবর দেওয়া হয়। বেলা ১১টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সাদেককে আটক করে।

শাহরাস্তি (চাঁদপুর) : চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে এক কিশোরীকে বিয়ের ফাঁদে ফেলে আড়াই বছরের বেশি সময় ধর্ষণ করেছে এক যুবক। এ ঘটনায় কিশোরীর স্বজনরা অভিযুক্ত যুবককে সনাক্ত করে একটি মামলা দায়ের করে। পুলিশ মামলার ভিত্তিতে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার সূচীপাড়া উত্তর ইউপি’র শোরসাক গ্রামের ইসমাইল মিজি বাড়ির মৃত আ. রশিদের পুত্র হুমায়ুন কবিরকে (১৯) আটক করে চাঁদপুর জেল হাজতে প্রেরণ করে।

ক্ষতিগ্রস্থ কিশোরী পরিবার ও মামলার স‚ত্র জানায়, ২০১৭ সাল হতে ওই বাড়ির এক শিশু শিক্ষার্থী স্থানীয় অক্সফোর্ড মডেল স্কুলে পড়ুয়া অবস্থায় একই বাড়ির হুমায়ুন কবিরের বড় বোনের নিকট প্রাইভেট পড়তো। ওই সুবাদে কিশোরীর ঘরে হুমায়ুন কবিরের অবাধ যাতায়াত ছিল। সে সুযোগে নানা সময় কিশোরীকে ফুঁসলিয়ে তার সঙ্গে একাধিকবার শারিরীক সম্পর্ক স্থাপন করে। পরে ২০১৮ সালে ওই শিক্ষার্থী (১৫) নারী গৃহ শিক্ষকের বিয়ে হয়ে যায়। এরপরে হুমায়ুন ওই কিশোরীকে প্রাইভেট পড়াতে শুরু করে। সে সুবাদে হুমায়ুন বিয়ের প্রলোভনে বিভিন্ন সময়ে ধর্ষণ করে। এক সময় ওই অবাধ মেলামেশার দরুণ কিশোরী গর্ভবতী হয়ে পড়ে। পরে হুমায়ুন বিষয়টি আঁচ করে তাকে বিয়ের আশ্বাসে আগত সন্তান(ভ্রুন) ঔষধ খাইয়ে নষ্ট করতে প্ররোচনাসহ বাধ্য করে। এঘটনায় কিশোরির দাদি বাদী হয়ে শাহরাস্তি থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী-০৩) এর ৯ (১) ধারায় ধর্ষক হুমায়ুনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. আবদুল আঊয়াল জানান, ধর্ষকে আটক করা হয়েছে, মামলার তদন্ত চলছে, বিধি মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নেত্রকোনা : নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় প্রেমিকের হাত ধরে ঘর ছাড়ে এক কিশোরী (১৭) গণধর্ষণের শিকার হয়েছে। সাতদিন হাওরে আটকে রেখে প্রেমিক ও তার বন্ধুরা মিলে ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় গতকাল শুক্রবার সকালে ওই কিশোরী বাদী হয়ে তার প্রেমিকসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে।
কেন্দুয়া উপজেলা নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক কল্যাণী হাসান বলেন, গত বৃহস্পতিবার দুপুরের তাকে নিয়ে বিয়ে না করে উল্টো নির্জন হাওরের মাঝখানে সেচ পাম্পের ঘরে আটকে রেখে বন্ধুরা মিলে টানা এক সপ্তাহ তাকে ধর্ষণ করে তার প্রেমিক। পরে চেতনানাশক ওষুধ সেবন করিয়ে রাতের অন্ধকারে কেন্দুয়ার একটি সড়কে ওই কিশোরীকে ফেলে চলে যায় ধর্ষকরা। পথচারীরা সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। কল্যাণী ওই কিশোরীর চিকিৎসার সকল ব্যয়ভার বহন করছেন বলেও জানান। কেন্দুয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রাশেদুজ্জামান জানান, চারজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

সৈয়দপুর (নীলফামারী) : নীলফামারীর সৈয়দপুরে এক তরুণী (২০) গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। শহরের উপকণ্ঠে বাইপাস সড়কের পাতাকুঁড়ি ও মোজারমোড়ের মধ্যবর্তী স্থানে গত বুধবার গভীর রাতে ওই গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার তরুণী বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা করেছেন। আর এই ঘটনায় ঘটনায় জড়িত তিন যুবককে গত বৃহস্পতিবার দিনে ও গভীর রাতে পৃথক স্থান থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফারকৃতরা হচ্ছেন, কয়াগোলাহাট দক্ষিণপাড়ার আকবার আলীর ছেলে আমজাদ হোসেন (২৫), কয়াগোলাহাট ডাঙ্গাপাড়া ফজলুর হকের ছেলে আব্দুল খালেক (২৩) ও কয়াগোলাহাট সরকারপাড়ার মো. জোবায়দুল ইসলামের ছেলে মো. আসাদুজ্জামান আসাদ (২৪)। ধর্ষণের শিকার ওই তরুণী নীলফামারী আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ৬ষ্ঠ শ্রেণির স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টা মামলার আসামি মাহাবুর মাতুব্বর (৫৫) কে গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার কুমিরমারা বাজার থেকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃত মাহাবুব উপজেলার হলতা গ্রামের মৃত: মৌলবী ফকের মাতুব্বরের ছেলে।

থানা সূত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত মাহাবুব উপজেলার হলতা এলাকার ৬ষ্ঠ শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রীকে কুমিরমাড়া বাজারে সুবাস ডাক্তারের ফার্মেসীতে ডেকে নিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করে। এসময় ওই স্কুল ছাত্রীর চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে অভিযুক্ত মাহাবুব ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় ওই স্কুল ছাত্রীর দাদা বাদী হয়ে মঠবাড়িয়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।
আমতলী (বরগুনা) : বরগুনার আমতলী উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম চিলা গ্রামে ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ুয়া এক শিশু (১২) কে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে একই এলাকার ৪ সন্তানের জনক শামিম সরদার (৪০) এর বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার সকালে। থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ভিকটিম পরিবার সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার পশ্চিম চিলা আমিনিয়া সিনিয়ার ফাজিল মাদ্রাসার ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ীতে একা অবস্থান করে। এ সময় তার মা তার ছোট দুই ভাই বোনকে নিয়ে নানার অসুখ দেখতে একই ইউনিয়নের রামজি গ্রামে নানা বাড়ী যায় এবং বাবা দিন মজুরের কাজ করতে আমতলী উপজেলা সদরে চলে আসে। এ সুযোগে সকাল অনুমান ৭/৮ টার দিকে উপজেলার পশ্চিম চিলা গ্রামের ৪ সন্তানের জনক মোঃ শামিম সরদার ভিকটিমের বাড়ীতে ঢুকে ভিকটিমের মুখে ওড়না পেঁচিয়ে পড়নের পায়জামা খুলে ফেলে ধর্ষণ করে চলে যায়।

এ ঘটনায় গতকাল শুক্রবার বিকেলে ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে শামিম সরদারকে আসামি করে আমতলী থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ০৯-১৪/৬/২০১৯ইং। আমতলী থানার ওসি (তদন্ত) মনোরঞ্জন মিস্ত্রী বলেন, তদন্ত করে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (12)
Sumona Shaikh Suma ১৫ জুন, ২০১৯, ১০:১১ এএম says : 0
যেন ধর্ষনের গন মিছিল চলছে। এর শেষ কোথায়???
Total Reply(0)
আকাশ ১৫ জুন, ২০১৯, ১২:৩৩ এএম says : 0
আপনারা বিষয়টি প্রকাশের পাশাপাশি সরকারকে চাপ দিন যাতে বিচার নিশ্চিত করুন
Total Reply(0)
Azizul Haque ১৫ জুন, ২০১৯, ১:২২ এএম says : 0
এক্ষেত্রে মেয়েটিও সমান দুষি, সে কেন এমন কাজে সম্মত হল?
Total Reply(0)
আইয়্যামে জাহেলিয়া ১৫ জুন, ২০১৯, ১:২৩ এএম says : 0
আড়াই বচ্ছর ধইরা ধর্ষন ক্যাম্নে অয়..?
Total Reply(0)
Tariquzzaman Razib ১৫ জুন, ২০১৯, ১:২৩ এএম says : 0
ধর্ষণ কাকে বলে আগে জানেন তারপর খবর প্রচার করেন।
Total Reply(0)
Sharif Mahmud ১৫ জুন, ২০১৯, ১:২৩ এএম says : 0
এটারে ধর্ষন বলেন কেমনে। বলেন আপসে সেক্স। ফাজলামি কর বাদ দেন। মেয়ে রাজি ছিল বলে এতদিন আকাম করছে
Total Reply(0)
Shuvechcha Nawshan ১৫ জুন, ২০১৯, ১:২৪ এএম says : 0
বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘস্থায়ী এবং গিনেজ বুকে স্থান করে নিতে সক্ষম
Total Reply(0)
ভিনদেশী রাজপুত্র ১৫ জুন, ২০১৯, ১:২৪ এএম says : 0
সব নাটক,,, মেয়ে ও রাজি ছিলো,,, নাহলে আড়াই বছর ধরে কেও ধর্ষন করে কিভাবে,,,,
Total Reply(0)
Helal Uddin ১৫ জুন, ২০১৯, ১:২৪ এএম says : 0
আড়াই বছর ধরে ধর্ষন কি ভাবে হয়? ওই শিক্ষক এর সাথে ছাত্রীর ভাব ছিল এখন মনে হয় কোন সমস্যা হইছে তাই এমন বলছে।
Total Reply(0)
Sumon Ahmmed ১৫ জুন, ২০১৯, ১:২৪ এএম says : 0
বলছিনা ছেলে নির্দোষ,কিন্তু মেয়েও কম অপরাধী না।ছেলের জেল হোক বা ফাসি,মেয়ে কি তার সম্মান,ইজ্জত ফিরে পাবে!যেমন কর্ম তেমন ফল।
Total Reply(0)
dr.noor muhammad ১৫ জুন, ২০১৯, ৮:১৭ পিএম says : 0
জোর করে একটা মেয়ের সাথে সেক্স করা যায় না।পত্রিকায় যে খবর গোলে আসে তাতে দেখানো হয় মেয়ের কোন দোষ নেই,দোষ শুধু ছেলেদের!এক হাতে তালি বাজেনা।বাংলাদেশে শুধু ছেলেদের ই বিচার করা হয়। ছেলে মেয়ে উভয় দোষী।উভয়ের ই বিচার হলে যিনা ব্যাভিচার কমে আসবে।
Total Reply(0)
AftabAhmed ১৭ জুন, ২০১৯, ৫:৪১ এএম says : 0
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মেয়েরাইত আমাদের মা বোন মেয়ে অথবা জীবন সাথী তবে আপনি মা হিসেবে চিন্তা করলে আপনার কাছে কি ইসলামি আইনে জিনা কারিদের বিচার চাইতে পারি, যদি তাই করেন জাতী কৃতজ্ঞ থাকবে।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন