ঢাকা, সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬, ২৪ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

সারা বাংলার খবর

ভোলায় কল্লাকাটা আতঙ্ক

ভোলা জেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ১২ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

পদ্মা সেতু নির্মাণে কয়েক হাজার মাথার প্রয়োজন। এ ধরনের মিথ্যা সংবাদ বাংলাদেশের সকল জেলার মত ভোলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে পরেছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত কয়েক দিন যাবত ভোলার চরফ্যাশন, লালমোহন, শশীভূষন, দক্ষিণ আইচাসহ পুরো জেলায় গুজব ছড়িয়ে সাধারণ মানুষদেরকে আতঙ্কিত করার চেস্টা করা হয়েছে। এসব গুজব ও মিথ্যা প্রচারে স্কুল কলেজে শিক্ষার্থীর উপস্থিতি কমে গেছে। অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের স্কুল, কলেজে পাঠাতে গিয়ে আতঙ্কে আছেন।

শুরু থেকে ভোলার প্রশাসন এ নিয়ে নিশ্চুপ থাকলেও অবশেষে গুরুত্ব দিয়েছে ভোলা পুলিশ প্রশাসন। গতকাল বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে গুজব ছড়ানোর দায়ে চরফ্যাশন থেকে আব্দুস শহিদ নামে একজনকে আটক করা হয়েছে বলে জানান পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়ছার। আটককৃত শহিদ তার অপরাধের কথা স্বীকার করেছে বলে জানান পুলিশ সুপার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাসেলুর রহমান, সহকারী পুলিশ সুপার নাবাবার আহমেদসহ সংশ্লিটরা।

ভোলার এডিশনাল এসপি শাফিন মাহামুদ ইনকিলাবকে জানান, কল্লাকাটার খবরের কোন সত্যতা নেই। এটা সম্পূর্ণ গুজব ও ভিত্তিহীন। এটা নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। একটি মহল ফেইসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ ধরনের অপপ্রচার করে শান্ত ভোলাকে অশান্ত করার চেষ্টা করছে। আমরা ইতোমধ্যে কিছু দুস্কৃতিকারীদের চিহ্নিত করতে পেরেছি। অতি দ্রুত তাদের আইনের আওতায় আনা হবে। এছাড়াও আমাদের পুলিশ সুপার মহোদয়ের নির্দেশে আমাদের ১১টি থানার ওসিরা কমিউনিটি পুলিশের সকল সদস্যদেরকে নিয়ে সারা জেলায় সচেতনতামূলক প্রচারণায় নামবে।

জেলা প্রশাসক মাসুদ আলম সিদ্দিক বলেন, এটি সম্পূর্ণ মিথ্যা ও গুজব। পদ্মা সেতু কর্তৃপক্ষ ইতোমধ্যে চিঠির মাধ্যমে এ ধরনের মিথ্যা গুজব থেকে সতর্ক থাকার আহবান জানিয়েছেন। তিনি এ ধরনের মিথ্যা গুজব থেকে সতর্ক থেকে সকল অভিবাবক ও শিক্ষার্থীদের সচেতন থাকার আহবান জানান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (4)
Hm Syedul Islam ১২ জুলাই, ২০১৯, ১:৫৬ এএম says : 0
জন্মের পর থেকেই শুনে আসছি,,মা, চাচিরা বলত,, একলা একলা কোথাও যেও না।ছালাধরা(কাল্লা কাডা) ধরবে। পরে সেই মাথা নিয়ে ব্রিজ এর খুঁটির নিচে দিবে। আর যদি ব্রিজের নিচে মাথা না দেয় তাহলে ব্রিজ ভেঙে যাবে।
Total Reply(0)
Md Saeid Hasan ১২ জুলাই, ২০১৯, ১:৫৭ এএম says : 0
সেতু নির্মাণের জন্য মানুষের মাথা লাগবে এই গুজব ছড়ায় একমাত্র মানব পাচারকারীরা। তারা গুজব ছড়িয়ে বহু মানুষ পাচার করে সেতু নির্মাণের উপর দোষ চাপিয়ে দিচ্ছে। এই পাচারকারীদের যে যেখানেই পাবেন হাত পা ভেঙ্গে পুলিশের হাতে সোপর্দ করবেন।
Total Reply(0)
নাজমুল শুভ্র ১২ জুলাই, ২০১৯, ১:৫৮ এএম says : 0
যারা গুজব ছড়াই তাদের ধরে ধরে মাথা কেটে পদ্মা সেতুর পিলারের গোড়াই দিতে হবে। এতে কেও গুজব ও ছড়াতে পারবে না, জাতি আতংঙ্ক হবে না, পদ্মা সেতুর উপকার হোক বা না হোক কুসংষ্কারচ্ছন্ন জাতির উপকার হবে।
Total Reply(0)
মনির হোসেন মনির ১২ জুলাই, ২০১৯, ১:৫৯ এএম says : 0
যারা এই ধরনের গুজব ছড়ায়, আর যারা এসব গুজব বিশ্বাস করে, নিঃসন্দেহে তাদের ইমান থাকবে না ( যদি তারা মুসলিম হয়) সমাজের মূর্খতার হার এখনও অনেক বেশি তাই এসব গুজব সহজেই ছড়াতে পারে।
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন