ঢাকা, সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০৪ ভাদ্র ১৪২৬, ১৭ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

ফেরিতে ভোগান্তি অব্যাহত

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ও শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুট

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধি, তীব্র ঘূর্ণিস্রোত ও ফেরি সঙ্কটে বেহাল দশা দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ও শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে। ফলে তীব্র যানজটে ভোগান্তিতে রয়েছে যাত্রীরা। পচন ধরেছে পণ্যবাহী গাড়ির মালামাল। গত ২৪ ঘন্টায় ২৭ সে.মি পানি বেড়ে শুক্রবার পানিতে তলিয়ে যায় কাঁঠালবাড়ির ৪টি ঘাট। প্রায় অচলাবস্থায় আছে ফেরি চলাচল।
অন্যদিকে, প্রচন্ড স্রোতের বিপরীতে ফেরি চলাচল করতে না পারা ও ফেরি সঙ্কটে তীব্র যানজট দেখা দিয়েছে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাটে। এই রুটে চলাচলকারী ২০টি ফেরির মধ্যে ৭টি বিকল ও ৩টি ফেরি তীব্র স্রোতে চলতে না পারায় বসিয়ে রাখা হয়েছে। যে ফেরিগুলো চলাচল করছে সেগুলোও ঘণ্টার পর ঘণ্টা সময় লাগছে প্রতি ট্রিপে।
রাজবাড়ী জেলা সংবাদদাতা জানান : দুই সপ্তাহেও নৌযান চলাচল স্বাভাবিক হয়নি দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে। শুক্রবার বিকেল নাগাদ দৌলতদিয়া ঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে গোয়ালন্দ পৌরসভা পর্যন্ত প্রায় পৌনে ৭ কিলোমিটার জুড়ে মহাসড়কে সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট। যানজটে আটকে পড়া যাত্রী ও চালকরা সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। এক সপ্তাহেও নদী পার হতে পারছে না অপচনশীল পণ্যবাহী যানবাহন। ১/২ দিন ধরে আটকে থেকে কয়েকশ’ কাঁচামালবাহী ট্রাকের পণ্য পচতে শুরু করেছে।
জানা যায়, স্রোতের বিপরীতে বেশীর ভাগ ফেরিই স্বাভাবিক ভাবে চলতে পাড়ছে না। এছাড়াও রয়েছে ফেরি সঙ্কট। এই রুটে চলাচলকারী ২০টি ফেরির মধ্যে ৭টি বিকল ও ৩টি ফেরি তীব্র স্রোতে চলতে না পারায় বসিয়ে রাখা হয়েছে।
এদিকে গত কয়েকদিনে অচলবস্থা বিবেচনা করে শুক্রবার দৌলতদিয়া ঘাট পরিদর্শনে আসেন বিআইডবিøউটিএ’র চেয়ারম্যান কমোডর মাহবুবুল ইসলাম। তিনি পরিদর্শন শেষে জানান, বর্তমান পরিস্থিতি ও আসন্ন ঈদের কথা মাথায় রেখে নৌরুট স্বাভাবিক রাখতে তারা সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এসময় সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) আব্দুল্লাহ আল মামুন, বিআইডবিøউটিসি’র দৌলতদিয়া অফিসের ম্যানেজার আবু আব্দুল্লাহ রনিসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
বিআইডবিøউটিসি দৌলতদিয়া অফিসের ব্যবস্থাপক আবু আব্দুল্লাহ রনি জানান, রুটে চলাচলকারী ফেরিগুলোর মধ্যে থেকে তীব্র স্রোতের কারণে ৩টি ফেরি চলাচল করতে পারছে না। অন্য ফেরিগুলো ট্রিপে অতিরিক্ত সময় লাগায় ঘাট এলাকায় যানবাহনের সিরিয়ালের সৃষ্টি হয়েছে।
শিবচর (মাদারীপুর) উপজেলা সংবাদদাতা জানান : গত ২৪ ঘন্টায় পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় শুক্রবার তলিয়ে যায় কাঁঠালবাড়ির ৪টি ঘাট। মাত্র ৪/৫টি ফেরি চলছে কোনমতে। যার ফলে ফেরি কখন আসবে কেউ বলতে পারছে না। ফেরির অচলাবস্থার কারণে এ রুট হয়ে দক্ষিনাঞ্চলের বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। চলছে শুধু কাটা সার্ভিস। উভয় ঘাটে যানবাহনের সাড়ি আরো দীর্ঘ হয়ে ঘাট সড়ক থেকে পদ্মা সেতুর এপ্রোচ সড়কের দেড় কিলোমিটার জুড়ে ট্রাকের সাড়ি দেখা গেছে। দীর্ঘদিন ঘাটে আটকে থাকায় পেয়াজসহ কাঁচামালে পচন ধরেছে ।
বিআইডবিøউটিসি কাঁঠালবাড়ি ঘাট সূত্রে জানা যায়, পদ্মায় অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধি পেয়ে স্রোতের গতিবেগ আরো বেড়েছে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে। ২৪ ঘন্টায় বেড়েছে ২৭ সে.মি পানি। পানি বেড়ে শুক্রবার তলিয়ে যায় কাঁঠালবাড়ির ৪টি ঘাট। মূল নদী থেকে লৌহজং টার্নিং এর প্রবেশ মুখে সৃষ্টি হয়েছে ভয়াবহ ঘূর্ণিবর্ত। ৪-৫ টি ফেরি দিয়ে কোনমতে যাত্রী ও যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে। চলমান ফেরিগুলোও ঝ‚ঁকি নিয়ে দীর্ঘসময় ব্যায় করে পদ্মা পাড়ি দিচ্ছে। এতে উভয় পাড়ে হাজারের অধিক যানবাহন আটকে পড়ে আছে। যানবাহনের লাইন পদ্মা সেতুর এপ্রোচ সড়ক পর্যন্ত পৌঁছেছে। এতে যাত্রী ও পরিবহন শ্রমিকরা চরম দূর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। শিমুলিয়া থেকে ছেড়ে আসা সকল ফেরি, লঞ্চ,স্পীডবোটগুলো উজান বেয়ে অতিরিক্ত সময় নিয়ে পদ্মা পাড়ি দিচ্ছে। এতে সময় বেশি ব্যয়ের সাথে সাথে বাড়তি জ¦ালানীও খরচ হচ্ছে।
পেয়াজবাহী ট্রাক চালক আবুল হাশেম বলেন, ভারতের পেয়াজ নিয়ে ৫দিন আগে ভোমরা বন্দর থেকে কাঁঠালবাড়ি এসেছি। এপ্রোচেই পড়ে আছি। ঘাটেও পৌঁছাতে পারিনি।
ফেরি কাকলীর মাস্টার নুরুল আমিন বলেন, পদ্মায় স্রোত দিন দিন বাড়ছে। ফেরি ছাড়ার পর কখন আসবো বলা যায় না। ঘূর্ণিবর্তের কারণে লৌহজং টার্নিং খুবই ঝ‚ঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে।
বিআইডবিøউটিসি কাঠালবাড়ি ঘাট ম্যানেজার আ. সালাম বলেন, পানি বাড়ার গতি খুবই অস্বাভাবিক। আমাদের ৪টি ঘাট তলিয়ে গেছে পানিতে। আমরা যানবাহনগুলোকে বিকল্প রুট ব্যবহারের পরামর্শ দিচ্ছি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন