ঢাকা, বুধবার ২৪ জুলাই ২০১৯, ০৯ শ্রাবণ ১৪২৬, ২০ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠক

সংসদে যোগ দেওয়ার কারণ ব্যাখ্যা দিলেন তারেক রহমান

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৬ জুন, ২০১৯, ২:১৪ এএম

একাদশ জাতীয় সংসদে যোগ না দেওয়ার বিষয়ে দল ও জোটের সিদ্ধান্ত থাকার পরও একক সিদ্ধান্তে শপথ নেওয়ার বিষয়ে ব্যাখ্যা দিয়েছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। দলের সর্বোচ্চ নীতিরির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্যদের বৈঠকে তিনি এ ব্যাখ্যা দেন। গতকাল শনিবার রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এ বৈঠক হয়। বিকাল সাড়ে ৫ থেকে দুই ঘন্টার এ বৈঠকে জাতীয় সংসদে যোগদানের সিদ্ধান্ত ছাড়াও সাংগঠনিক কার্যক্রম, ছাত্রদলের অসন্তোষসহ অন্যান্য বিষয়ে আলোচনা করা হয়। তবে কোন বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়নি। আগামী শনিবার পর্যন্ত বৈঠক মূলতবী রাখা হয়েছে। বৈঠকে স্কাইপিতে যুক্ত ছিলেন তারেক রহমান।

স্থায়ী কমিটির বৈঠক শেষে দুইজন নেতার সঙ্গে আলাপাকালে তারা জানান, সংসদে যোগ দেওয়ার বিষয়টি পরিষ্কার করার পাশাপাশি সার্বিক বিষয়ে নিয়ে তারা এই বৈঠকে আলোচনা করেছেন। তবে সে ব্যাখায় কী রয়েছে, সেটি পরিষ্কার করেননি এই দুই নেতা। মূলতবি বৈঠকে এ নিয়ে আরো বিস্তারিত আলোচনা হবে বলে জানান তারা। দুই নেতা আরো বলেন, এই মুহুর্তে কী করা যায়, বিশেষ করে কারাবন্দি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মামলা ও জামিন এবং তার মুক্তির দাবিতে কী ধরনের কর্মসূচি দেওয়া যায়, দলপুনর্গঠন, ২০ দলীয় জোট ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কর্মকাণ্ড নিয়ে আলোচনা হয়েছে। গত ৩ জুন ছাত্রদলের কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি গঠনে এসএসসি ২০০০ সাল থেকে তার নীচের দিকের শিক্ষার্থীদের দিয়ে কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত দেয়। এই সিদ্ধান্ত বাতিল করে বয়সসীমা তুলে দেওয়ার দাবিতে স¤প্রতি দলের সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব অসুস্থ রুহুল কবির রিজভীকে ভেতরে রেখে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তালা দিয়ে বিদ্যুৎ ও গ্যাস লাইন বন্ধ করে দিনভর বিক্ষোভ করে। এতে চরম ক্ষুব্ধ হন তারেক রহমান। স্থায়ী কমিটির নেতাদের তিনি বলে দিয়েছেন, ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকরা এই নিয়ে কাজ করছেন। তারাই সমাধান করবেন।
বৈঠকে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আব্দুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।
দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠকের পর খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের সঙ্গে বৈঠক করেন নেতারা। সেখানে দলীয় প্রধানের মামলা পরিচালনায় কৌশল নিয়ে আলোচনা করা হয়। আইনজীবীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন প্রমূখ।
সর্বশেষ গত ২৮ এপ্রিল স্থায়ী কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকের পরের দিন ২৯ এপ্রিল তারেক রহমান দলের নির্বাচিতদের শপথ গ্রহনের সিদ্ধান্ত দেন। কিন্তু মহাসচিব মির্জা ফখরুল ছাড়া অন্যরা শপথ নেন। শপথ নেওয়াকে কেন্দ্র করে স্থায়ী কমিটির নেতারা চরম ক্ষুব্ধ হন। এর কয়েক দিন পর স্থায়ী কমিটির বৈঠক ডেকেও পরে তা বাতিল করতে বাধ্য হয় বিএনপি। পরে নয়াপল্টনে স্কাইপের মাধ্যমে কথা বলে নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের নেতাদের ক্ষোভ প্রশমনে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্রকে দায়িত্ব দেওয়া হয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন