ঢাকা, রোববার ২১ জুলাই ২০১৯, ০৬ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৭ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

খেলাধুলা

কোহলির শাস্তি

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৪ জুন, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

সাউদাম্পটনে বিরাট কোহলির রীতিমতো ঘাম ছুটিয়ে ছেড়েছিল মোহাম্মদ নবী, মুজিব উর রেহমানরা। যে আফগানিস্তানকে গোনাতেই ধরেনি, সেই তাদের কাছেই কি না হারতে বসেছিল ভারত। শেষমেশ খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে ম্যাচ জিতেছে ভারত। এমন দিনে ভারতীয় অধিনায়কের মেজাজ একটু হারাতেই পারেন। এক একটি উইকেট পাওয়ার পর বুনো উল্লাস করেছেন। আবার আউট না হওয়ার সিদ্ধান্তে মেজাজ হারিয়েছেন, আম্পায়ারদের বিপক্ষে তর্ক করেছেন। তবে এর জন্য ম্যাচশেষে জরিমানাও গুনতে হলো। আম্পায়ারের সঙ্গে অশোভন আচরণের কারণে ম্যাচ ফির ২৫ শতাংশ কেটে নেওয়া হয়েছে কোহলির কাছ থেকে। একে তো প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান, তার ওপর সময়টাও ছিল প্রতিকূলে। ম্যাচটা হেরে গেলে এতক্ষণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো ভারতের সমালোচনায় মুখর থাকত। ব্যাপারটা বিরাট কোহলিও ভালো করেই জানতেন। চাপটা তাই অন্য সময়ের তুলনায় অনেক বেশিই ছিল। আর সেই বাড়তি চাপ সামলাতে না পেরেই মেজাজ হারিয়ে আম্পায়ারের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করে বসলেন বিরাট কোহলি।

আফগান ইনিংসের ২৯তম ওভারের কথা, আফগানিস্তানের তখন দরকার ১২৬ বলে ১১৯ রান। হাতে তখনো ছয় উইকেট। এমন সময় এলবিডবøর আবেদনে আম্পায়ার আলিম দার সাড়া না দেওয়ায় আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠে ভারতীয় অধিনায়ক। ইনিংসের তৃতীয় ওভারেই রিভিউ নষ্ট করে ফেলায় আম্পায়ারকে আউট দেওয়ার জন্য চাপ দেন কোহলি। রিপ্লেতে দেখা গিয়েছে আলিম দারই ঠিক ছিলেন। শুধু এ ঘটনাই নয়, আরও বেশ কয়েকবারই আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করতে দেখা গিয়েছে কোহলি। বিশেষকরে ইনিংসের তৃতীয় ওভারে হজরতউল্লাহ জাজাইয়ের এলবিডবিøউর ডিআরএস সিদ্ধান্ত ভারতের পক্ষে না যাওয়ায় আম্পায়ারের সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ দেন-দরবার করেন। আম্পায়ারের কাছে হাতজোড় করে সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করার ইঙ্গিত করেন কোহলি।
এতেই আইসিসি আচরণবিধি ২.১ ধারা অনুযায়ী অতিরিক্ত আবেদনের জন্য ম্যাচ ফির ২৫ শতাংশ জরিমানা করা হয় কোহলিকে। এ ছাড়া কোহলির নামের পাশে একটি ডিমেরিট পয়েন্টও যুক্ত হয়েছে। ম্যাচ শেষ হতেই নিজের অপরাধ স্বীকার করে নিয়েছেন ভারতের অধিনায়ক।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন