ঢাকা, বুধবার ২৪ জুলাই ২০১৯, ০৯ শ্রাবণ ১৪২৬, ২০ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

দন্ডপ্রাপ্তদের বাড়িতে বিএনপি নেতারা

শেখ হাসিনার ট্রেনবহরে হামলার মামলা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৬ এএম

পাবনার ঈশ্বরদীতে ১৯৯৪ সালে তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ট্রেনবহরে হামলা মামলায় দন্ডপ্রাপ্ত বিএনপি নেতাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে স্বজনদের সান্তনা দিয়েছেন দলের জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুণ রায় চৌধুরী ও বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা। গত মঙ্গলবার দুপুর থেকে তারা ঈশ্বরদীর বিভিন্ন এলাকায় দন্ডপ্রাপ্ত নেতাদের বাড়িতে যান এবং তাদের স্বজনদের সঙ্গে কথা বলেন। এই মামলার ব্যাপারে উচ্চ আদালতে প্রয়োজনীয় আইনগত সহযোগিতা দেয়া হবে বলে তাদের আশ্বস্ত করেন আইনজীবীরা। এ সময় রায়ের প্রসঙ্গ টেনে বিচার বিভাগ সরকার দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুণ রায় চৌধুরী।

তিনি বলেন, সহজ কথা হলো ঈশ্বরদীতে ১৯৯৪ সালে সংঘটিত হামলার ঘটনায় কারও মৃত্যু হয়নি, তারপরও মৃত্যুদন্ড দেয়া হয়েছে। যেখানে কোনো মৃত্যু ঘটেনি কোনো হত্যা ঘটে নাই সেখানে মৃত্যুদন্ড। তাও একজন নয় নয়জন। নিপুণ রায় আরও বলেন, এই রায়ের মাধ্যমে এটা প্রমাণিত হয়েছে যে, বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে এবং দেশে কোনো আইনের শাসন বলে কিছু নেই।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার সাইফুর রহমান, মীর হেলাল, ওবাইদুর রহমান চন্দন, অ্যাডভোকেট আরিফা সুলতানা রুমা, ফারহানা আক্তার লুবনা, কাজী রওশন দিল আফরোজ, জাকির হোসেন, মাসুদ খন্দকার, পাবনা জেলা বিএনপির দফতর সম্পাদক জহুরুল ইসলাম, ঈশ্বরদী পৌর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক আমিনুল ইসলাম স্বপন, জেলা যুবদলের সভাপতি মোসাব্বির হোসেন সঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক হিমেল রানা, সাংগঠনিক সম্পাদক আনিস আহমেদ, পৌর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন জুয়েল, জেলা স্বেচ্ছাসেবকদলের সভাপতি আরিফ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানা, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আমিরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন, পৌর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, ঈশ্বরদীতে ১৯৯৪ সালে তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ট্রেনবহরে হামলার ঘটনায় করা মামলায় নয়জনের মৃত্যুদন্ড দিয়েছেন আদালত। একই মামলায় ২৫ জনের যাবজ্জীবন ও ১৩ জনের ১০ বছর করে কারাদন্ড দেয়া হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন