ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ০৭ ভাদ্র ১৪২৬, ২০ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

ভারতের মুসলিম খেদাও চক্রান্ত প্রতিহত করুন ঃ বাম ফ্রন্ট

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৬ জুন, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

ভারতের শাসক শ্রেণির নাগরিকত্ব পঞ্জি নামে মুসলমান খেদাও নীতি বাংলাদেশের জন্য বোঝার উপর শাকের আটির মতো অসহনীয় হবে বলে মন্তব্য করেছেন বাম গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট। ফ্রন্টের নেতারা বলেছেন, মোদী সরকারের মুসলিম খেদাও কর্মসূচিতে ভারতের প্রেসিডেন্টের সমর্থন সুচক বক্তব্যের পরও বাংলাদেশ সরকারের নীরবতা নতজানু নীতিরই প্রকাশ। একই সাথে বাংলাদেশের জনগণকে ভারতীয় সাম্রাবাদী আধিপত্যবাদী তৎপরতা ও বাংলাদেশকে ঘিরে চক্রান্তের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার জন্য দেশবাসীর প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানানো হয়। 

বাম গণতান্ত্রিক জোট কেন্দ্রীয় পরিচালনা পরিষদের এই সভা গতকাল তোপখানা রোডস্থ বাসদ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। বাম জোটের সমন্বয়ক ও বাসদ নেতা বজলুর রশীদ ফিরোজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, খালেকুজ্জামান, শাহ আলম, সাইফুল হক, শুভ্রাংশু চক্রবর্ত্তী, জোনায়েদ সাকী, মোশাররফ হোসেন নান্নু, হামিদুল হক, মমিনুর রহমান মমিন, অধ্যাপক আব্দুস সাত্তার, রাজেকুজ্জামান রতন, আব্দুল্লাহ আল কাফি রতন, রুহীন হোসেন প্রিন্স, বহ্নি শিখা জামালী প্রমূখ।
সভার এক প্রস্তাবে দেশে বিরাজমান ফ্যাসিবাদী দুঃশাসন ও ক্রমবর্ধমান গণতন্ত্রহীনতায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে অবিলম্বে সরকারের পদত্যাগ, ভোট-ডাকাতির সংসদ বাতিল করে দল নিরপেক্ষ তদারকি সরকারের অধিনে দ্রুত নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবি জানানো হয়। এ লক্ষ্যে আন্দোলনকারী সকল শক্তি ও দেশবাসীকে জোরদার আন্দোলন গড়ে তোলার উদাত্ত আহ্বান জানানো হয়।
সভায় চলতি বাজেটে ধনি তোষণ ও গরীব শোষণ নীতির তীব্র সমালোচনা করে বলা হয়, বাজেটে ধনিদের স্বার্থই রক্ষা হয়েছে। কর ছাড়, প্রণোদনাসহ নানাভাবে ধনিদের তুষ্ট করা হয়েছে এবং গরীবের উপর ভ্যাটের আওতা বাড়ানোর নামে করের বোঝা চাপানো হয়েছে। বাজেটে ব্যাংক ও আর্থিক খাতে সৃষ্ট বিশৃঙ্খলা, নৈরাজ্য, ঋণখেলাপী দূর করতে এবং বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থানের জন্য সুনির্দিষ্ট কোন প্রস্তাবনা নেই। এবারেও কালো টাকা সাদা করার প্রস্তাব করা হয়েছে।
সভার অপর প্রস্তাবে পুনরায় গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির পাঁয়তারায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলা হয়, গ্যাসের দাম বাড়ালে এর প্রভাবে সকল নিত্য ব্যবহার্য জিনিসের দাম বৃদ্ধি পাবে যাতে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়বে। তাছাড়া সরকারের ভুলনীতি-দুর্নীতির দায় কেন জনগণ নেবে? সভার প্রস্তাবে গ্যাসের দাম না বাড়িয়ে ভুলনীতি-দুর্নীতি-লুণ্ঠন বন্ধের দাবি জানানো হয়। একই সাথে সরকারের মূল্যবৃদ্ধির পাঁয়তারার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানানো হয়। ##

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন