ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০১৯, ০৩ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৪ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

খেলাধুলা

ভারতের চেয়ে ভালো ব্যাটিং

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৫ জুন, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

সাউদাম্পটনের রোজ বোলের এই উইকেটের পরিচয় পাওয়া গিয়েছিল আগেই। দুই দিন আগে এই মাঠেই আফগানদের হারাতে তিরঘাম ছুটে গিয়েছিল বিশ্বকাপ ফেভারিট ভারতের। সেই স্লো উইকেটে দারুণ ব্যাটিং করল বাংলাদেশ। মুশফিকুর রহিম ও সাকিব আল হাসানের ফিফটিতে বিশ্বকাপে নিজেদের সপ্তম ম্যাচে আফগানিস্তানকে ২৬৩ রানের চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেয় মাশরাফির দল।

উইকেটের ধারণ জেনেই টস জিতে বল বেছে নেন আফগান অধিনায়ক। বোলিংটা তাদের মন্দ হয়নি। রানের জন্য লড়াই করতে হয়েছে টাইগার ব্যাটসম্যানদের। থিতু হয়েও ইনিংস টেনে লম্বা করতে পারেননি তামিম ইকবাল, লিটন দাশ, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা। তবে সাবিক ও মুশফিকের সঙ্গে কার্যকরী জুটিতে প্রত্যেকেই রেখেছেন অবদান। আফগানিস্তানের ফিল্ডিংটা আরেকটু ভালো হলে অন্তঃত ২০-২৫ রান তারা সেভ করতে পারত।

বাংলাদেশের ইনিংসের প্রাণ বলা যায় মুশফিকুর রহিমের ৮৭ বলে চার বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় করা ৮৩ রানের ইনিংসটি। এই ইনিংস দিয়েই তামিম ও সাকিবের পর তৃতীয় বাংলাদেশী হিসাবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১১ হাজার রানের মাইলফলক পেরিয়েছেন মুশফিক। এসময় দায়ীত্বশীল ব্যাটিংয়ে সাকিব ও মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে গড়েন দুটি ফিফটি ও মোসাদ্দেকের সঙ্গে একটি চল্লিশোর্ধো রানের জুটি।
সাকিবের ৬৯ বলে এক বাইন্ডারিতে করা ৫১ রানের ইনিংস বলে দেয় এই উইকেটে রান তোলা কতটা কঠিন। এই ইনিংস দিয়েই বিশ্বকাপে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে এক হাজার রানের মাইলফলক পেরিয়েছেন সাকিব। ফিরেছেন আসরে সর্বোচ্চ (৪৭৬) রান সংগ্রাহকের তালিকার শীর্ষে। এদিনই সাকিব-মুশফিক জুটি ছাড়িয়েছে তিন হাজার রানের মাইলফলক।

এমন দিনে ৫০তম ওয়ানডে ম্যাচটা স্বরণীয় করে রাখতে পারেননি কেবল সৌম্য সরকার। পরিস্তিতির বিচারে এদিন পাঁচে ব্যাটে নেমে স্বস্তিতে ছিলেন না। স্পিনের বিপক্ষে ভুগতে ভুগতে শেষ পর্যন্ত লেগ বিফোঁর হন মুজিব-উর রহমানের বলে। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি। ম্যাচে তিন উইকেট নিয়ে এই মুজিবই সময়মত আফগানদের ব্রেক থ্রু এনে দেন। সৌম্যের আগের ওভারে সাকিবকেও লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন এই স্পিনার। তারও আগে শুরুটা হয় দলীয় ২৩ রানে লিটনকে শর্ট কাভারে ক্যাচ বানিয়ে। অবশ্য ওপেনে নামা লিটনের এই ক্যাচ নিয়ে যথেষ্ঠ বিতর্ক আছে। হাশমতউল্লাহ শহিদি ক্যাচটা নেয়ার আগে বল মাটি স্পর্শ করেছে কি-না তা ছিল অনিশ্চিত। গ্রাউন্ড আম্পায়ার ‘সফট সিগনালে’ আউট দেখিয়ে টিভি আম্পারের স্বরণাপন্ন হন। সেখানে বার বার রিপ্লে দেখে গ্রাউন্ড আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে বহাল থাকেন টিভি আম্পায়র আলিম দার। অথচ রিপ্লে দেখে মনে হচ্ছিল ক্যাস নেয়ার সময় বল মাটি স্পর্শ করেছে। সৌম্যের লেগ বিফোরে নেওয়া রিভিউয়েও প্রশ্নবিদ্ধ সিদ্ধান্ত দেন এই পাক আম্পায়ার।

রানে ফিরতে তামিম লড়েছেন এদিনও। নড়বড়ে ব্যাটিংয়ে ৫৩ বলে ৩৬ করে ক্লিন বোল্ড হয়ে যান মোহাম্মাদ নবির বলে। এর আগে অবশ্য সাকিবের সঙ্গে দ্বিতীয় উইকেটে গড়েন ৫৯ রানের জুটি। আর শেষ দিকে মুশফিকের সঙ্গে ৩৩ বলে গড়েন ৪৪ রানের মূল্যবান জুটি গড়েন দলে ফেরা মোসাদ্দেক হোসেন। দৌলাতকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ৪৯তম ওভারে আউট হন মুশফিক। স্কোরবোর্ডের চেহারা তখন তৃপ্তিদায়কই হওয়ার কথা। শেষ পর্যন্ত ব্যাটিং করা মোসাদ্দেকের ২৪ বলে ৩৫ রানের ক্যামিও বাংলাদেশকে এনে দেয় ৭ উইকেটে ২৬২ রানের সংগ্রহ। যাকে নিয়ে বাংলাদেশের বেশি ভয় ছিল সেই রশিদের ১০ ওভারে আসে ৫২ রান। ৩৯ রানে ৩ উইকেট নিয়ে সফল বোলার মুজিব।

এই পিচেই ২২৪ রানের পুঁজি নিয়েও ১১ রানে জিতেছিল ভারত। দারুণ জয়ে সেমিফাইনালের পথে আরেক ধাপ এগিয়ে যাওয়া তাই বাংলাদেশের জন্য সহজ ছিল বলাই যায়।
এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অবশ্য ভালোই লড়ছিল আফগানরা। ১৬ ওভারে তাদের রান ছিল ১ উইকেটে ৬০। রহমত শাহকে তুলে নিয়ে ৪৯ রানের উদ্ভোধনী জুটি বিচ্ছিন্ন করেন সাকিব।

বাংলাদেশ : ৫০ ওভারে ২৬২/৭ (লিটন ১৬, তামিম ৩৬, সাকিব ৫১, মুশফিক ৮৩, সৌম্য ৩, মাহমুদউল্লাহ ২৭, মোসাদ্দেক ৩৫, সাইফ ২*; মুজিব ১০-০-৩৯-৩, দওলত ৯-০-৬৪-১, নবি ১০-০-৪৪-১, গুলবাদিন ১০-১-৫৬-২, রশিদ ১০-০-৫২-০, রহমত ১-০-৭-০)।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (13)
Md. Geasuddin Ahmed ২৫ জুন, ২০১৯, ১২:৫৫ এএম says : 0
রান রেট বাড়ানোর ইহা একটি সুযোগ যা টাইগারদের কাজে লাগানো উচিত। টাইগারদের প্রতি শুভ কামনা রইল।আল্লাহ সহায় হোন।
Total Reply(0)
shaon ২৫ জুন, ২০১৯, ১২:৫৫ এএম says : 0
বিশ্বকাপ ইতিহাসে পারফর্ম্যান্সের বিচারে মাশরাফিই বোধ হয় এখনো পর্যন্ত সবচেয়ে বাজে ক্যাপ্টেন। যার কোন পারফর্ম্যান্স নাই। গত ২/৩ বছরে দলের অন্যতম সেরা পেসার বলে গত ২/৩ ম্যাচে পারফর্ম না করাতেও তাকে সমর্থন দিয়েছি। কিন্তু এখন তাকে দলের জন্য বোঝা বলেই মনে হচ্ছে। বর্তমানে এটাই বোধ হয় এই বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সেরা একাদশ। ১। তামিম ২। সৌম্য ৩। সাকিব ৪। মুশফিক ৫। লিটন ৬। রিয়াদ ৭। মোসাদ্দেক ৮। সাইফ ৯। মিরাজ ১০। রুবেল ১১। ফিজ
Total Reply(1)
Neajul ২৫ জুন, ২০১৯, ৬:৩৬ এএম says : 0
What ever you think you tell.Performer and leader is different thing. Only mash Bangladesh team is here. See without Mash is t-20 and test. He is not good performer all most last 5 year. That time no question raise but when he mp that time lot question raise. Shame this behavior.
SHAMEEM ২৫ জুন, ২০১৯, ১২:৫৬ এএম says : 0
You can start the party b'coz বাংলাদেশ is going to win without any confusion, ইনশাআল্লাহ।
Total Reply(0)
বাদশাহ নামদার ২৫ জুন, ২০১৯, ১২:৫৯ এএম says : 0
ওই সব সুবিধাজনক অবস্থান, সম্ভবনা দিয়ে কোনো কাজ হবে না। জিততে হলে খেলেই জিততে হবে।
Total Reply(0)
Md Rezaul Karim ২৫ জুন, ২০১৯, ১:০০ এএম says : 0
আমি কোনোভাবেই বুঝতে পারছিনা ভারতীয়দের নিয়ে এত আলোচনার কি আছে। যাদের ক্ষমতা কম তাদের চাপার জোর বেশি এটাই স্বাভাবিক। আর এতই যদি পারতো তাহলে দুই একটা ম্যাচ এই টুর্নামেন্টে জয় থাকতো। যাই হোক টাইগারদের সেরাটাই খেলতে হবে।
Total Reply(0)
Ahmed Khaled Kaiser ২৫ জুন, ২০১৯, ১:০০ এএম says : 0
হৃদয়ে টাইগার্স ! কিন্তু যদি বাজি ধরতে হয় ... সেই দৃষ্টিকোণ থেকে আমি ভারতের হয়ে বাজি ধরবো। যে বাজি আমি ১০০% হারতে চাইবো।
Total Reply(0)
Ahmed Khaled Kaiser ২৫ জুন, ২০১৯, ১:০০ এএম says : 0
হৃদয়ে টাইগার্স ! কিন্তু যদি বাজি ধরতে হয় ... সেই দৃষ্টিকোণ থেকে আমি ভারতের হয়ে বাজি ধরবো। যে বাজি আমি ১০০% হারতে চাইবো।
Total Reply(0)
Shamaun Iqbal Shamun ২৫ জুন, ২০১৯, ১:০০ এএম says : 0
আশা জিইয়ে রাখুক বাংলাদেশ!
Total Reply(0)
ম নাছিরউদ্দীন শাহ ২৫ জুন, ২০১৯, ৩:১৩ এএম says : 0
মাশরাফি ক্রিকেট বিশ্বের একমাত্র খেলোয়াড় এতগুলো ইনজুরী নিয়ে দলের নেতৃত্বে আছেন। অসভ্যতা নেই। শান্ত মার্জিত। এই রকম অধিনায়কত্ব বন্ধুত্ব সুলভ খেলোয়াড় কি পাওয়া ভাগ্যের ব্যাপার। ক্রিকেট ভদ্রলোকের খেলা। ক্রিকেট বিশ্বের বড় ক্রিকেটার হয়ে ও বিরাট কোহলি অভদ্রোচিত আচরণগত কারণে শাস্তি পেলেন। ভারতীয় সমর্থকদের তাদের অধিনায়কের আচরণের কারণে মর্মাহত আমরা আমাদের জাতীয় বীর সন্তান দের এখন খুববেশী প্রয়োজন উৎসাহ উদ্দিপনা শক্তি ও সাহস যুগানো দোয়া করা। এগিয়ে যাও বাংলা মায়ের সৃর্য সন্তানরা। আমাদের এগিয়ে য়াওয়ার সময়। পাকিস্তান ভারত কোন বাধা হতে পারেনা। সাকিব ময় বিশ্ব ক্রিকেট পরাশক্তি হারকিউলিছ আছে।
Total Reply(0)
শামীম আহসান ২৫ জুন, ২০১৯, ৩:২৪ এএম says : 0
বাংলাদেশ এর জন্য শুভ কামনা। টাইগারদের উইন এর মানুষিকতা ধরে রাখতে হবে। আমরা সেমিতে যাবো এটাই হোক জয়গান সবাস বাংলাদেশ ভালোবাসা ১১ জন প্লেপ্লেয়ার এর প্রতি জয় ছিনিয়ে আনবে তারা।।
Total Reply(0)
Saifuddin MD. Khaled ২৫ জুন, ২০১৯, ১০:৫৪ এএম says : 0
Tik ace mash er performance tik mash er motho hoccena but jaakna r dutoi tho match Baki. Er por tho retairment. R mash k nie alap hobena. Jio Bangladesh. Amader board k replacement nie vabthe Hobe poncho pandop gele ki hobe.oi rubbish sabbir Somya er motho player die kicoy hobena.ami vorosa paina.
Total Reply(0)
nur islam.poramanik. ২৫ জুন, ২০১৯, ১১:২১ এএম says : 0
Sabas.Bangladesh
Total Reply(0)
আঃ রহিম ২৫ জুন, ২০১৯, ১১:২৩ পিএম says : 0
সাবাস বাংলাদেশ সাবাহ।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন