ঢাকা, বুধবার ১৭ জুলাই ২০১৯, ০২ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৩ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

আন্তর্জাতিক সংবাদ

যুক্তরাষ্ট্রে ধর্ষণ ঠেকাতে নপুংসক ইনজেকশন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ জুন, ২০১৯, ৭:৩৭ পিএম

নারীদের প্রতি অমানবিক দৃষ্টিভঙ্গি, অনিয়ন্ত্রিত যৌন লালসার কারণে বিশ্বে প্রচুর যৌন নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে। ধর্ষনের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছে না শিশুরাও। বিশ্বে প্রতি সেকেন্ডেই একাধিক কন্যাশিশু ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। এসব বন্ধে অনেক দেশেই কঠোর অবস্থানে গেলেও এই অভিশাপ থেকে মুক্তি মেলেনি। তবে, সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অ্যালাবামা অঙ্গরাজ্যে শিশু ধর্ষণ রুখতে নতুন এক আইন পাস করেছে।

অ্যালাবামার এই আইন অনুযায়ী, ১৩ বছরের কম বয়সী কোনো মেয়েকে ধর্ষণ করলে ধর্ষককে ইনজেকশন দিয়ে বা রাসায়নিকভাবে খোজাকরণ (নপুংসক) করে দেয়া হবে। সোমবার প্রাদেশিক গভর্নর কে আইভে অ্যালাবামা আইনের আওতায় চুক্তিভিত্তিক এই সাজা রেখে একটি বিল পাস করেন। চলতি বছরের পহেলা সেপ্টেম্বরের পর থেকে কন্যাশিশু ধর্ষণের শাস্তি হিসেবে এটা কার্যকর হবে।

শিশুদের ধর্ষণের হাত থেকে বাঁচাতে এই আইন করা হয়েছে। তবে, এই আইন কার্যকরে বেশ কিছু শর্ত আরোপ করা হয়েছে। এই ইনজেকশন একবার পুশ করলে ধর্ষক দ্বিতীয়বার কারও সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করতে পারবে না৷ তাকে সারাজীবন ধরে বয়ে বেড়াতে হবে এই পাপের শাস্তি। এই আইনের আওতায় একজন বিচারক যদি কোনো অপরাধীকে নপুংসক করতে রাসায়নিক চিকিৎসা প্রদানের নির্দেশ দেয় তাহলেই কেবল এটা কার্যকর হবে। আর এই শাস্তির প্রক্রিয়ার যাবতীয় চিকিৎসা ব্যয় ধর্ষককেই বহন করতে হবে।

আইন অনুযায়ী, কোনো অপরাধী যদি জেলে থাকেন তবে তাকে তখন ইনজেকশন দেয়া হবে না। তবে, প্যারোলে ছাড়া পাওয়ার পর তার শরীরে এটি পুশ করা হবে। কোনো কারণে তিনি যদি ইনজেকশন নিতে রাজি না হন, তাহলে আজীবন তাকে জেলেই থাকতে হবে৷ কখনোইও বাইরে আসতে পারবেন না।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ধর্ষণের এক দেশ, দেশটি ধর্ষণের জন্য অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। এমন শাস্তি খুব বিরল হলেও যুক্তরাষ্ট্রের একাধিক রাজ্যের আইনে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। যদিও এই শাস্তি খুব কমই প্রদান করা হয়। যৌন নির্যাতন বন্ধে শাস্তি প্রদানই মুখ্য নয়, প্রয়োজন পর্যাপ্ত শিক্ষা ও নারীদের স্বতন্ত্রভাবে শ্রদ্ধার সংস্কৃতি তৈরি করা। মার্কিন মার্শাল এসিএলইউএ এর নির্বাহী পরিচালক র‍্যান্ডাল মার্শাল বলেন, ‘যৌন নির্যাতনকে আমার যৌনতার চেয়ে অনেক বেশি কিছু মনে হচ্ছে। এটা ক্ষমতা প্রদর্শন, অপেক্ষাকৃত একজন শারীরিকভাবে দুর্বল মানুষের ওপর নিয়ন্ত্রণ প্রদর্শনই যৌনতা।’ সূত্র: ওয়াশিংটন পোস্ট।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন