ঢাকা রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫ আশ্বিন ১৪২৭, ০২ সফর ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

বাবরী মসজিদ ধ্বংসের ঘটনা মারাত্মক বিশ্বাসভঙ্গের কাজ : প্রণব মুখার্জি

প্রকাশের সময় : ৩০ জানুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : ভারতের উত্তর প্রদেশের অযোধ্যায় ঐতিহাসিক বাবরী মসজিদ ভেঙে ফেলার ঘটনাকে মারাত্মক বিশ্বাসভঙ্গতার কাজ বলে মন্তব্য করেছেন প্রেসিডেন্ট প্রণব মুখোপাধ্যায়। তিনি তার আত্মজীবনীর দ্বিতীয় খ- দ্য টারবুলেন্ট ইয়ার্স: ১৯৮০-৯৬ তে বাবরী মসজিদ, রামজন্মভূমিসহ বিভিন্ন প্রসঙ্গ নিয়ে আলোচনা করতে গিয়ে এ মন্তব্য করেছেন। গত বৃহস্পতিবার গুরুত্বপূর্ণ এই বইটি প্রকাশ করেছেন ভাইস প্রেসিডেন্ট হামিদ আনসারী। বাবরী মসজিদ প্রসঙ্গে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নরসিমা রাও থেকে শুরু করে রাজীব গান্ধীর সমালোচনা করেছেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। তিনি লিখেছেন, ১৯৮৬ সালের ১ ফেব্রুয়ারি রামজন্মভূমির তালা খুলে দেয়া ছিল একেবারেই ভুল সিদ্ধান্ত। মানুষের মনে হয়েছিল, চাইলে এই পদক্ষেপ এড়াতে পারত রাজীব গান্ধী সরকার। প্রণব বাবু সাফ জানান, বাবরী মসজিদ ভেঙে ফেলা মারাত্মক বিশ্বাসভঙ্গতার কাজ ছাড়া আর কিছু নয়। এটা অর্থহীন। একটা ধর্মীয় কাঠামোকে ধ্বংস করা হয় শুধুমাত্র রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য। দেশে বিদেশে মুসলিম সম্প্রদায়ের বিশ্বাসে আঘাত করেছিল এই ঘটনা। ভারতের সহিষ্ণুতা, বহুত্ববাদের ঐতিহ্যকে চূর্ণ করে দিয়েছিল এই ঘটনা। প্রণব মুখোপাধ্যায় লিখেছেন, বস্তুত গুরুত্বপূর্ণ এক ইসলামী রাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পরবর্তীতে আমাকে বলেছেন, যুগ যুগ ধরে চলা ধর্মীয় সংঘাতের সাক্ষী জেরুজালেমেও এভাবে একটি মসজিদ গুঁড়িয়ে দেয়ার নজির নেই। বাবরী মসজিদ ধ্বংসের পরে অনেকেই তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী পি ভি নরসিমা রাওয়ের বিরুদ্ধে আঙুল তুলেছেন। আমি তখন ক্যাবিনেটে ছিলাম না সুতরাং বাবরী মসজিদ ইস্যুতে সিদ্ধান্ত গ্রহণে আমার কোনো ভূমিকা ছিল না। নরসিমা রাও ইছা করলেই শক্ত হাতে বিষয়টি মোকাবিলা করতে পারতেন।
নরসিমা রাওয়ের সিদ্ধান্তে তিনি ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন বলে জানিয়ে প্রণব বাবু লিখেছেন, পরবর্তীতে নরসিমা রাওয়ের সঙ্গে এক প্রাইভেট মিটিংয়ে এ নিয়ে আমি ক্ষোভে ফেটে পড়ি। তাকে বলি, আপনাকে কি কেউ উপদেশ দেয়নি সমূহ বিপদ সম্পর্কে? বাবরী মসজিদ ধ্বংস হলে বিশ্বজুড়ে কি প্রতিক্রিয়া হতে পারে, আপনি কি তা বুঝতে পারেননি? এখন অন্তত কড়া পদক্ষেপ নিন সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা প্রশমনে। বাবরী মসজিদ ধ্বংস রুখতে না পারাকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নরসিমা রাওয়ের সবচেয়ে বড় ব্যর্থতা বলেও মন্তব্য করেছেন প্রেসিডেন্ট প্রণব মুখোপাধ্যায়। প্রেসিডেন্ট প্রণব মুখোপাধ্যায় এভাবে কংগ্রেসের সাবেক নেতৃত্বকে কাঠগড়ায় তুললেও এ নিয়ে সতর্ক প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন কংগ্রেস মুখপাত্র রণদীপ সূর্যেওয়ালা। তিনি বলেছেন, প্রেসিডেন্ট হলেন দেশের প্রথম নাগরিক। আমরা তাকে সম্মান জানাই। আমরা এখনো ওই বই পড়িনি। আমরা পড়ার পরেই এ নিয়ে কিছু বলতে পারব। প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার আগে কংগ্রেসের সিনিয়র নেতা ছিলেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। ওয়েবসাইট।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
alim ২৩ জানুয়ারি, ২০১৮, ৫:৪১ এএম says : 0
“ ধন্যবাদ দাদা আপনাকে, আপনার এই গুনের কারনেই আপনি প্রেসিডেন্ট পদ লাভ করেছিলেন ৷মসজিদ, মন্দির, গির্জা এসব কিছু শুধু এক সৃষ্টিকর্তার জন্য নির্মিত ৷ “
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন