ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০১৯, ০৩ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৪ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

লোহার খনি আবিষ্কার

৪০০ ফুট পুরুত্বের আকরিকের সন্ধান : বিপুল মজুদের অস্তিত্ব

হিলি (দিনাজপুর) সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৯ জুন, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

দেশে এই প্রথমবারের মতো উন্নত মানের লোহার আকরিকের (ম্যাগনেটাইট) খনি আবিষ্কার করা হয়েছে। দিনাজপুর জেলার হাকিমপুর উপজেলার ইসবপুর গ্রামে এই খনি আবিষ্কার হয়েছে। বাংলাদেশ ভূতাত্তি¡ক জরিপ অধিদপ্তরের (জিএসবি) কর্মকর্তারা দুই মাস ধরে কূপ খনন করে অধিকতর পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে আজ মঙ্গলবার এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তারা জানান, ভূগর্ভের ১ হাজার ৭৫০ ফুট নিচে ৪০০ ফুট পুরুত্বের লোহার আকরিকের একটি স্তর পাওয়া গেছে। যা দেশের জন্য একটি ব্যতিক্রমী ঘটনা এবং বাংলাদেশে প্রথম আবিষ্কার। খনিটি ৬ থেকে ১০ বর্গ কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তৃত। এখানে স্বর্ণের অস্তিত্বের পাশাপাশি কপার, নিকেল ও ক্রোমিয়ামেরও উপস্থিতি রয়েছে। ১ হাজার ১৫০ ফুট গভীরতায় চুনাপাথরের সন্ধানও মিলেছে। সব মিলে নতুন আবিস্কৃত এই খনিতে বিপুল মজুদের অস্তিত্ব রয়েছে। টাকার অঙ্কে যার হিসাব এখনও করা সম্ভব হয়নি। তবে সংশ্লিষ্টরা জানান, নব্য আবিস্কৃত এই খনি থেকে হাজার হাজার কোটি টাকার খনিজ সম্পদ আহরণ করা অসম্ভব নয়।

খনন কাজে নিয়োজিত জিএসবির উপপরিচালক মোহাম্মদ মাসুম গতকাল মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বলেন, বিশ্বের যে কয়েকটি দেশে লোহার খনি আবিষ্কার করা হয়েছে তার মধ্যে বাংলাদেশের আকরিকে লোহার শতাংশ ৬৫-এর ওপরে। কানাডা, চীন, ব্রাজিল, সুইডেন ও অষ্ট্রেলিয়ার খনির লোহার মান ৫০ শতাংশের নিচে। আবিস্কৃত খনি থেকে নমুনা সংগ্রহ করে জয়পুরহাটে বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (বিসিএসআইআর) পরীক্ষাগারে পরীক্ষার পর এ তথ্য পাওয়া গেছে।

ওই কর্মকর্তা জানান, খনিটির ব্যাপ্তি ৬-১০ বর্গ কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তৃত। এখানে স্বর্ণের অস্তিত্বের পাশাপাশি কপার, নিকেল ও ক্রোমিয়ামেরও উপস্থিতি রয়েছে। ১ হাজার ১৫০ ফুট গভীরতায় চুনাপাথরের সন্ধানও মিলেছে।
তিনি জানান, জিএসবি ২০১৩ সালে ইসবপুর গ্রামের ৩ কিলোমিটার পূর্বে মুশিদপুর এলাকায় কূপ খনন করে খনিজ পদার্থের সন্ধান পেয়েছিল। সেই গবেষণার সূত্র ধরে চলতি বছরের ১৯ এপ্রিল থেকে ইসবপুরে কূপ খনন শুরু করা হয়। এরপর ১ হাজার ৩৮০ থেকে দেড় হাজার ফুট গভীরতা পর্যন্ত খননকালে আশার আলো দেখা যায়। এ খবর পেয়ে ২৬ মে জিএসবির মহাপরিচালক জিল্লুর রহমান চৌধুরীসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এখানে পরিদর্শনে আসেন।

তখন জিল্লুর রহমান সাংবাদিকদের সুখবর না দিলেও লোহার খনি আবিষ্কার হতে চলেছে বলে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। এ অঞ্চলটি ৬০ কোটি বছর আগে সমুদ্র ছিল। সেই কারণে এখানে জমাট বাঁধা আদি শিলার ভেতরে লোহার আকরিকের এ সন্ধান পাওয়া যায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, হাকিমপুর উপজেলা সদর থেকে ১১ কিলোমিটার পূর্বের গ্রাম ইসবপুরের কৃষক ইছাহাক আলীর কাছ থেকে ৫০ শতক জমি ৪ মাসের জন্য ৪৫ হাজার টাকায় লিজ নিয়ে খনিজ পদার্থের অনুসন্ধানে কূপ খনন শুরু করেছিল ভূ-তাত্তি¡ক জরিপ অধিদফতর। ২০১৩ সালে এ গ্রামের ৩ কিলোমিটার পূর্বে মুশিদপুর এলাকায় কূপ খনন করে খনিজ পদার্থের সন্ধান পেয়েছিল। সেই গবেষণার সূত্রধরে দীর্ঘ ৬ বছর পর চলতি বছরের ১৯ এপ্রিল থেকে ইসবপুর গ্রামে কূপ খনন শুরু করা হয়। এরপর ১৩৮০-১৫০০ ফুট গভীরতা পর্যন্ত খননকালে সেখানে আশার আলো দেখতে পাওয়া যায়। এ খবর পেয়ে গত ২৬ মে জিএসবি’র মহাপরিচালক জিল্লুর রহমান চৌধুরীসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পরিদর্শনে যান। এসময় মহাপরিচালক সাংবাদিকদের সুখবর না দিলেও লোহার খনি আবিষ্কার হতে চলেছে এমন ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। অবশেষে দীর্ঘ চেষ্টার ফলে ১৭৫০ ফুট গভীরতা খনন করে লোহার খনির আবিষ্কার করা হয়েছে। সেখানে প্রায় ৪০০ ফুট পুরুত্বের লোহার আকরিকের এ স্তরটি পাওয়া গেছে।
জিএসবি’র উপ-পরিচালক (ড্রিলিং ইঞ্জিনিয়ার) মাসুদ রানা জানান, গত ১৯ এপ্রিল থেকে ইসবপুর গ্রামে কূপ খনন শুরু করা হয়। ৩০ সদস্যের বিশেষজ্ঞ একটি দল ৩ শিফটে এ কার্যক্রম পরিচালনা করছেন।

ইসবপুর গ্রামের বাসিন্দারা বলেন, আমরা জানতে পারলাম এখানে লোহার খনি পাওয়া গেছে। এখান থেকে লোহা উত্তোলন করা হলে এখানকার মানুষের জীবনমান পাল্টে যাবে। কর্মসংস্থান হবে এখানকার মানুষদের। দেশের জন্যও লাভজনক হবে। এমনই আশায় বুক বাঁধছেন এখানকার সর্বস্তরের মানুষ। তাই গুরুত্ব বিবেচনায় সরকারের কাছে খনি বাস্তবায়নে জোর দাবি জানিয়েছেন তারা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (20)
Rayhan Shaikh ১৯ জুন, ২০১৯, ১২:৪৭ এএম says : 0
বাংলাদেশে যদি সোনার খনিও বের হয় তবু্ও দেশের জনগণের চেয়ে দুর্নীতিবাজদের বেশি উপকার হবে।
Total Reply(0)
MD Ruhulamin ১৯ জুন, ২০১৯, ১২:৪৮ এএম says : 0
নিজেদের মাল ত নিজেরা ব্যবহার করতে পারি না। যেমন গ্যাস প্রচুর পরিমানে মজুদ থাকার কারনে ও আমরা গ্যাস ন্যায মূল্যে পাইনা। সব চুরের দলেরা ভাগ করে নেয়। কি হবে আর জানা আছে আমাদের দেশে যদি পুরাটা যদিও সোনার খনি হয়। আমরা মাটির মূল্যও পাবো না সোনাত দূরের কথা।সব কিছু ঠিকইত পেতাম যদি একজন ওমরের রাঃ মতন নেতা পেতাম।
Total Reply(0)
Mirza Tarequl Qader ১৯ জুন, ২০১৯, ১২:৪৬ এএম says : 0
Congratulations.... Shukhobor Desher jonno
Total Reply(0)
কামরুল হাসান মিশুক ১৯ জুন, ২০১৯, ১২:৪৭ এএম says : 0
আলহামদুলিল্লাহ আল্লাহর অশেষ মেহেরবানী। কয়লার মত লোহাও হাওয়ায় উড়ে আল্লাহ যাতে এই কথাটা না শুনায়।
Total Reply(0)
Suman Sikder ১৯ জুন, ২০১৯, ১২:৪৫ এএম says : 0
ভাই সজাগ থাইকেন, কয়লার মত যেন না হয়।
Total Reply(0)
Mafizul Islam Dhali ১৯ জুন, ২০১৯, ১২:৪৫ এএম says : 0
আলহামদুলিল্লাহ
Total Reply(0)
Md Younus ১৯ জুন, ২০১৯, ১২:৪৫ এএম says : 0
It is best news for me
Total Reply(0)
Reba Akter ১৯ জুন, ২০১৯, ১২:৪৭ এএম says : 0
লোহার দাম আগের চেয়ে বাড়বে বই কমবে না!
Total Reply(0)
Muhammed Shahidul Islam Jewel ১৯ জুন, ২০১৯, ১২:৪৩ এএম says : 0
Alhumdulillah great news
Total Reply(0)
Komol Prodhan ১৯ জুন, ২০১৯, ১২:৪৪ এএম says : 0
দারুন খবর ভাই! হামার বা‌ড়ির পা‌শোতই লোহার খ‌নি!
Total Reply(0)
Mahmud Chowdhury ১৯ জুন, ২০১৯, ১২:৪৪ এএম says : 0
বালিশ কান্ড অথবা বাতাসে লোহা উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া কান্ড যেন না হয়৷
Total Reply(0)
Riaz Uddin ১৯ জুন, ২০১৯, ১২:৪৪ এএম says : 0
আলহামদুলিল্লাহ ।দেশের জন্য একটি বড় ধরনের সুসংবাদ।
Total Reply(0)
Ayatullah Misbah ১৯ জুন, ২০১৯, ১২:৪৯ এএম says : 0
এই দেশে খনির সন্ধান পাওয়ার খুশির চেয়ে ভয় বেশি। কারন এ দেশে চোর বেশি। শিক্ষিত চোর। বালিশের দেশ।
Total Reply(0)
Md yousuf ১৯ জুন, ২০১৯, ৯:৫১ এএম says : 0
বালিশ কেনার টাকা হবে
Total Reply(0)
Khalid Manjil Mujahid ১৯ জুন, ২০১৯, ১১:৩৬ এএম says : 0
বালিশ কান্ড আর কয়লা হাওয়ায় উড়ার পর সন্ধেহ দানা বেঁধেছে। সাধু সাবধান।
Total Reply(0)
Rasel Mondul ১৯ জুন, ২০১৯, ৬:০৮ পিএম says : 0
আলহামদুলিল্লিহ
Total Reply(0)
Syed anis ১৯ জুন, ২০১৯, ১:০০ পিএম says : 0
আলহামদুলিল্লাহ, আল্লাহর অশেষ মেহেরবাণীতে আমরা মহামূল্যবান নেয়ামত পেতে যাচ্ছি, আসুন আমরা আল্লাহর কাছে এর যথাযথ শোকরিয়া আদায় করি | এবং এর রক্ষণাবেক্ষণের জন্যে ন্যায় বিচারক শাষক প্রার্থনা করি |
Total Reply(0)
Habib ১৯ জুন, ২০১৯, ৬:৪৯ এএম says : 0
দেশ স্বাধীন করে শেখ সাহেব চোরের খনি পেয়েছিলেন । যা আজও দেশের সর্বত্র !!
Total Reply(0)
তৌফিকুল ইসলাম ১৯ জুন, ২০১৯, ৭:১০ এএম says : 0
এটা বাংলাদেশ বুঝতে হবে
Total Reply(0)
Zulfiquar Bhotto ১৯ জুন, ২০১৯, ৮:২৪ এএম says : 0
Is it a good news? I doubt because natural resources destroyed the arab civilization. Work for human resources instead.
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন