ঢাকা, সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬, ২৪ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

পরিকল্পনায় মিন্নি সরাসরি জড়িত

রিমান্ড বাতিল আবেদনে সাড়া দেননি হাইকোর্ট

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৬ এএম

রিফাতকে বাঁচানোর চেষ্টা লোক দেখানো
এজাহারভুক্ত রিশান ফরাজী গ্রেফতার
বরগুনায় প্রকাশ্য দিবোলোকে চাঞ্চল্যকর রিফাত হত্যা মামলায় গ্রেফতার তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি হত্যায় জড়িত বলে দাবি করেছে পুলিশ। তিনি হত্যা পরিকল্পনায় সরাসরি অংশ নিয়েছেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ, গ্রেফতার আসামীদের স্বীকারোক্তি এ তথ্য পাওয়া গেছে। এছাড়া হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত তিন নম্বর আসামি মো. রাশিদুল হাসান রিশান ওরফে রিশান ফরাজীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন বরগুনার পুলিশ সুপার (এসপি) মারুফ হোসেন। এদিকে, গতকাল হাইকোর্টে মিন্নির রিমান্ড বাতিলের জন্য করা একটি রিট আবেদনে সাড়া দেননি হাইকোর্ট। তদন্তাধীন বিষয়ে কোনো হস্তক্ষেপ করবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন হাইকোর্ট।

পুলিশ সূত্র জানায়, সংবাদ সম্মেলনে বরগুনার এসপি বলেন, এ পর্যন্ত গ্রেফতার হওয়া সব আসামি এবং মিন্নির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির সুস্পষ্ট তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে মিন্নিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মিন্নি এ হত্যাকাÐের বিষয়ে জানতেন। শুরু থেকে পরিকল্পনকারীদের সাথেও ছিলেন। খুনিদের সব ধরনের মিটিংয়ে অংশ নিয়েছেন। মিন্নি নিজেও এ হত্যাকাÐের সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। হত্যাকাÐের আগে-পরে খুনিদের সঙ্গে মিন্নির বহুবার কথোপকথন হয়েছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মো. হুমায়ুন কবির বলেন, রিফাত শরীফ হত্যার ঘটনায় মূল নায়ক নয়ন বন্ড ও রিফাত ফরাজীর সঙ্গে মিন্নিও পরিকল্পিতভাবে এ হত্যাকাÐে জড়িত ছিল। গ্রেফতার অনেকে মিন্নির জড়িত থাকার বিষয়ে স্বীকারোক্তি দিয়েছে। এছাড়া মিন্নির নিজের বক্তব্যেও হত্যায় জড়িত থাকার প্রমাণ মিলেছে। হত্যার আগে নয়ন বন্ডসহ গংয়ের অনেকের সাথে তার কথাপোকথনের তথ্য পাওয়া গেছে। তদন্ত কর্মকর্তা আরও বলেন, ঘটনার আগের দিন (২৫ জুন) মিন্নি নয়ন বন্ডদের বাড়িতে গিয়ে এ হত্যার পরিকল্পনা করে। এ হত্যাকাÐের ৬ নম্বর আসামি টিকটক হৃদয় আদালতে দেয়া জবানবন্দিতে এ হত্যায় মিন্নির সংশ্লিষ্টতার কথা জানায়।

হুমায়ুন কবির বলেন, ফুটেজে মিন্নি রিফাত শরীফকে রক্ষার যে চেষ্টা সেটি ছিল লোক দেখানো। মিন্নি নয়নকে জাপটে ধরলেও সে তাকে (মিন্নি) কোনো আঘাত করেনি। এছাড়া নয়নকে অভিযুক্ত হওয়া থেকে বাঁচাতে এমনটি করেছিল। ঘটনার আগের দিন এবং ঘটনার পূর্ব মুহূর্তে নয়ন বন্ডের সঙ্গে মিন্নির মুঠোফোনের আলাপ-আলোচনা থেকে বিষয়টির প্রাথমিকভাবে সত্যতা পাওয়া গেছে।

পুলিশ সুপার বলেন, রিফাত শরীফ হত্যা মামলার তিন নম্বর আসামি মো. রাশিদুল হাসান রিশান ওরফে রিশান ফরাজীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বরগুনা সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শাহজাহান হোসেনের নেতৃত্বে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় অভিযান চালিয়ে রিশানকে গ্রেফতার করা হয়। তবে কখন কোথা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে সে বিষয়ে বিস্তারিত কিছুই বলেননি।

তিনি আরও বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও দু-একটি গণমাধ্যম রিফাত হত্যাকাÐ নিয়ে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য প্রকাশ করছে, যা কোনোভাবেই কাম্য নয়। এ পর্যন্ত এজাহারনামীয় ৮ জনসহ মোট ১৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। হত্যাকাÐে যাদের সম্পৃক্ততা পাওয়া যাবে তাদেরকে আওতায় আনা হবে।

পুলিশের একটি সূত্র জানায়, একটি মোবাইল ফোনকে কেন্দ্র করে হত্যাকাÐটি সংঘটিত হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ঘটনার দু’দিন আগে সোমবার হেলাল নামে একজনের মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয় রিফাত শরীফ। হেলাল নিহত রিফাত শরীফের বন্ধু হলেও নয়ন বন্ডেরও ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিল। ফোনটি উদ্ধার নিয়ে স্বামী রিফাতের মারধরের শিকার হন তিনি। পরে হত্যাকাÐের আগের দিন মঙ্গলবার নয়নের সঙ্গে দেখা করে সেই ফোনটি নয়নের হাতে তুলে দেন মিন্নি। মারধর আর ক্ষোভের প্রতিশোধ নিতে রিফাতকে হত্যার পরিকল্পনা করা হয় বলে সেই সূত্র জানায়।

এদিকে, রিফাত শরীফের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির রিমান্ড বাতিলের জন্য করা একটি রিট আবেদনে সাড়া দেননি হাইকোর্ট। এ মুহূর্তে তদন্তাধীন বিষয়ে কোনো হস্তক্ষেপ করবে না বলে জানিয়ে দেন হাইকোর্ট। তবে লিখিতভাবে আবেদন অথবা মামলাটি হাইকোর্টে বিচারের জন্য আবেদন করতে পরামর্শ দেন হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এমন আদেশ দেন। এর আগে জাতীয় একটি দৈনিকে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের নজরে আনেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ফারুক হোসেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ জুন সকাল ১০টার দিকে স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির সামনে কুপিয়ে জখম করা হয় রিফাত শরীফকে। পরে বিকাল ৪টায় বরিশালের শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। হত্যার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে দেশব্যাপী তোলপাড় শুরু হয়। পরে দ্বিতীয় একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে হত্যায় মিন্নির সম্পৃক্ততা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে।
গ্রেফতারদের মধ্যে ১০ জন রিফাত হত্যাকাÐে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এছাড়াও চারজন অভিযুক্ত রিমান্ডে রয়েছে। রিশান ফরাজীকে রিমান্ডে নেওয়া হবে।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (14)
আলী ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১২:৩৮ এএম says : 0
রঙ ডং মহিলাদের কারনে আজ যুব সমাজ ডংশের পথে যেই অরাধী হোক আমরা জনগন সঠিক বিচার চাই আর কাউকে যেন ত্রমন ভাবে জীবন দিতে না হয়
Total Reply(0)
Nusrat Fariha ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১:১৯ এএম says : 0
ভালোভাবে তদন্ত করে.... সঠিক বিচার করা হোক.
Total Reply(1)
Yourchoice51 ১৯ জুলাই, ২০১৯, ৮:৩৯ এএম says : 0
Who will do correct investigation? The whole thing is a mess.
Shamim Reza ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১:১৯ এএম says : 0
Good decision
Total Reply(0)
Farzana Rimi ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১:২০ এএম says : 0
মিন্নি জড়িত থাকলে শাস্তি পাক বাট ০০৭ গ্রুপের এমপি পুএ কে যেনো বাঁচানোর জন্য এইসব নাটক না করা হয়।নুসরাত হত্যার আইনজীবি পাওয়া গেলে মুন্নি কেনো আইনজীবি পেলো না!!
Total Reply(0)
Nurul Islam ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১:২০ এএম says : 0
এখানে দেশের জনগনের জানা দরকার এই এম পি সাহেবের ক্ষমতা সম্পর্কে ! প্রথমতঃ এবার সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ তাকে নমিনেশন দেয়নি । যখনই নমিনেশন পায়নি তখনি এম পি সাহেব চলে জান ভারত এবং যখনই ইন্ডিয়ান কোঠায় নমিনেশন কনফার্ম হন তখনই দেশে চলে আসেন ! এখন ভেবে দেখুন এই বিচার কার ক্ষমতায় প্রভাবিত হচ্ছে ?
Total Reply(0)
Kazi Humayun Kabir ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১:২০ এএম says : 0
চরিত্রে দোষ থাকতে পারে । কিন্তু হত্যার সাথে জরিত নয় । এমপি পুত্রকে বাঁচাতে তাকে বলির পাঠা বানাচ্ছে পুলিশ
Total Reply(0)
Muhammad Zaman ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১:২১ এএম says : 0
মিন্নি যদি দোষী হয় তারও শাস্তি হোক। তার আগে যারা প্রকাশ্যে খুন করেছে তাদের ফাঁশি দেয়া হোক!মিন্নির উপর সব দায়ভার চাপিয়ে মূল আসামিরা ছাড়া পেয়ে যাবে! শাক দিয়ে মাছ ঢাকার গল্প বরাবরই চলছে এখনো মনে হয় সেটাই হবে!
Total Reply(0)
Payra Hasem ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১:২১ এএম says : 0
ভালো কথা মিন্নী অপরাধী, মিন্নীই রিফাত কে কুপিয়ে খুন করেছে তো এখন জনগন পুলিশ সরকার এর কাছে জানতে চায় নয়ন বন্ড কে তৈরি করছে কার কথা নয়ন বন্ড কাজ করতো,কার কথায় পুলিশ নয়ন বন্ড কে গুলি করে হত্যা করলো,এর আগে যে নানা অপরাধ, মাদক নিয়ে নয়ন পুলিশের কাছে গ্রেপতার হয়েছিলো কে ছারাইছিলো,
Total Reply(0)
MD Milon ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১:২১ এএম says : 0
এই নির্মম হত্যাকান্ডের এবং সন্ত্রাসীদের গডফাদার হল স্থানীয় এমপি বীরেন্দ্রনাথ শম্ভুর ছেলে। সুনাম দেবনাথ। এডভোকেট সুনাম দেবনাথ কে রিমান্ডে নিলে সব সত্য ঘটনা উদঘাটন হয়ে যাবে
Total Reply(1)
Yourchoice51 ১৯ জুলাই, ২০১৯, ৮:৩৬ এএম says : 0
Correct.
Shakhawat Mithu ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১:২২ এএম says : 0
মিন্নি যে খারাপ মেয়ে শুধু যে নয়নের মা বলছে এমন নয়,মিন্নিদের এলাকার অনেকেই বলছে আর ও যদি ভালো হতো নয়নকে ডিবোর্স না দিয়ে রিফাত কে বিয়ে কিভাবে করে।
Total Reply(0)
Sohel Islam Ontor ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১:২২ এএম says : 0
বিচার কার্যক্রম শেষ হওয়ার আগে পর্যন্ত যেন যামেন না পায় সেই ব্যবস্থা যেন করে পুলিশ প্রশাসন ,,,ধন্যবাদ পুলিশ প্রশাসনকে
Total Reply(0)
M.nasgiruddin shah ১৯ জুলাই, ২০১৯, ২:৪৬ এএম says : 0
যদি ভিডিও ফুটেস না প্রকাশীত হতো। ঘটনায় সময় চিত্র নাট্য হতো রামদা দিয়ে মিন্নি তার স্বামী কে কুপিয়ে হত্যা করেছে। বরগুনার প্রভাবশালী রাজনৈতিক গড়ফাদার সহ সমস্ত প্রশাসন ব্যাস্হ মিন্নিকে এই ঘটনায় অপরাধী চরিত্রহীনা পরিকল্পনা কারী বানাতে। ইতিমধ্যে তারা সফল বরগুনার পুলিশ প্রশাসন ধন্যবাদ আপনাদের আমরা সবাই বধির বোবা কাপুরুষ কারো কিছু করার নেই। আল্লাহর কাছে বিচার দেওয়া ছাড়া। সামাজিক মাধ্যমে যত রকমের নোংরামি বাদরামী কল্পকাহিনী প্রচণ্ডভাবে প্রচার কারি কারা এদের পরিচয় কি? পকৃত অর্থে মামলা শেষ সাক্ষী খুনি ষড়যন্ত্রকারী। সিনেমার নাটক হার মানতে হবে। বঙ্গবন্ধুর দেশে নিরঅপরাধ ষড়যন্ত্রের শিকার সাধারণ মিন্নীরা কষ্ট পারেন রাষ্ট্রের কি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের কিছু করার নেই।
Total Reply(0)
Khan ১৯ জুলাই, ২০১৯, ৭:০৭ এএম says : 0
Some said that main issue was mobile phone, Minni wanted to bash not to kill but those instead of beat and leave they beat and killed,
Total Reply(0)
Nannu chowhan ১৯ জুলাই, ২০১৯, ৯:০১ এএম says : 0
Eaikhane 007 bond groper neta mp putroke keno atok kore jiggashabad kora hocsena? Esi groop borgunai shontrasher rajatto srishti kotesilo...
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন