ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ সফর ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ দমনে ডিএনসিসি পুলিশ একসাথে কাজ করবে

স্টাফ রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ২৫ জুন, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মোহাম্মদ আতিকুল ইসলাম বলেছেন, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে ডিএনসিসির জনপ্রতিনিধিগণ এবং বাংলাদেশ পুলিশ যৌথভাবে কাজ করবে। গতকাল রোববার সকালে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) আয়োজিত গুলশানের একটি হোটেলে ‘উগ্রবাদ প্রতিরোধে জনপ্রতিনিধিদের করণীয়’ শীর্ষক দিনব্যাপী সেমিনারের উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
আতিকুল ইসলাম বলেন, যেহেতু জনপ্রতিনিধিগণ সমাজের সকল স্তরের মানুষের সাথে যোগাযোগ রাখেন সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে তাঁদের ভ‚মিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাছাড়া খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনের উপর মেয়র গুরুত্ব আরোপ করেন। এ লক্ষ্যে ডিএনসিসির ২৪টি খেলার মাঠের সংস্কার কাজ চলমান রয়েছে। এ সব মাঠ রাতেও যাতে খেলাধুলা করা যায় সেজন্য মাঠে পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা করা হবে।
মেয়র বলেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জঙ্গিবাদের কবল থেকে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণে রেখেছেন। তিনি আরো বলেন, হলি আর্টিজানের ঘটনার পর দেশে ব্যবসার অবস্থা খারাপ হতে যাচ্ছিল। বিদেশি বিনিয়োগকারীরা ব্যবসা প্রায় গুটিয়ে নিচ্ছিলেন। তখন আমাদের প্রধানমন্ত্রী তাঁর ক্যাপাবিলিটি ও ক্যাপাসিটি দিয়ে পুলিশের মাধ্যমে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণে রেখেছেন।
আতিকুল ইসলাম বলেন, উগ্রবাদের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। যা পুলিশের একার পক্ষে সম্ভব না। এ বিষয়ে জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতা করতে হবে। আমাদের সন্তান, ভাইবোন, আত্মীয় স্বজনরা কি অবস্থায় আছে তা জানি না। তাই জঙ্গি, সন্ত্রাস ও উগ্রবাদ মোকাবিলায় থানা, পাড়া মহল্লায় প্রতিরোধ কমিটি গঠন করতে হবে। শিক্ষার্থীদের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য তিনি ডিএমপির প্রতি আহবান জানান। এ লক্ষ্যে প্রতিটি স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, মাদ্রাসায় সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান আয়োজনের উপর তিনি গুরুত্বারোপ করেন।
সেমিনারে ডিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, গত রোববার ভাড়াটিয়া তথ্য ফরম সপ্তাহ শেষ হয়েছে। এই ফরম সংগ্রহে অভ‚তপূর্ব সাড়া পাওয়া গেছে। নতুন করে আরও পাঁচ লাখ ভাড়াটিয়া তথ্য ফরমে যুক্ত হবে বলে আশা করেন কমিশনার। তিনি বলেন, জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণে পরিবারের ভুমিকাই বেশি। পরে সামাজিক এবং আইনি প্রক্রিয়ার সমন্বয় প্রয়োজন। এ অবস্থায় দেশের এগিয়ে চলা অনেককে ঈর্ষান্বিত করছে। সাইবার ওয়ার্ল্ডে দেশকে অস্থির করতে অনেক দেশ ষড়যন্ত্র করছে বলেও দাবি করেন কমিশনার।
সভাপতির বক্তব্যে ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার ও কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেন, নিরাপদ বাংলাদেশের প্রধান হুমকি জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ। ভিশন ২০২১ বাস্তবায়নে জঙ্গিবাদ যাতে হুমকি হয়ে দাঁড়াতে না পারে সেজন্য হলি আর্টিজান হামলার পর থেকেই সারাদেশের মানুষকে একসাথে নিয়ে আলোচনা সভা চালানো হচ্ছে।
সেমিনারে সিটিটিসির (স্পেশাল প্রোটেকশন গ্রুপ) কমকর্তা প্রলয় কুমার জোয়ারদার, গুলশান বিভাগের উপ কমিশনার মোস্তাক আহমেদ খান, ডিএনসিসির প্যানেল মেয়র আলেয়া সারোয়ার ডেইজী, বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলরবন্দ, কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন