ঢাকা, বুধবার ২৪ জুলাই ২০১৯, ০৯ শ্রাবণ ১৪২৬, ২০ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

সারা বাংলার খবর

সন্তানের মঙ্গলের জন্য ৪৪ বছর ধরে রোজা পালন করা সেই মায়ের দাফন সম্পন্ন

ঝিনাইদহ জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৯ জুলাই, ২০১৯, ১২:৪৯ পিএম

এলাকায় মা জননীদের আদর্শের প্রতিক হয়ে উঠেছিলেন সখিরণ নেছা ওরফে ভেজিরণ বুড়ি। যিনি নিজের সন্তানের মঙ্গলের জন্য প্রায় ৪৪ বছর ধরে রোজা রেখেছেন। সবার প্রিয় সেই সখিরণ নেছা আর নেই। সোমবার সন্ধ্যার দিকে আনুমানিক ৭৫ বছর বয়সে তিনি ইন্তেকাল করেন (ইন্না----রাজিউন)। সখিরণ নেছা ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বাজারগোপালপুর গ্রামের মৃত আবুল খায়েরের স্ত্রী। প্রতিবেশি মনজুর আহম্মেদ জানান, ১৫ দিন ধরে তিনি অসুস্থ হয়ে বিছানায় ছিলেন। রক্ত তৈরী করা কোষগুলো তার অকেজো হয়ে পড়েছিল। সোমবার রাত ১২টার দিকে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বাজারগোপালপুর গ্রামে আদর্শ মা সখিরণ নেছাকে দাফন করা হয়। এলাকাবাসি জানায়, খুবই হতদরিদ্র ঘরের একজন সাধারণ মা ছিলেন তিনি। কাজ করতেন মানুষের বাড়ি, ভাজা ফ্যাক্টরিতে। কখনো ঝাল আর কলাই তুলে জীবিকা নির্বাহ করতেন। ৪৪ বছর রোজা পালন করলেও খাওয়ার ব্যাপারে তিনি ছিলেন একেবারেই সাদামাটা। কোন সময় শুধু পানি মুখে দিয়েই রোজা ভাংতেন। দুনিয়া জোড়া মায়েদের জন্য রোলমডেল সেই মা সখিরণ পাড়ি জমিয়েছেন না ফেরার দেশে। স্থানীয় মধুহাটী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফারুক আহম্মেদ জুয়েল বলেন, সন্তানের জন্য রোজা পালন করা মা পৃথিবীতে আছে কিনা অন্তত আমার জানা নেই। সন্তানের জন্য তিনি ১৯৭৫ সাল থেকে এক নাগাড়ে রোজা পালন করেছেন। ফেসবুকের কল্যানে বাংলাদেশের গন্ডি পেরিয়ে সারা বিশ্বে তিনি ব্যতিক্রম একজন মমতামীয় মা হিসেবে পরিচিত লাভ করেছিলেন। তথ্য নিয়ে জানা গেছে, সখিরণ নেছা ওরফে ভেজিরণ বুড়ির স্বামী আবুল খায়ের ছিলেন একজন বিত্তশালী মানুষ। ৩ ছেলে ও ৩ মেয়ের জননী ছিলেন সখিরণ। স্বামীর মৃত্যুর পর অভাবী পরিবারে পরিণত হন সখিরণ। ১১ বছর বয়সী বড় সন্তান শহিদুল হারিয়ে গেলে তার জন্য রোজা পালন শুরু করেন তিনি। শহিদুল বাড়ি ফিরে এলেও রোজা ভাঙ্গেন নি সখিরণ। ছেলে শহিদুলের বয়স এখন ৫৫। বড় ছেলে শহিদুল জানান, “এমন মা পাওয়া বর্তমান জামানায় সত্যিই গর্বের বিষয়। আমার মা ছিলেন অনুকরণীয় ও অবিশ্বরণী একজন নারী”।

 

mšÍv‡bi g½‡ji Rb¨ 44 eQi a‡i †ivRv cvjb Kiv ‡mB gv‡qi `vdb m¤úbœ

wSbvB`n ‡Rjv msev``vZvt

GjvKvq gv Rbbx‡`i Av`‡k©i cÖwZK n‡q D‡VwQ‡jb mwLiY †bQv Ii‡d ‡fwRiY eywo| whwb wb‡Ri mšÍv‡bi g½‡ji Rb¨ cÖvq 44 eQi a‡i †ivRv ‡i‡L‡Qb| mevi wcÖq †mB mwLiY †bQv Avi †bB| †mvgevi weKvj mܨvi w`‡K AvbygvwbK 75 eQi eq‡m wZwb B‡šÍKvj K‡ib (Bbœv----ivwRDb)| mwLiY †bQv wSbvB`n m`i Dc‡Rjvi evRvi‡Mvcvjcyi MÖv‡gi g„Z Aveyj Lv‡q‡ii ¯¿x| cÖwZ‡ewk gbRyi Avn‡¤§` Rvbvb, 15 w`b a‡i wZwb Amy¯’ n‡q weQvbvq wQ‡jb| i³ ˆZix Kiv †Kvl¸‡jv Zvi A‡K‡Rv n‡q c‡owQj| †mvgevi ivZ 12Uvi w`‡K wSbvB`n m`i Dc‡Rjvi evRvi‡Mvcvjcyi MÖv‡g Av`k© gv mwLiY †bQv‡K `vdb Kiv nq| GjvKvevwm Rvbvq, LyeB nZ`wi`ª N‡ii GKRb mvaviY gv wQ‡jb wZwb| KvR Ki‡Zb gvby‡li evwo, fvRv d¨v±wi‡Z| KL‡bv Svj Avi KjvB Zz‡j RxweKv wbev©n Ki‡Zb| 44 eQi †ivRv cvjb Ki‡jI LvIqvi e¨vcv‡i wZwb wQ‡jb G‡Kev‡iB mv`vgvUv| †Kvb mgq ïay cvwb gy‡L w`‡qB †ivRv fvs‡Zb| `ywbqv †Rvov gv‡q‡`i Rb¨ †ivjg‡Wj ‡mB gv mwLiY cvwo Rwg‡q‡Qb bv †divi †`‡k| ¯’vbxq gaynvUx BDwbq‡bi †Pqvig¨vb dviæK Avn‡¤§` Ry‡qj e‡jb, mšÍv‡bi Rb¨ †ivRv cvjb Kiv gv c„w_ex‡Z Av‡Q wKbv AšÍZ Avgvi Rvbv †bB| mšÍv‡bi Rb¨ wZwb 1975 mvj †_‡K GK bvMv‡o †ivRv cvjb K‡i‡Qb| †dmey‡Ki Kj¨v‡b evsjv‡`‡ki MwÛ †cwi‡q mviv we‡k¦ wZwb e¨wZµg GKRb ggZvgxq gv wn‡m‡e cwiwPZ jvf K‡iwQ‡jb| Z_¨ wb‡q Rvbv †M‡Q, mwLiY †bQv Ii‡d †fwRiY eywoi ¯^vgx Aveyj Lv‡qi wQ‡jb GKRb weËkvjx gvbyl| 3 †Q‡j I 3 †g‡qi Rbbx wQ‡jb mwLiY| ¯^vgxi g„Zz¨i ci Afvex cwiev‡i cwiYZ nb mwLiY| 11 eQi eqmx eo mšÍvb kwn`yj nvwi‡q †M‡j Zvi Rb¨ †ivRv cvjb ïiæ K‡ib wZwb| kwn`yj evwo wd‡i G‡jI †ivRv fv‡½b wb mwLiY| †Q‡j kwn`y‡ji eqm GLb 55| eo †Q‡j kwn`yj Rvbvb, ÒGgb gv cvIqv eZ©gvb Rvgvbvq mwZ¨B M‡e©i welq| Avgvi gv wQ‡jb AbyKiYxq I Awek¦iYx GKRb bvixÓ|

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (2)
sayed Rahatul Islam ১০ জুলাই, ২০১৯, ১১:৪৩ এএম says : 0
এমন মা পাওয়া বর্তমান জামানায় সত্যিই গর্বের বিষয়।
Total Reply(0)
sayed Rahatul Islam ১০ জুলাই, ২০১৯, ১১:৪৩ এএম says : 0
এমন মা পাওয়া বর্তমান জামানায় সত্যিই গর্বের বিষয়।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন