ঢাকা, মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০১৯, ০৮ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৯ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ধ্বংসের নির্দেশ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৯ জুন, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

আড়ংয়ে ভেজালবিরোধী অভিযান পরিচালনাকারী ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণের উপ-পরিচালককে বন্ধের দিনে যেভাবে বদলি করা হয়েছে সেটা লজ্জাজনক বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। আদালত বলেন, ঈদের বন্ধের মধ্যে ওই কর্মকর্তাকে বদলির আদেশ স্থগিতে প্রধানমন্ত্রীকে হস্তক্ষেপ করতে হয়েছে। যদি সব কিছুতেই প্রধানমন্ত্রীকে হস্তক্ষেপ করতে হয়, তাহলে সচিবরা কেন আছেন? তারা কী ওদের (ভেজালকারী) পকেটে ঢুকে গেছেন? গতকাল ‘ঢাকায় ৯৩ শতাংশ ফার্মেসিতে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ’ রাখার অভিযোগে ওই সব ওষুধ বিক্রি বন্ধ ও প্রত্যাহার চেয়ে করা রিটের শুনানিতে প্রসঙ্গক্রমে বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন।

এ সময় আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার এ বি এম আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার ও এম সাইফুল আলম। রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এ বি এম আলতাফ হোসেন।
শুনানিতে আড়ং ইস্যুতে আদালত বলেন, আড়ংয়ে অভিযান পরিচালনাকারী ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ শাহরিয়ারকে বন্ধের দিনে যেভাবে বদলি করা হয়েছে সেটা লজ্জার। যারা বদলি করেছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। এ ধরনের বদলির ফলে প্রশাসনে কর্মরত যারা সৎ অফিসার, তারা কাজ করতে নিরুৎসাহিত হন।

প্রসঙ্গত, রোজার মাসের শেষ দিকে আড়ংয়ের উত্তরা শাখায় অভিযান পরিচালনা করেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণের কর্মকর্তা মঞ্জুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার। পরে তাকে তাৎক্ষণিক বদলির অভিযোগ ওঠে। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনা ওঠে। পরে তার বদলি স্থগিত করা হয়।

ওই শুনানিতে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ধ্বংস করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট। একই সঙ্গে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রিতে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা এবং মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধের মজুদ ও বিক্রি বন্ধে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন। এর আগে রাজধানীর ফার্মগেটের খামারবাড়িতে আ কা মু গিয়াস উদ্দিন মিলকী মিলনায়তনে ‘বিশ্ব নিরাপদ খাদ্য দিবস’ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মঞ্জুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার জানান, রাজধানীর ৯৩ শতাংশ ফার্মেসিতে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রি হচ্ছে।
নির্দেশনা বাস্তবায়নের অগ্রগতি জানিয়ে বিবাদীদের ৩০ দিনের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। পরে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আবদুল্লাহ আল বাশার বলেন, সারাদেশে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রি বন্ধ করতে, বাজার থেকে তা তুলে নিতে ও ধ্বংস করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। নির্দেশনা বাস্তবায়নের অগ্রগতি জানিয়ে এক মাসের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন