সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯, ১৪ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

ইসলামী বিশ্ব

আফ্রিকার উন্নয়নে সহায়তার প্রতিশ্রুতি এরদোগানের

আফ্রিকা বিশাল প্রাকৃতিক সম্পদে এবং জনগণের উদ্যোগী মনোভাব মহাদেশটির উন্নতির মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারে

প্রকাশের সময় : ৫ জুন, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান বর্তমানে আফ্রিকা মহাদেশের কয়েকটি দেশ সফরে রয়েছেন। তিনি আফ্রিকার উন্নয়নশীল দেশগুলোর উন্নয়নে তুরস্কের সমর্থনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। পূর্ব আফ্রিকায় চারদিনের সফরকালে আল-জাজিরা নিউজ ওয়েবসাইট তার একটি নিবন্ধ প্রকাশ করেছে, যাতে তিনি আফ্রিকা মহাদেশ সম্পর্কে মুসলিম বিশ্বের অন্যতম শক্তিধর দেশটির দৃষ্টিভঙ্গী তুলে ধরেছেন।
বিশ্বের অনেক লোক আফ্রিকা মহাদেশকে চরম দারিদ্র্য, প্রাণঘাতী সংঘাত এবং সাধারণভাবে হতাশার সমার্থক বলে মনে করেন বলে উল্লেখ করেছেন এরদোগান। কিন্তু তুর্কি জনগণের দৃষ্টিভঙ্গী ভিন্ন। আমরা মনে করি আরো ভালো কিছু পাওয়া বা করার অধিকার রয়েছে আফ্রিকার। এরদোগান এবং তার সফরসঙ্গী ব্যবসায়ীরা এখন উগান্ডা, কেনিয়া ও সোমালিয়া সফরের মাঝপথে রয়েছেন। আফ্রিকার শক্তিমত্তা সম্পর্কে আলোকপাত করতে গিয়ে এরদোগান লিখেছেন, প্রথমত এই মহাদেশে রয়েছে তরুণ এবং প্রাণোচ্ছল জনগণ, যেখানে ইউরোপ এবং বিশ্বের বাদবাকি অংশ দ্রুত বুড়িয়ে যাচ্ছে। উপরন্তু আফ্রিকা বিশাল প্রাকৃতিক সম্পদে সমৃদ্ধ এবং শেষ কথা হলো আফ্রিকার জনগণের উদ্যোগী মনোভাব মহাদেশটির মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারে। তিনি জানান, ২০০২ সালে ক্ষমতা গ্রহণের পরই তিনি আফ্রিকার সাথে সম্পর্ক উন্নয়নে জোর দেন। ২০০৫ সালে আফ্রিকার দেশগুলোকে নিয়ে সম্মেলনের আয়োজন করা হয় ইস্তাম্বুলে এবং পরে ইকুয়েটোরিয়াল গিনির মালাবোতে। এরদোগান লিখেছেন, উন্নয়নশীল দেশগুলোকে মানবিক সহায়তা দিতে তুরস্ক অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে। যেমন তুরস্কের মানবিক সহায়তা প্রাপ্তিতে ২০১১ সাল থেকে শীর্ষে রয়েছে দুর্ভিক্ষ কবলিত সোমালিয়া। তুরস্ক সোমালিয়ায় পূর্ব আফ্রিকার মধ্যে সবচেয়ে বড় মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করেছে। তিনি শরণার্থীদের ব্যাপারে পাশ্চাত্যের উদাসীনতারও সমালোচনা করেন। পশ্চিমা দেশগুলো তাদের সম্পদ দিয়ে সুউচ্চ প্রাচীর নির্মাণ, নিরাপত্তা জোরদার এবং ভ্রমণের ওপর কড়াকাড়ি আরোপের ফলে উগান্ডা, কেনিয়া এবং সোমালিয়ার মত আফ্রিকার অনেক দেশ মানবিক দুর্ভোগের বিরুদ্ধে লড়ছে। এরদোগান জানান, তার দেশ সিরীয় শরণার্থীদের জন্য প্রায় ১০০০ কোটি ডলার বা প্রায় ৮০ হাজার কোটি টাকা খরচ করেছে। বন্ধু না থাকলেই আসে সত্যিকারের দারিদ্র্য আফ্রিকার এই প্রবাদের উদ্ধৃতি দিয়ে এরদোগান লিখেছেন, আজ এবং চিরদিন তুরস্ক আফ্রিকার বন্ধু, সহযোদ্ধা এবং অংশীদার থাকবে। আনাদলু এজেন্সি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন